ঢাকা, শনিবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ইবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ২০

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২১ ৪:১২:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২১ ৪:১২:০৫ পিএম

ইসলামী বিশ্ববিদ্যায়ে (ইবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়েছে।

মঙ্গলবার শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তার কর্মীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করলে পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীদের সাথে এ সংঘর্ষ হয়।

এসময় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ করে নেতাকর্মীরা। সংঘর্ষে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ উভয় গ্রুপের ২০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

জানা যায়, শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব তাদের নেতাকর্মী ও বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের থানা গেট এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে সড়ক হয়ে প্রধান গেটের দিকে এগোতে থাকে। এসময় ক্যাম্পাসে অবস্থান করা পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে ফটকে আসলে উভয় গ্রুপের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের হাতে লাঠি, হকিস্টিকসহ দেশীয় অস্ত্র দেখা যায়। এসময় নেতাকর্মীরা তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ করে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় প্রধান ফটক এলাকা। আহতদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কয়েকজনকে কুষ্টিয়া মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

সংঘর্ষে পদবঞ্চিতদের নেতাকর্মীদের সাথে না পেরে পালিয়ে যায় সভাপতি-সম্পাদক গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা দেয়। ফলে ক্যাম্পাস থেকে দুপুরের শিডিউলের কোনো বাস ছেড়ে যেতে পারেনি। সেইসাথে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পড়ে বেলা আড়াইটায় অবরোধ তুলে নিলেও ফটক অবরোধ করে রাখে নেতাকর্মীরা। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পদবঞ্চিতরা ক্যাম্পাসের ফটক আটকে রেখে অবস্থান করছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল পলাশ-রাকিবকে সভাপতি সম্পাদক করে কমিটি দেয় কেন্দ্র। দেড়মাস না যেতেই ৪০ লাখ টাকায় কমিটিতে আসা নিয়ে সম্পাদক রাকিবের অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। এরপর টাকা দিয়ে কমিটিতে আসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ক্যাম্পাসে সভাপতি ও সম্পাদককে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে পদবঞ্চিত গ্রুপ। এরপর বিভিন্ন সময় ক্যাম্পাসে আসলে কর্মীদের ধাওয়ায় চার দফায় ক্যাম্পাস ছাড়ে সম্পাদক রাকিব।


ইবি/নাহিদ/মাহি