ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বিআইডব্লিউটিসি : মূলধন ৫০০ কোটিতে উন্নীত

আসাদ আল মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০৯ ৫:৫৮:৫১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-০৯ ৮:৫৫:১৩ পিএম
বিআইডব্লিউটিসি : মূলধন ৫০০ কোটিতে উন্নীত

সচিবালয় প্রতিবেদক : বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) অনুমোদিত মূলধন করা হয়েছে ৫০০ কোটি টাকা। যা আগে ছিল পাঁচ কোটি টাকা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন আইন, ২০১৯’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মাদ শফিউল আলম এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, অনেকদিন আগের এই আইনটি নতুন করে করা হয়েছে। এখানে বাড়ানো হয়েছে কর্পোরেশনের অনুমোদিত মূলধনের পরিমান। এই কর্পোরেশনের অনুমোদিত মূলধন আগে ছিল মাত্র পাঁচ কোটি টাকা। এটা বাড়িয়ে এই আইনের মাধ্যমে অনুমোদিত মুলধন করা হয়েছে ৫০০ কোটি টাকা।

কর্পোরেশনের পরিষদ গঠনে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। এখানে আগে ছিলেন একজন চেয়ারম্যান এবং সার্বক্ষণিক চারজন পরিচালক। নতুন আইনে এর সঙ্গে যোগ করা হয়েছে একজন খণ্ডকালীন পরিচালক। যিনি নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তা হবেন। মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কর্পোরেশনের কাজের সুবিধার্থে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তাকে যোগ করা হয়েছে।

পরিষদের সভার সময়, তারিখ ও স্থান চেয়ারম্যান নির্ধারণ করবেন। সভায় চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতে চেয়ারম্যান যাকে নির্ধারণ করে দেবেন, তিনি সভায় সভাপতিত্ব করবেন। চেয়ারম্যানসহ তিনজন সভায় উপস্থিত থাকলে কোরাম হবে বলেও আইনে উল্লেখ করা হয়।

সচিব জানান, বার্ষিক প্রতিবেদন দেওয়ার একটি বিধান রাখা হয়েছে এই আইনে। পরবর্তী অর্থবছর শেষ হওয়ার আগেই এ সংক্রান্ত বার্ষিক প্রতিবেদন প্রণয়ন করতে হবে।

কর্পোরেশনের পাওনা আদায়ের জন্য একটি ম্যানেজম্যান্ট দেওয়া হয়েছে এই আইনে, আগে নির্দিষ্ট কোন ম্যানেজমেন্ট ছিল না। কর্পোরেশনের কোন পাওনা থাকলে সেটা আইন অনুযায়ী আদায়যোগ্য হবে। কর্পোরেশনের চেয়ারম্যানসহ কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা জনসেবক হিসেবে গন্য হবেন।


রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯সেপ্টেম্বর ২০১৯/আসাদ/সাজেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন