ঢাকা, বুধবার, ২৮ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

জোড়া খুন : সুরভীর দোষ স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৭ ৭:৫৬:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-০৭ ৭:৫৬:০৫ পিএম

রাজধানীর ধানমন্ডিতে গৃহকর্ত্রী আফরোজা বেগম (৬৫) এবং গৃহকর্মী দিতি হত্যার মামলায় মোছা. সুরভী আক্তার নাহিদা দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাঁচ দিনের রিমান্ড চলাকালে দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার সুরভী স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। তাকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. রবিউল আলম। তদন্ত কর্মকর্তা সুরভীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সারাফুজ্জামান আনছারী তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত ৫ অক্টোবর সুরভীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ওই দিন বেলায়েত হোসেন, গাউসুল আযম প্রিন্স, নুরুজ্জামান ও আতিকুল হক বাচ্চুরও পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

উল্লেখ্য, গত ১ নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৩টায় ধানমন্ডির ২৮ নম্বর রোডে আফরোজা বেগমের মেয়ে অ‌্যাডভোকেট দিলরুবা সুলতানা রুবির ফ্ল্যাটে নতুন কাজের লোক সুরভীকে নিয়ে আসেন পুরনো কাজের লোক আতিকুল হক বাচ্চু।

আফরোজা বেগম এবং তার মেয়ে দিলরুবা সুলতানা রুবি পাশাপাশি বসবাস করেন। বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ৫টার মধ্যে দিলরুবা ওই কাজের মেয়েকে তার মায়ের ফ্ল্যাটে কাজের জন্য পাঠান। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দিলরুবা তার মাকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এজন্য দিলরুবা তার বাসার কাজের ছেলে রিয়াজকে মায়ের ফ্ল্যাটে পাঠান। রিয়াজ সেখানে গিয়ে কলিং বেল চাপেন এবং ডাকাডাকি করে কোনো শব্দ না পেয়ে দরজা ধাক্কা দিলে তা খোলা দেখতে পান। রিয়াজ আফরোজা বেগমকে ডাইনিং রুমের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে দৌড়ে গিয়ে দিলরুবাকে জানান। দিলরুবা দৌড়ে বাসার ভেতরে প্রবেশ করে দেখতে পান যে, ডাইনিং রুমের মেঝেতে আফরোজা বেগম পড়ে আছেন এবং পাশের গেস্টরুমে পুরনো কাজের মেয়ে দিতির রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে আছে।

জোড়া খুনের ঘটনায় নিহত আফরোজা বেগমের মেয়ে অ্যাডভোকেট দিলরুবা সুলতানা রুবি ৩ নভেম্বর ধানমন্ডি থানায় মামলা দায়ের করেন।


ঢাকা/মামুন খান/রফিক

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন