ঢাকা, বুধবার, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বাড়ি থেকে অনেক দূরে বন্দি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-০৮ ১২:১৮:৫০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-০৮ ১২:১৮:৫০ পিএম

১৯ বছরের উজায়ের মকবুল মালিককে ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে জঙ্গিদের সহযোগিতার অভিযোগ আনা হয়েছে। আইনজীবী হিসেবে সুপরিচিত নাজির আহমেদ রোঙ্গাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে কট্টোর বিচ্ছিন্নতাবাদী হিসেবে।

শিক্ষাগত ও সামাজিক অবস্থানের ভিন্নতা সত্ত্বেও দুজনের মধ্যে একটি জায়গায় মিল রয়েছে। বিচারবর্হিভূতভাবে ভারত যে শত শত কাশ্মীরিকে আটক করে অন্য রাজ্যের কারাগারে আটক রেখেছে, এদের দুজনও তাদের মধ্যে রয়েছেন।

গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা বাতিল করার পর সংখ্যাগুরু মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চলটিতে অচল অবস্থা বিরাজ করছে। নয়া দিল্লি উপত্যকার ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন পরিষেবা এক রকম বিচ্ছিন্ন করে রেখেছে। আটক করেছে প্রায় চার হাজার মানুষকে।

সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এদের মধ্যে অন্তত ৩০০ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে জননিরাপত্তা আইনে। এই আইনে গ্রেপ্তারকৃতদের বিনাবিচারে দুই বছর পর্যন্ত আটকের বিধান আছে। গ্রেপ্তারকৃতদের অধিকাংশকে আবার রাখা হয়েছে কাশ্মীর থেকে বহু দূরের রাজ্য উত্তর প্রদেশের কারাগারে।

গ্রেপ্তারকৃতদের অধিকাংশই মালিকের মতো তরুণ। তবে আজ তাদের সবার অবস্থা কাশ্মীর বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সভাপতি রোঙ্গার মতোই। কেবল রোঙ্গাই নন, বিনাবিচারে অন্য রাজ্যের কারাগারে আটক আছেন কয়েক ডজন আইনজীবী, শিক্ষাবিদ ও রাজনৈতিক নেতা। কোনো ধরনের পূর্বঘোষণা কিংবা স্বজনদের না জানিয়েই কর্তৃপক্ষ বন্দিদের কাশ্মীর থেকে ভিন্ন রাজ্যের কারাগারে স্থানান্তর করে। এমনকি কোনোভাবে খোঁজ পাওয়া গেলেও বন্দিদের সঙ্গে স্বজনদের খুব কমই যোগাযোগ করতে দেয়া হয়। যোগাযোগের সুযোগ না পাওয়ায় এসব বন্দিদের আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রও সরবরাহ করতে পারেন না স্বজনরা।

ভারতীয় কর্মকর্তাদের দাবি, বন্দিদের ভিন্ন রাজ্যে সরিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া।

জম্মু ও কাশ্মীর হাইকোর্টের জেনারেল রেজিস্টার সঞ্জয় ধর জানান, জননিরাপত্তায় আটক ৩০০ জনের আপিল আবেদন নিয়ে কাশ্মীরের প্রধান শহর শ্রীনগরে দুজন বিচারক কাজ করছেন।



ঢাকা/শাহেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন