ঢাকা, শনিবার, ৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ আগস্ট ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মস্তিষ্ককে তীক্ষ্ণ করার সবচেয়ে সহজ উপায়

সাখাওয়াত মিশু : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৩-১১ ৭:৫০:১২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৩-১১ ৭:৫০:১২ পিএম
মস্তিষ্ককে তীক্ষ্ণ করার সবচেয়ে সহজ উপায়
প্রতীকী ছবি
Walton E-plaza

সাখাওয়াত মিশু : যে অভ্যাসগুলো মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণ করতে বা মনে রাখার ক্ষমতা বাড়াতে ভালো কাজ করে সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, সুডোকুর চর্চা। এটি নিঃসন্দেহে মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণ করার ভালো একটি পদ্ধতি। কিন্তু আপনি যদি সত্যিই মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণ করতে চান তাহলে আপনি আরো সহজ একটি কৌশল গ্রহণ করতে পারেন।

কানাডার ওয়াটারলু বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণ করার সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিটি খুঁজে বের করেছেন। তাদের গবেষণাটি সম্প্রতি ‘মেমোরি’ নামের একটি জার্নালে প্রকাশ পেয়েছে। যাতে বলা হয়েছে, জোরে পড়ার অভ্যাস আপনার মস্তিষ্কের ধারণ ক্ষমতাকে ১৫ গুণ বাড়িয়ে দিবে।

গবেষণায় বিজ্ঞানীরা ৯৫ জন অংশগ্রহণকারীর ওপর চারটি পদ্ধতি নিয়ে পরীক্ষা চালিয়েছেন। সেগুলো হলো: নীরবে পড়া, শোনা, জোরে পড়া, নিজের পড়া রেকর্ড করে শোনা। ফলাফলে দেখা যায়, যারা জোরে পড়েন তাদের মস্তিষ্কের ধারণ ক্ষমতা ৫ থেকে ১৫ গুণ পর্যন্ত বেড়েছে।

‘আপনি যে তথ্যটি মনে রাখতে চান তা জোরে বলুন এবং এ তথ্যটি আপনার মনে থাকার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। হ্যাঁ, এটাই সহজ পথ।’- বলেছেন মনোবিজ্ঞানী এবং গবেষণার সমন্বয়ক কলিন ম্যাকলিওড।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, কথা বলার এবং শ্রবণের প্রভাবটিই আপনার মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণ করার মূল চাবিকাঠি। আর জোরে পড়ার অভ্যাস যেকোনো তথ্যকে আপনার স্মৃতিতে দীর্ঘ সময় ধরে সংরক্ষণ করতে সহায়তা করবে।

মস্তিষ্ক তীক্ষ্ণতা পাঁচ গুণ বাড়ার ব্যাপারটি আপনার কাছে প্রথমে বড় কিছু মনে নাও হতে পারে। তবে সুডুকোর তুলনায় শুধু মুখ খোলার এবং বলার বিষয়টি অনেকটাই সহজ।

তাই পরবর্তী সময় আপনি যখন কোনো বড় পরীক্ষা বা অফিসে কোনো গুরুত্বপূর্ণ প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করতে যাবেন তখন কিছুটা সময় ব্যয় করে ওই বিষয়টি জোরে পড়ে নিবেন। বিশ্বাস করুন, এটি আপনার দক্ষতাকে আরো বাড়িয়ে দিবে।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ মার্চ ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge