ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৪ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

মারা যাচ্ছেন নার্স, আক্রান্ত চিকিৎসক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-৩০ ১০:৪৫:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-৩১ ৩:১৮:৫৪ এএম

করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি আরভিং মেডিকেল সেন্টারের কাছে বেশ কয়েক জন চিকিৎসক ও নার্স চেয়েছেন নিউ ইয়র্কের এক হাসপাতালের সুপারভাইজার। কারণ, ওই হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের অর্ধেক চিকিৎসাকর্মীই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন হাসপাতালের বিছানায় নয়তো বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে।

নিউ ইয়র্ক সিটি হাসপাতালের দুই শতাধিক চিকিৎসাকর্মী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।  এভাবে চিকিৎসাকর্মীদের আক্রান্তের হার বাড়তে থাকায় আরেক চিকিৎসক হতাশ হয়ে পরিস্থিতিকে ‘স্বচ্ছ কাঁচের পাত্র’ বলে বর্ণনা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত এক লাখ ৪৫ হাজারের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৩০ হাজারের বেশি রয়েছে নিউ ইয়র্ক সিটিতে। করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় যাদের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সেই চিকিৎসক, নার্স ও হাসপাতালের অন্যান্য কর্মীরা একের পর এক অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। সহকর্মীদের একের পর এক ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ায় জরুরি সেবা বিভাগ ও ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে দায়িত্ব পালন করা চিকিৎসাকর্মীরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

ব্রংক্সের জ্যাকবি মেডিকেল সেন্টারের নার্স থমাস রিলি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হতো আমাদেরকে কসাইখানায় পাঠানো হচ্ছে।’ রিলি ও তার স্বামী দুজনই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

গত সপ্তাহে নিউ ইয়র্কে দুই নার্স করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। নগরীর চিকিৎসাকর্মীদের মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে তাদের মৃত্যুই প্রথম। নগরজুড়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের এখন আশঙ্কা, করোনা আক্রান্তে চিকিৎসাকর্মীদের মৃত্যুর তালিকা লম্বা হতে শুরু করবে।

আমেরিকান কলেজ অব ইমার্জেন্সি ফিজিশিয়ান্সের সভাপতি উইলিয়াম পি জ্যাকুইস বলেন, ‘সব জায়গায় চিকিৎসকরা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন।’ সারা দেশে কতজন চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন সেই তথ্য এই মুহূর্তে জানা সম্ভব হচ্ছে না। তবে বিপদের মাত্রা আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা তারা।

করোনাভাইরাসে কেন চিকিৎসাকর্মীদের আক্রান্তের হার বাড়ছে? এর প্রধান কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে, রোগীর সংখ্যার তুলনায় চিকিৎসকদের সুরক্ষা পোশাক ও যন্ত্রপাতির অভাব। গত সপ্তাহে নিউ ইয়র্কের মেয়র বিল দে ব্লাসিও সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, হাসপাতালগুলোতে দ্রুত ফুরিয়ে আসছে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা সামগ্রী। আক্রান্তের সংখ্যা এভাবে বাড়তে থাকলে আগামী রোববারের আগেই শেষ হয়ে যাবে সব সামগ্রী।


ঢাকা/শাহেদ