ঢাকা, সোমবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘গল্পের অনুবাদ গল্পকারদেরই করা উচিত’

সাইফ বরকতুল্লাহ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০২-০৬ ৯:৫০:৩১ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-০৭ ১১:৩৩:২৪ এএম

কথাসাহিত্যিক পাপড়ি রহমান। ১৯৬৫ সালে টাঙ্গাইলে জন্ম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে। ছোটগল্প রচনায় নিজের স্বতন্ত্র ধারা তৈরি করেছেন নব্বই দশকের গোড়াতেই। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ হলো- অষ্টরম্ভা, ধূলিচিত্রিত দৃশ্যাবলি, মৃদুমানুষের মোশন-পিকচার, পোড়া নদীর স্বপ্নপূরণ, বয়ন ও পালাটিয়া। এ ছাড়া বাংলা একাডেমি থেকে তার সম্পাদনায় বেরিয়েছে ‘বাংলাদেশের গল্প : নব্বইয়ের দশক’। অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৭-এর বিভিন্ন দিক নিয়ে রাইজিংবিডি ডটকমের পক্ষ থেকে তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সাইফ বরকতুল্লাহ

রাইজিংবিডি : লেখালেখি কেন করেন?
পাপড়ি রহমান : আর কোনো কাজ পারি না, তাই লেখালেখি করি। তা ছাড়া নিজের চিন্তাগুলি আমি অন্যের সাথে শেয়ার করতে চাই, তাই লিখি।

রাইজিংবিডি : আপনি মূলত শব্দশিল্পী। আবার অনুবাদও করছেন? কীভাবে সমন্বয় করছেন?
পাপড়ি রহমান : অনুবাদ যে কেউই করতে পারে। আমি মনে করি, গল্পের অনুবাদ গল্পকারেরা করলেই বরং সে গল্প মূল গল্পের অনুরূপ হতে পারে। বা কবিতার অনুবাদ যদি কবিরাই করে। তবে অনুবাদ বরাবরই পরিশ্রমের কাজ। কিন্তু করার পরে যে আনন্দ হয়, তা অপ্রকাশযোগ্য। কষ্ট হয়েছে খুব। কিন্তু বইটি প্রকাশের পর আমি সেসব কষ্ট ভুলে গেছি। তবে এটা ঠিক অনুবাদ নিয়ে বিজি (ব্যস্ত) থাকাতে নিজের লেখার সময় একদম পাইনি।


রাইজিংবিডি : লেখালেখিতে কীভাবে আসলেন?
পাপড়ি রহমান : ছোটকাল থেকেই লিখছিলাম। মানে লেখার চেষ্টা করছিলাম। আর লিখব বলেই নিজেকে তৈরি করছিলাম। ফলে হঠাৎ লেখক হয়েছি এমন নয় কিন্তু।

রাইজিংবিডি : এবারের বইমেলায় আপনার কী কী বই এসেছে?
পাপড়ি রহমান : চৈতন্য প্রকাশনা থেকে বেরিয়েছে নির্বাচিত গল্প।

রাইজিংবিডি : লেখালেখি নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
পাপড়ি রহমান :  উপন্যাসের প্রতি আমি বেশ দুর্বল। বিগত ৬ বছর আমার কোনো উপন্যাস নেই। দুই/চারটা ভালো উপন্যাস লিখতে চাই। আর সম্পাদনা করতে চাই নানান কিছু। আরেকটা বিষয়- সমাজে-সংসারে নারীরা যে কি পরিমাণ নিগৃহীত হয়- সেটা তার মা দ্বারা, বোন দ্বারা, ভাই দ্বারা, নিকট আত্মীয় দ্বারা; আমি অবাক- এইসব নিয়ে আজো কেউ কিছু লিখেনি কেন? সময় করতে পারলে এ নিয়ে মুক্তগদ্য লিখতে চাই। লিখব।

রাইজিংবিডি : মেলায় বইয়ের ক্রেতা-বিক্রেতার প্রতি আপনার আহ্বান কী?
পাপড়ি রহমান : বই পড়ুন সকলেই। বইয়ের যত্ন করুন। ক্রেতাদের বলি-আজেবাজে বই না কিনে সত্যিকার ভালো বই কিনুন। বিক্রেতাদের বলি- ভালো বইয়ের নামটা অন্তত পাঠকের কাছে পৌঁছান। বলুন যে এটা ভালো বই। এভাবেই একদিন ভালো বইটির সন্ধান সকলে পেয়ে যাবে। ভিড় থাকলে অস্থির না হয়ে সারিবদ্ধভাবে চলুন, ফিরুন। যাতে অন্যদের সমস্যা না হয়।

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/সাইফ/এসএন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন