ঢাকা, সোমবার, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পাট শিল্পে আয়কর সুবিধা বাড়ল আরো ৩ বছর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-০৮ ৭:২৮:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-০৮ ৭:২৮:০০ পিএম

পাটজাত দ্রব্য উৎপাদনে নিয়োজিত শিল্প প্রতিষ্ঠানে আয়কর সুবিধা আরো তিন অর্থবছর  বৃদ্ধি করা হয়েছে। 

বর্তমানে এই খাতের শিল্প প্রতিষ্ঠান ১০ শতাংশ হারে আয়কর সুবিধা ভোগ করছে। যা চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে শেষ হয়ে যাবে। পাটজাত শিল্প সুরক্ষা ও উন্নয়নের স্বার্থে হ্রাসকৃত আয়কর সুবিধা ২০২২-২০২৩ করবর্ষ বৃদ্ধি করা হয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া সই করা প্রজ্ঞাপন সূ্ত্রে বিষয়টি জানা গেছে। যা গত ৩ অক্টোবর ইস্যু করা হয়েছে বলে এনবিআরের উর্ধ্বতন সূত্র রাইজিংবিডিকে জানিয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর ৪৪ নং অধ্যায়ের সাব-সেকশন ৪ এর (বি) দফার ক্ষমতাবলে পাটজাত দ্রব্য উৎপাদনে নিয়োজিত কোনো শিল্প প্রতিষ্ঠানের কেবল উক্ত শিল্প হতে অর্জিত আয়ের ক্ষেত্রে ২০২০-২১, ২০২১-২০২২ এবং ২০২২-২০২৩ করবর্ষের জন্য প্রযোজ্য আয়করের হার কোম্পানি করদাতার ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ এবং কোম্পানি ব্যতীত অন্যান্য করদাতার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ করা হয়েছে। যা অবিলম্বে কার‌্যকর হবে।

এর আগে ২০১৬ সালে ২০১৬-১৭ অর্থবছর থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছর পর্যন্ত পাটজাত কোম্পানিসহ সংশ্লিষ্ট খাতের করদাতারাও এমন সুবিধা ঘোষণা করা হয়েছিল।

এনবিআর সূত্র জানায়, আয়কর আইনে কোম্পানিকে তাদের মোট আয়ের ওপর খাত হিসেবে ২৫-৪৫ শতাংশ পর্যন্ত আয়কর দিতে হতো।। প্রতি বছর তিনটি স্লাবে এ আয়কর নিত এনবিআর। এর মধ্যে করদাতার মোট আয় ১০ লাখ টাকা হলে মোট আয়ের ১৫ শতাংশ, ১০ লাখের বেশি বা ৩০ লাখের কম হলে অতিরিক্ত আয়ে ১২ শতাংশ পর্যন্ত আয়কর দিতে হতো। আর মোট আয় ৩০ লাখের বেশি হলে প্রথম ১০ লাখে ১৫ শতাংশ, পরের ২০ লাখে ১২ শতাংশ ও পরবর্তী আয়ের ওপর ১০ শতাংশ আয়কর দিতে হতো।  বর্তমান আইন অনুযায়ী, খাত সংশ্লিষ্ট করদাতাকে পাট শিল্প থেকে প্রাপ্ত যেকোনো পরিমাণ আয়ে ১০ শতাংশ কর দিতে হবে।


ঢাকা/এম এ রহমান/সাইফ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন