ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

সাধারণ ছুটি শেষে চলাফেরায় যে নিয়ম মেনে চলা উচিত

মুছা মল্লিক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০১ ১:৩৬:৪০ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০১ ১১:০১:১৩ এএম
ডা. সওকত আরা বিথী

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপে স্থবির হয়ে পড়েছে সমগ্র বিশ্ব। বাংলাদেশেও এর সংক্রমণ দিন দিন বাড়ছে। শুরুতে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হলেও ধীরে ধীরে শিথিল করা হয়। এখন সাধারণ ছুটি শেষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে অফিস, সীমিত পরিসরে চলাচল করবে গণপরিবহণ।

করোনার এই ভয়াবহ অবস্থার মাঝেও চলাচল করতে আমাদের কি ধরনের নিয়ম মেনে চলা উচিত এ নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. সওকত আরা বিথী।

* প্রথমেই আমাদের মাঝে সচেতনতা তৈরি করতে হবে। সাধারণ মানুষের সচেতনতাই পারে করোনার সংক্রমণ মাত্রা কমিয়ে আনতে।

* নিজের কর্মক্ষেত্রে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করা যাতে নিজে অন্য কারো সংস্পর্শে না আসি ও অন্য কেউ যাতে নিজের সংস্পর্শে না আসে।

* এন- ৯৫ মাস্ক এবং পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট পর্যাপ্ত পরিমাণে না থাকায় সার্জিক্যাল মাস্ক ব্যবহার করাই শ্রেয়। তবে সার্জিক্যাল মাস্ক একবারের বেশি না পরা। সাথে সাথে সাবান অথবা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে বার বার হাত ধুয়ে ফেলুন। এতে সংক্রমণের হাত থেকে রেহাই পাওয়া সহজ হবে।

* কর্মস্থলে হ্যান্ডশেক এবং কোলাকুলিসহ খুব কাছাকাছি এসে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। যতটা সম্ভব নিজেকে সবার কাছ থেকে দূরে রাখুন।

* হাঁচি কাশির সময় রুমাল বা টিস্যু ব্যবহার করা ও ব্যবহৃত টিস্যু নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলা। এতে সংক্রমণের মাত্রা কমে আসবে। সাথে সাথে যতটা সম্ভব আক্রান্ত এলাকা এড়িয়ে চলা। সম্ভব না হলে আক্রান্ত এলাকায় চলাচলে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করা।

* পরিবহনে যাতায়াত করার ক্ষেত্রে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত হয়ে ভ্রমণ করা। অন্যথায় পরিহার করা।

* রাস্তার পাশে বিক্রি হচ্ছে এমন কোনো জিনিসপত্র না কেনা। কারণ এগুলো থেকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই যতটা সম্ভব রাস্তায় থেকে জিনিস পত্র কেনা পরিহার করতে হবে

* খাবারের রেস্তোরাঁ, ক্লাব, পার্ক, পার্টি এড়িয়ে চলতে হবে।

* মাস্ক, গ্লাভস, চশমা পরে বাজার করতে যান। মহিলারা মাথায় ওড়না বা স্কার্ফ ব্যবহার করতে পারেন।

* জুতা বা স্যান্ডেল অবশ্যই দরজার বাইরে খুলে বাসায় ঢুকতে হবে।

* বাসায় এসে বাজারের ব্যাগ বা প্যাকেটগুলো অন্য কাউকে ধরতে দেবেন না। যিনি আনবেন তিনিই সাবধানে সব কিছু সংরক্ষণ করবেন।

* হাতের নখ ছোট রাখতে হবে কারণ বেশিরভাগ জীবাণু নখের থেকেই বিস্তার লাভ করে। যেসব ভাইরাস নখের ভেতর থাকে, সেগুলো সাবানে যায় না। সুতরাং নখ কেটে ফেলা বুদ্ধিমানের কাজ।

* মানিব্যাগ, চশমা, মোবাইল বাইরে থেকে এসে অ্যান্টিসেপটিক সল্যুশন বা স্যানিটাইজার দিয়ে মুছে ফেলতে হবে।

* এছাড়া নিজেকে সুস্থ রাখতে প্রতিদিন অন্তত আধা ঘণ্টা ব্যায়াম করুন। মনে রাখতে হবে আপনার সচেতনতাই পারে আপনাকে, আপনার পরিবারকে এবং দেশের মানুষকে রক্ষা করতে।

 

ঢাকা/মারুফ