ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৬ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২২ ১৪২৭ ||  ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

চিকিৎসা যন্ত্রপাতির শুল্ক প্রত্যাহার দাবি

280 || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:১৯, ২৪ মার্চ ২০২০  

মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে রোগীর চিকিৎসা সেবা কাজে ব্যবহৃত সকল ধরণের যন্ত্রপাতি আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার চায় বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশন ( বিপিএমসিএ)।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে আগামী ২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. এনামুর রহমান এই প্রস্তাব উপস্থাপন করেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে প্রাক বাজেটের আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনায় এনামুর রহমান বলেন, রেফারেল হাসপাতাল হিসেবে স্বীকৃত হাসপাতাল ব্যতীত অন্যান্য হাসপাতালসমূহের যন্ত্রপাতি আমদানিতে এক শতাংশ আমদানি শুল্ক বিদ্যমান। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে চিকিৎসা কাজে ব্যবহৃত সকল যন্ত্রপাতি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে মানুষের জীবন রক্ষা করে থাকে। এছাড়া আমদানিকৃত যন্ত্রপাতিসমূহ স্বাভাবিকভাবেই ব্যয়বহুল। তার উপর অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ করা হলে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালগুলো স্বল্প বা বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবে না। তাই জনগণকে স্বল্পমূল্যে বা বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য সকল চিকিৎসা যন্ত্রপাতির ক্ষেত্রে শুল্কমুক্ত সুবিধা দেওয়া উচিত।

এছাড়া সংগঠনটি সকল বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের উপর আরোপিত ১৫ শতাংশ আয়কর অব্যাহতিরও প্রস্তাব পেশ করে।  এ বিষয়ে সংগঠনটি বলছে, দেশের বিদ্যমান বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনার নীতিমালা অনুসারে সকল বেসরকারি কলেজ অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। ফলে এ খাত থেকে অর্জিত সকল আয় প্রতিস্ঠানের উন্নয়ন খাতে ব্যয় হয়।  তাই এখান থেকে অর্জিত আয়ের উপর কর প্রদান করা সম্ভব নয়।

অন্যদিকে সেবা খাতের সকল বাড়ি অফিস ভাড়ার উপর ৪ শতাংশ হারে ভ্যাট নির্ধারণের প্রস্তাব করে বেসরকারি এই মেডিক্যাল কলেজ সমিতি।  অন্যান্য দাবির মধ্যে রয়েছে ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়সীমা বৃদ্ধি ও অনেকে ক্ষেত্রে দ্বৈত কর বিষয়ক জটিলতা পরিহার ইত্যাদি।

প্রাক-বাজেট আলোচনায় বিপিএমসি’র সভাপতি এম এ মুবিন খানসহ এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


ঢাকা/এম এ রহমান/টিপু

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়