ঢাকা, রবিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন করণীয়

নিউজ ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৭ ২:৪৬:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-১৭ ৪:০০:৪১ পিএম

চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা সাত হাজার ১৬৪ জন দাঁড়িয়েছে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ৮২ হাজার ৫৫০ জন। বিশ্বের ১৬২টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই মহামারি ভাইরাস। এই ভাইরাস ঠেকাতে অনেক দেশ অনেক পদক্ষেপ নিচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন।

কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন যা করতে পারেন—

 পরিবার ও বন্ধু-বান্ধবের সাথে ফোন/ মোবাইল/ ইন্টারনেটের সাহায্যে যোগাযোগ রাখতে পারেন। এতে সময় ভালো কাটবে।

 শিশুকে তার মতো করে বোঝান। তাদেরকে পর্যাপ্ত খেলার সামগ্রী দিন এবং খেলনাগুলো খেলার পরে জীবাণুমুক্ত করুন।

 দৈনন্দিন রুটিন, যেমন- খাওয়া, হালকা ব্যায়াম ইত্যাদি মেনে চলুন।

 সম্ভব হলে বাসা থেকে অফিসের কাজ করতে থাকুন।

 বইপড়া, গান শোনা, সিনেমা দেখা ইত্যাদি বিনোদনমূলক কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করুন বা ব্যস্ত রাখুন।

পরিবারের সদস্যদের জন্য নির্দেশাবলী—

 বর্তমানে সুস্থ আছেন এবং যার দীর্ঘমেয়াদী রোগ (যেমন:  ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, ক্যান্সার, অ্যাজমা প্রভৃতি) নেই, এমন একজন নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে পরিচর্যাকারী হিসেবে নিয়োজিত হতে পারেন। তিনি ওই ঘরে বা পাশের ঘরে থাকবে, অবস্থান বদল করবে না।

 কোয়ারেন্টাইনে আছেন এমন ব্যক্তির সাথে কোনো অতিথিকে দেখা করতে দেওয়া যাবে না।

 কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংস্পর্শে এলে বা তার ঘরে ঢুকলে, খাবার তৈরীর আগে ও পরে, খাবার আগে, টয়লেট ব্যবহারের পরে, গ্লাভস পরার আগে ও খোলার পরে যখনই হাত দেখে নোংরা মনে হয় তখনই পরিচর্যাকারী দুই হাত পরিষ্কার করবে।

 খালি হাতে ওই ঘরের কোনো কিছু স্পর্শ করা যাবে না।

 কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির ব্যবহৃত বা তার পরিচর্যায় ব্যবহৃত মাস্ক, গ্লাভস, টিস্যু ইত্যাদি অথবা অন্য আবর্জনা ওই রুমে রাখা ঢাকনাযুক্ত ময়লার পাত্রে রাখতে হবে। এ সকল আবর্জনা উন্মুক্ত স্থানে না ফেলে পুড়িয়ে ফেলতে হবে।

 ঘরের মেঝে, আসবাবপত্রের সব পৃষ্ঠতল, টয়লেট ও বাথরুম প্রতিদিন অন্তত একবার পরিষ্কার করতে হবে। পরিষ্কারের জন্য ১ লিটার পানির মধ্যে ২০ গ্রাম (২ টেবিল চামচ পরিমাণ) ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে দ্রবণ তৈরি করে ও ওই দ্রবণ দিয়ে উক্ত সব স্থান ভালোভাবে মুছে ফেলতে হবে। তৈরিকৃত দ্রবণ সর্বোচ্চ ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে।

 কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিকে নিজের কাপড়, বিছানার চাদর, তোয়ালে ইত্যাদি ব্যবহৃত কাপড় গুঁড়া সাবান/ কাপড় কাচা সাবান ও পানি দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে এবং পরে ভালোভাবে শুকাতে হবে।

 নোংরা কাপড় লন্ড্রি ব্যাগে আলাদা করে রাখতে হবে। মল-মূত্র বা নোংরা লাগা কাপড় ঝাঁকানো যাবে না।

কোনো ব্যক্তির কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ থাকলে তা অমান্য করা এবং তথ্য গোপন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ এবং সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮ এর আওতায় কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবে।

তথ্যসূত্রঃ আইইডিসিআর ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।


ঢাকা/জেনিস