ঢাকা, রবিবার, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩১ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

চিকিৎসকদের দায়িত্ব পালনে ভয় কেন, পেশাজীবী নেতার প্রশ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৪:৩৬:০৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০১ ৪:৩৬:০৭ পিএম

বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে চিকিৎসকদের দায়িত্ব পালনে অনীহা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আওয়ামীপন্থী পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকা শিশু হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু। পারসোনাল প্রটেকশন ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) দেওয়া পরেও চিকিৎসকদের কেন এত ভয়, এমন প্রশ্ন রাখেন তিনি।

বুধবার তার ফেসবুক পোস্টে তিনি এ প্রশ্ন উপস্থাপন করেন। পরে তিনি রাইজিংবিডির সঙ্গে এ বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেন।

অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সমসাময়িক কালের সবচেয়ে আতঙ্কের নাম করোনাভাইরাস।  করোনাভাইরাস সংক্রমণের সন্দেহজনক মৃতদেহ হোক আর ভাইরাস সংক্রমিত মৃতদেহ হোক, একইভাবে দাফন হচ্ছে দেখে অনেক কষ্ট লাগে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মৃতদেহটি স্বজন/প্রিয়জন এর লোকচক্ষুর অন্তরালে কোনমতে দাফন হচ্ছে। ব্যক্তির পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ ছিলো, তাও দাফনের দু'দিন পর তখন মনে অনেক কষ্ট হয়, কেন দাফনের আগে করোনার ফলাফল দেওয়া হলো না, যাতে করে স্বজন/ প্রিয়জনের দাফন কাজে অংশগ্রহণ বা শেষ দেখার সুযোগ হলো না। অপরদিকে হাঁচি, কাশি বা জ্বর হলেই সরকারের ডেসিগনেটেড হাসপাতালও রোগী ভর্তি বা টেস্ট না করে ফেরত দিচ্ছে, এতে করে করোনা আক্রান্ত হোক আর না হোক চিকিৎসা অবহেলায় লোকটি মারা যাচ্ছে। চিকিৎসকের অবহেলায় মারা যাচ্ছে কি না, সরকারের মনিটরিং এখনই জোরদার করতে হবে।’

তিনি লেখেন, ‘প্রয়োজনে হাসপাতালে ২৪ ঘন্টা ডাক্তার, নার্স, সেবা নিশ্চিতকরণসহ মনিটরিংয়ে ব্যবস্থা করতে হবে।যেখানে ইউকে এবং ইউএসেতে ডাক্তার, নার্সদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতকরনের জন্য ২৪ ঘন্টা ডিউটির আওতায় আনা হয়েছে। জানিনা পিপএ দেবার পরও কেন আমাদের ডাক্তারদের এতো ভয়, যেখানে আমেরিকাতে ৭৮,০০০ অবসরপ্রাপ্ত ডাক্তার স্বেচ্ছায় ঘোষণা দিয়েছে করোনা চিকিৎসা দেবার জন্য, সেখানে আমরা কোথায়?’

সুপ্রিম কোর্টের এ আইনজীবী রাইজিংবিডিকে বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা যুদ্ধ করে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল, তারাই আজ জাতির শ্রেষ্ট সন্তান মুক্তিযোদ্ধা। আমি মনে করি, বর্তমান করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগ মুহূর্তে যে সকল চিকিৎসক সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করবেন, জাতি তাদেরকে জাতীয় বীর হিসেবে স্বীকৃতি দিবে।


ঢাকা/মেহেদী/সাজেদ