ঢাকা, শনিবার, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রোমাঞ্চকর জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ওয়ালটন

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-১২-৩০ ২:৪৪:৫৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১২-৩০ ৫:১৭:২৩ পিএম
ওয়ালটন দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা। ছবি: রাইজিংবিডি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শেষ ওভারে জয়ের জন্য ওয়ালটনের দরকার ২০ রান, হাতে ৩ উইকেট। বোলিংয়ে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ফয়সাল আহমেদ। স্ট্রাইকে ওয়ালটনের সাইফুল ইসলাম।

ফয়সালের প্রথম বলেই সাইফুল হাঁকালেন বিশাল ছক্কা। পরের বলে রান নেই। সাইফুল তৃতীয় বলে সিঙ্গেল নিয়ে স্ট্রাইক দিলেন নুরুলকে। ৩ বলে চাই ১৩ রান। চতুর্থ বলটা লং অনের ওপর দিয়ে সীমানার বাইরে আছড়ে ফেললেন নুরুল, ছক্কা।  ফয়সাল পরের বলটা দিলেন ওয়াইড। পঞ্চম বলে নুরুল মারলেন চার। ১ বলে চাই ২। ফয়সাল দিলেন ওয়াইড, তবে রান আউটে কাটা পড়েন সাইফুল।  নুরুলকে সঙ্গ দিতে ব্যাটিংয়ে আসেন ফিরোজ আলম।  ফয়সালের পরের বলটাও ওয়াইড। তাতে এক বল বাকি থাকতেই ওয়ালটন পেল ২ উইকেটের রোমাঞ্চকর এক জয়।  ফিরোজ আলমের সাথে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন নুরুল। 

ওয়ালটন প্রথম দুই ম্যাচ জিতে মার্সেল সপ্তম টি-টোয়েন্টি করপোরেট ক্রিকেট টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল আগেই। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে মার্কেন্টাইল ব্যাংককে হারিয়ে জয়ের 'হ্যাটট্রিক' করল টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। পাশাপাশি 'ডি' গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়েই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল উদয় হাকিমের নেতৃত্বাধীন ওয়ালটন দল।

এই গ্রুপ থেকে ওয়ালটনের পাশাপাশি মার্কেন্টাইল ব্যাংকেরও শেষ আটের টিকিট নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। শনিবার ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের এক নম্বর মাঠে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল।
 


টস জিতে আগে ব্যাট করতে নামা মার্কেন্টাইল ব্যাংককে এক ওভার বাকি থাকতেই ১৫৫ রানে গুটিয়ে দেয় ওয়ালটনের বোলাররা। জবাবে শেষ ওভারে ২০ রান নিয়ে ওয়ালটনের রোমাঞ্চর জয়। আর জয়ের নায়ক নুরুল।

নুরুল নায়ক হয়ে থাকলে পার্শ্বনায়ক তাহলে সাহেল মিয়া। লক্ষ্য তাড়ায় ওয়ালটনকে দারুণ সূচনা এনে দিয়েছিলেন সাহেল। জনি সোমের সঙ্গে সাহেলের ৪৬ রানের উদ্বোধনী জুটিই ওয়ালটনের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। বাকি কাজটা সারেন নুরুল, আব্দুল্লাহ আল মামুনরা।

১৬ বলে ৫টি চারে সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন সাহেল। জনি করেন ১৫ রান। ছয় নম্বরে নেমে ২টি চার ও একটি ছক্কায় ২৩ রানে অপরাজিত ছিলেন নুরুল। আল মামুন ২টি ছক্কা ও একটি চারে করেন ১৯ রান। মার্কেন্টাইল ব্যাংকের মোহাইমেনুল নেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট।

এর আগে ব্যাট হাতেও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের হয়ে সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন ওপেনিংয়ে নামা মোহাইমেনুল। আরেক ওপেনার আকরাম হোসেন করেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৩ রান। তাদের ৩৮ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পরই আর কোনো ব্যাটসম্যান ওয়ালটনের বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেনি।
 


ওয়ালটনের হয়ে নুরুল, জনি ও ওমর ফারুক নেন ২টি করে উইকেট। জনি ৪ ওভারে রান দিয়েছেন ২২, নুরুল ২৭, ফারুক ৪৩। রাহাতুল ও সাহেলের ঝুলিতে জমা পড়ে একটি উইকেট।

অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন নুরুল। তার হাতে ম্যাচসেরার পুরস্কার তুলে দেন ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (পলিসি, এইচআরএম অ্যান্ড এডমিন) ও ওয়ালটন ক্রিকেট দলের ম্যানেজার এস এম জাহিদ হাসান।

এসিমস-এর আয়োজন ও ব্যবস্থাপনায় ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের ৩টি ও শ্যামলী মাঠে এবারের টুর্নামেন্টের খেলাগুলো হচ্ছে। মোট ১৬টি দল ৪টি গ্রুপে ভাগ হয়ে টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছে।

গ্রুপ পর্বে সবাই সবার সঙ্গে একটি করে ম্যাচ খেলবে। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুটি দল যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। এরপর হবে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল। ফাইনাল হবে ২০১৮ সালের ১৯ জানুয়ারি।

এই টুর্নামেন্টের মিডিয়া পার্টনার দেশের অন্যতম জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি ডটকম। আর বেভারেজ পার্টনার নেসলে বাংলাদেশ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩০ ডিসেম্বর ২০১৭/পরাগ/ইয়াসিন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন