ঢাকা, বুধবার, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে এই জয়

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-২০ ১০:৪৬:৩৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-২১ ৮:৩৭:১৬ এএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক, মিরপুর থেকে : প্রথম ম্যাচে শর্ট বলে উইকেট বিলিয়ে দেওয়ার প্রতিযোগিতায় মেতেছিলেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসারদের জোরে বল আরো জোরে মারতে গিয়েছিলেন। বাংলাদেশ যার খেসারত দিয়েছিল প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বড় হারে। দ্বিতীয় ম্যাচে সেই বাংলাদেশই ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহ গড়ে উড়িয়ে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। সিরিজে ফিরিয়েছে সমতা। ৩৬ রানে জয়ের পর অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানালেন, আগের ম্যাচের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে সেটা কাজে লাগানোর ফল পেয়েছেন তারা।

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ১২৯ রানে অলআউট হয়ে বাংলাদেশ ম্যাচ হেরেছিল ৮ উইকেটে। তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকাররা প্রতিপক্ষকে উইকেট উপহার দিয়েছিলেন শর্ট বল তাড়া করতে গিয়ে। ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জির মতে, আগুনের জবাব আগুন দিয়ে দিতে গিয়েই অমন হাল হয়েছিল বাংলাদেশের।

সেই একই বোলারদের বিপক্ষে বৃহস্পতিবার মিরপুরে আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে ২১১ রান। লিটন ৩৪ বলে খেলেন ৬০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। সৌম্য ২২ বলে করেন ৩২।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ব্যাটিং নিয়ে সাকিব বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় গত ম্যাচ থেকে ব্যাটসম্যানরা অনেক শিক্ষা নিয়েছে। প্রথম ম্যাচে যেটা হয়েছে ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বল আসছে, ওটাকে আমরা ১৮০ তে মারতে গিয়েছি। এখন ১৪০-এ আসছে, ওটাই আমরা পেসটা ব্যবহার করেছি। আমার কাছে মনে হয় অনেক সেন্সেবল একটা চিন্তা ব্যাটসম্যানরা করেছে। খুবই রাইট গেম প্লান করেছে। ভেবেছে এই পেসটা ব্যবহার করতে পারলে রান করা সম্ভব। যেটা আজ লিটন করে দেখিয়েছে।’

দ্বিতীয় উইকেটে লিটন-সৌম্যর ৪২ বলে ৬৮ রানের জুটির পর দুই ওভারের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। এরপরই সপ্তম উইকেটে শেষ সাত ওভারে ৯১ রান যোগ করেন সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ। তাতে বাংলাদেশ পায় টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান।

ওই সময় জুটিটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ ছিল বলে মনে করেন সাকিব, ‘আমাদের ব্যাটিংয়ে খুব ভালো শুরু করেছে লিটন, তারপর সৌম্য ওটা ধরে রেখেছে। এরপর আমি এবং রিয়াদ ভাইয়ের (মাহমুদউল্লাহ) জুটিটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ওই সময় যদি আমরা উইকেট হারিয়ে ফেলতাম, তারপর বোলাররা চলে আসতো, এরপর হয়তো এই বড় রানটা হতো না। এই বাড়তি ২০-৩০ রানের স্ট্রেন্থটা আমরা পেতাম না। সেদিক থেকে আমি বলব ব্যাটিংয়ে আমাদের আসল কাজটা করে দিয়েছে।’

‘আমি বলব ব্যাটসম্যানদের কৃতিত্ব। খুব ভালো ব্যাট করলে ১৮০ হবে এরকম আমাদের ধারণা ছিল। আমার ব্যক্তিগত ধারণা ছিল। সেখানে ২১১ হয়েছে। আমার কাছে মনে হয়, এটা প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে যে আমাদের ২০-৩০ রান বেশি আছে, যেটা নিয়ে আমরা খেলতে পারব। বাজে হলেও ফিরে আসার সুযোগ থাকে।’

 

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২০ ডিসেম্বর ২০১৮/পরাগ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন