ঢাকা, সোমবার, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

আলোকিত তরুণ ইব্রাহিম

খায়রুল বাশার আশিক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১৭ ৩:২৯:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৪-১৭ ৪:৪১:৩৪ পিএম

খায়রুল বাশার আশিক : বয়সে তরুণ। লেখাপড়ার পাশাপাশি পেশায় ক্ষুদ্র পর্যটন ব্যবসায়ী। তবে চিন্তা-চেতনা, চেষ্টায় তিনি অনেকের চেয়ে বড়। মাদকমুক্ত সমাজ এই তরুণের ব্রত। সমাজে শিক্ষিত হাজারো তরুণ যখন মাদক কিংবা নানা অপকর্মে পথভ্রষ্ট, তখন তিনি কাজ করছেন তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে। কোনো চাপ প্রয়োগ কিংবা ভয়ভীতি দেখিয়ে নয়, বরং মোটিভেট করে তিনি সমাজকে মাদকমুক্ত করার চেষ্টা করছেন সাধ্যমতো। শুধু মাদক নির্মূল নয়, পাশাপাশি মুমূর্ষু রোগীদের প্রয়োজনে রক্ত দিয়ে কিংবা রক্ত খুঁজে দিয়েও সাহায্য করেন এই তরুণ।

নাম ইব্রাহিম ওয়াহিদ (২৬)। বাড়ি পটুয়াখালী জেলার সমুদ্রপাড় কুয়াকাটায়। আঃ মজিদ মুসুল্লির ৫ সন্তানের মধ্যে ২য় ইব্রাহিম। পটুয়াখালী সরকারি কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক শেষ করে একই বিষয়ে মাস্টার্স অধ্যয়নরত তিনি। তার এমন সমাজকল্যাণমূলক চিন্তা-চেতনার কারণে কুয়াকাটার অনেকেই তাকে নিয়ে এখন গর্ব করে। পরিবারের কেউ যদি নেশায় জড়িয়ে পরে তখন অন্য সদস্যরা ছুটে আসেন ইব্রাহিমের কাছে। তারা সহায়তা চায়। ইব্রাহিম চেষ্টা করেন তাদের ফিরিয়ে আনতে। এর বিনিময়ে তিনি কোনো আর্থ নেন না। সমাজের প্রয়োজনে দায়িত্ববোধ থেকে তিনি কাজটি করেন। তরুণদের নিয়ে কাজ করতে করতে ইব্রাহিম এখন তরুণবান্ধব হয়ে উঠেছেন। অনেক তরুণের কাছে তিনি দীপশিখা। সমবয়সীরা সবাই তাকে বন্ধু পরিচয় দিয়ে তৃপ্তি পায়। 

সামাজিক যে কোনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে ইব্রাহিম সব সময় সরব। নুসরাত হত্যাসহ নানা ঘটনার প্রতিবাদে মানবন্ধনের আয়োজকের ভূমিকায় তাকে দেখা যায়। কুয়াকাটার সৈকতে ভাঙন প্রতিরোধে স্থানীয়দের পক্ষ থেকে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের উদ্যোক্তাও তিনি। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য দেয়াল লিখন, মানবতার দেয়াল স্থাপন, ঘূর্নিঝড়ে আক্রান্ত মানুষের পাশে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে হাজির হওয়া, বিভিন্ন সচেতনতামূলক সভা-সেমিনার ইত্যাদি আয়োজন করে কুয়াকাটার বুকে সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। এছাড়াও চৈত্রসংক্রান্তি, বর্ষবরণ, ফাল্গুন উদযাপন, সুস্থ ধারার তরুণদের নিয়ে বনভোজনের আয়োজনসহ নানা কর্মকাণ্ডে প্রধানের ভূমিকায় থাকেন সংস্কৃতমনা এই তরুণ।



ভালো কাজের কিছু স্বীকৃতিও মিলেছে তার। স্থানীয়দের সর্বসম্মতিক্রমে ‘কুয়াকাটা তরুণ ক্লাব’র সভাপতি মনোনীত হয়েছেন তিনি। পালন করছেন পটুয়াখালীর কুয়াকাটা ছাত্রছাত্রী কল্যাণ পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব। এসব বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলতে চাইলে প্রচারের আড়ালে থেকেই মানবসেবা করার ইছা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমি নিজে এবং আমার সংগঠনের সকল সদস্য ধূমপানমুক্ত। আমার আশেপাশে থাকা সবাইকে এ বিষয়ে সচেতন করি। মাদককে আমি এবং আমাদের সংগঠন কঠোর গুরুত্ব দেই। কুয়াকাটা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডকে আমরা সম্পূর্ণ মাদকমুক্ত করেছি এবং আমাদের পরিকল্পনা সম্পূর্ণ কুয়াকাটাকে মাদকমুক্ত করা। সে অনুযায়ী আমরা সচেতনতামূলক সেমিনারসহ কুয়াকাটার পরিত্যক্ত বিভিন্ন দেয়ালে মাদকের বিরুদ্ধে স্লোগান লিখেছি। এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছি। আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের সংগঠনের মাধ্যমে মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত দিচ্ছি। কুয়াকাটায় এবং মহিপুর থানায় রক্তদাতাদের মধ্যে আমরাই অন্যতম।’

ইব্রাহিম আরো বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে মানুষের পাশে থেকে মানুষের জন্য কিছু করতে পারলে আত্মতৃপ্তি পাই।’ এই তরুণকে নিয়ে কথা হলে স্থানীয় পর্যটন ব্যবসায়ী ও সংবাদিক এম আর তুষার বলেন, ‘অন্যায়ের প্রতিবাদী ও প্রাণ খোলা মানসিকতার একজন মানুষ ইব্রাহিম। সমাজের সব ধরনের প্রয়োজনে সে এগিয়ে আসে। এ ধরনের পজেটিভ চিন্তার তরুণ আমাদের দেশের প্রতিটি সমাজে, প্রতিটি গ্রামে খুব প্রয়োজন।’  



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৭ এপ্রিল ২০১৯/ফিরোজ