ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

প্রতিবন্ধকতাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে

হাসিবুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-০৮ ৫:৫৪:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-০৮ ৮:৪৪:৪৯ পিএম

সাহিন আহমেদ চৌধুরী। ১৯৮৬ সালে প্রশাসন ক্যাডারে বাংলাদেশ সরকারের একজন কর্মকর্তা হিসেবে কর্মজীবন শুরু। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

১৯৮১-৮২ সালে সাবেক ক্রিকেটার এবং ক্রিকেট কোচিংয়ের অগ্রদূত প্রয়াত সৈয়দ আলতাফ হোসেনকে কোচ করে জাতীয় নারী ক্রিকেট দল গঠন করা হয়। এই দলের গর্বিত সদস্য ছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প ও শক্তি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) হিসেবে কর্মরত।

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে একান্ত সাক্ষাৎকারে নারীর সফলতার নানা দিক দিয়ে কথা বলেন সফল এই নারী। চাকরিকালীন তিনি দেশ-বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ সরকারের একজন সিনিয়র সচিব। গত ২৭ মে ২০১৯ খ্রি. তারিখ থেকে তিনি পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প ও শক্তি বিভাগের সদস্য হিসেবে কর্মরত আছেন।

রাইজিংবিডির নিজস্ব প্রতিবেদক হাসিবুল ইসলাম মিথুনের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় তার কর্মময় জীবনের নানা দিক উঠে এসেছে।

রাইজিংবিডি : আপনার এই সফলতার পেছনে কার কার অবদান সবচেয়ে বেশি?

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : আমি মনে করি, নারীদের এগিয়ে যাওয়ার পেছনে সলফতার শুরুটা হতে হবে পরিবার থেকেই। ছোট বেলা থেকেই ডানপিটে ছিলাম। সাইক্লিং ও খেলা-ধূলা ছিল আমার নেশার মতো। স্কুলে লং জাম্প খেলতাম। পরিবার থেকে বড় সাপোর্ট পেয়েছি সবসময়। তাই নারীদের সফলতার শুরুটা পরিবার থেকেই এগিয়ে আসতে হবে।

রাইজিংবিডি : নারী সচিব হাতে গোনা কয়েকজন। এই সংখ্যা কীভাবে বাড়তে পারে?

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : সচিব পদ হাতে গোনা। সবার সচিব হওয়ার সুযোগও থাকে না। তবে বর্তমান সরকার সচিব থেকে শুরু করে নানা পদে নারীদের উপরে আস্থা রেখেছেন। সরকার নারীদের নানাভাবে সুযোগ সুবিধা দিচ্ছেন। আমাদের নারী সমাজকে বর্তমান সরকারের দেওয়া এই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেত্রী এবং স্পিকার নারী। পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু নানা পদে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে নারীরা। বর্তমান সরকার নারীবান্ধব সরকার- এটা বলতে কারো সংকোচবোধ করা উচিত নয়।

রাইজিংবিডি : কর্মক্ষেত্রে নারীদের প্রতিবন্ধকতা কতটুকু?

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : প্রতিবন্ধকতা আছে। তবে এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আমি মাঠ পর্যায়ে উপজেলা ম‌্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা ফিন্যান্স অফিসার হিসেবে কুমিল্লা সদরে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে নারায়ণগঞ্জ সদরে এবং নাটোরের জেলা প্রশাসক ও জেলা মেজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও বিলুপ্ত ডেসায় দীর্ঘ দিন প্রথম শ্রেণির মেজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিলের (বিইপিআরসি) চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছি।

এর আগে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনাধীন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ব্যুরোর পরিচালক ও বাংলাদেশ পাবলিক অ‌্যাডমিনিস্ট্রেশন ট্রেনিং সেন্টারের মেম্বার অব ডাইরেক্টিং স্টাফের দায়িত্ব পালন করেছি। আমি কখনো নিজেকে নারী হিসেবে দেখতাম না। অন্যান্যদের মতো আমিও সব সময় নিজেকে একজন কর্মকর্তা হিসেবে মনে করেছি। সবার আগে কীভাবে কাজটা আদায় করতে হবে, সেই কথাই ভাবতাম। কর্মক্ষেত্রে নারী ও পুরুষের ভেদাভেদ থাকা উচিত নয়। আমাদের সবাইকে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের কর্মদক্ষতা সবখানে দেখাতে হবে।

রাইজিংবিডি : কর্মক্ষেত্রে নারী পুরুষের ভেদাভেদ কেমন?

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : বর্তমানে এটা নেই। আমি ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ পাবলিক অ‌্যাডমিনিস্ট্রেশন ট্রেনিং সেন্টার-সহ সরকারের বিভিন্ন সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে কর্মরত ছিলাম। পরবর্তীসময়ে পাবলিক পলিসি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করি। চাকরিকালীন দেশ-বিদেশে অনেক প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছি। আমি মনে করি আমাদের দৌড় ওপেন। এটাকে কে কতটা কাজে লাগায় সেটাই দেখতে হবে। এখনো কোনো কোনো ক্ষেত্রে নারীরা পিছিয়ে থাকি। এটা অবশ্যই দূর করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

রাইজিংবিডি : কীভাবে নারীরা আরো সামনে এগিয়ে যাবে?

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : বর্তমানে নারীদের পেছনে ফিরে তাকানোর কোনো সুযোগ নেই। আসলে নারী ছাড়া কিছু কল্পনা করা যায়। নারীকে বাদ দিয়ে উন্নয়নও কল্পনা করা যায় না। নারীদেরও সামনে এগিয়ে যেতে হবে, চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। চাকরিকালীন সরকারের বিভিন্ন পদে থেকে বৈচিত্র্যময় কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। কর্মজীবনে সততা, আন্তরিকতা ও দক্ষতার সর্বোচ্চটা দিলেই নারী সামনে আরো এগিয়ে যাবে। কর্মক্ষেত্রে নিজেকে নারী ভাবলে চলবে না একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা মনে করে চ্যালেঞ্জ নেওয়া শিখতে হবে।

রাইজিংবিডি : মূল্যবান সময় দেয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

সাহিন আহমেদ চৌধুরী : আমি রাইজিংবিডি ডটকমের নিউজ নিয়মিত পড়ি। আপনাদের নিউজ খুব ভালো হয়। তাই আমি রাইজিংবিডির আরো সাফল্য কামনা করি। আপনাকেও ধন্যবাদ।

 

ঢাকা/হাসিবুল/সনি