ঢাকা     রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৫ ১৪২৭ ||  ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

জাবিতে গাছে কাফন পরিয়ে বিক্ষোভ

114 || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:৩৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯  
জাবিতে গাছে কাফন পরিয়ে বিক্ষোভ

জাবি প্রতিনিধি : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে হল নির্মাণের জন্য কেটে ফেলা গাছে কাফনের কাপড় পরিয়ে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার সকালে ছেলেদের তিনটি হলের জন্য নির্ধারিত বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ হলের পার্শ্ববর্তী শান্তি নিকেতন নামক জায়গা থেকে বেশকিছু গাছ কেটে ফেলা হয়।

বিকেলে এর প্রতিবাদে কর্তনকৃত গাছের অংশে কাফন পরিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। বিকেল চারটার দিকে গাছকাটার স্থান থেকে একটি মিছিল শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান সড়ক সমূহ প্রদক্ষিণ করে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বাসভবনের সামনে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

মিছিল শেষে প্রতিবাদ সভায় ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য রাকিবুল রনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বারবার মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। আমাদের দাবির মুখে তিনি বলেছিলেন যে তিনি দাবি পর্যালোচনা করে দেখবেন। কিন্তু আমাদের দাবি পর্যালোচনা না করে উন্নয়ন কাজ শুরু করেছেন। উন্নয়ন কাজ নিয়ে ভাগবাটোয়ারার রাজ্য খুল বসেছেন উপাচার্য, আমরা দেখেছি কিভাবে তিনি সাধারণ মানুষের টাকা ভাগবাটোয়ারা করে ছাত্রলীগকে দিচ্ছেন। এই অপরিকল্পিত উন্নয়ন কাজের বিরুদ্ধে আমাদের সংগ্রাম চলবে।’

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের মুখপাত্র খান মুনতাসির আরমান বলেন, ‘উপাচার্য বর্তমানে স্বৈরাচারী আচরণ করছে। একজন উপাচার্যের কাছ থেকে এধরনের আচরণ কাম্য নয়।’

দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, ‘যখন এই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন শুরু হয় তখন থেকেই আমরা প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তার অবস্থানে অটল। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন স্বৈরাচারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।’

জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর রহমান বলেন, ‘আমরা উপাচার্যকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই সকল স্টেক হোল্ডারদের মতামত না নিয়ে এই অপরিকল্পিত উন্নয়ন কাজ আপনি করতে পারবেন না।’

এর আগে উন্নয়ন কাজের শুরু থেকে কাজকে ‘অপরিকল্পিত’ অ্যাখ্যা দিয়ে তা বন্ধের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তবে তাদের আন্দোলনকে উপেক্ষা করে কাজ চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে ওই জাযগায় গাছ কাটা শুরু হয়। পরে সকাল ১০টার দিকে শিক্ষার্থীদের বাধায় গাছকাটা সাময়িক বন্ধ রাখা হয়।


রাইজিংবিডি/সাভার/২৩ আগস্ট ২০১৯/তহিদুল ইসলাম/নবীন হোসেন

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়