ঢাকা, সোমবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মেয়েকে মার্সেল ফ্রিজ দিয়ে আরেকটি ফ্রি পেলেন কুমিল্লার কৃষক

মোহাম্মদ মাসুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৩ ৮:১৩:১৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১১-১১ ৮:০৩:২৩ পিএম
মেয়েকে মার্সেল ফ্রিজ দিয়ে আরেকটি ফ্রি পেলেন কুমিল্লার কৃষক
ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় মার্সেল ব্র্যান্ডের একটি ফ্রিজ কিনে উপহার পাওয়া আরেকটি ফ্রিজ বুঝে নিচ্ছেন ইকবাল হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : ইকবাল হোসেন। থাকেন কুমিল্লার দাউদকান্দি থানার ইলিয়টগঞ্জের বাসরা গ্রামে। কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। সম্প্রতি তার একমাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। নিজের ঘরে কোনো ফ্রিজ না থাকলেও সদ্য বিবাহিত মেয়ের জন্য দেশীয় ব্র্যান্ড মার্সেলের ফ্রিজ কেনেন তিনি। এর পরেই কৃষক ইকবালের জীবনে ঘটে অকল্পনীয় ঘটনা। মেয়েকে মার্সেল ফ্রিজ উপহার দিতে গিয়ে নিজের ঘরের জন্যও মার্সেলের আরেকটি ফ্রিজ উপহার পান তিনি।

গত ২৮ এপ্রিল দাউদকান্দির গৌরীপুর বাজারের নিউ মার্কেটে মার্সেল পণ্যের পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্টার ইলেকট্রনিক্স থেকে ১১ সিএফটির একটি ফ্রিজ কেনেন ইকবাল হোসেন। ফ্রিজটি কিনে বিক্রেতার পরামর্শমতো তিনি তা দেশব্যাপী চলমান মার্সেল ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় রেজিস্ট্রেশন করেন। এর পরপরই ক্যাম্পেইনে ঘোষিত শত শত ফ্রিজ, টেলিভিশন ও এসি ফ্রির অফারে নিজের ঘরের জন্যও পেয়ে যান মার্সেল ব্র্যান্ডেরই ৮ সিএফটির আরেকটি ফ্রিজ ফ্রি। জীবনে প্রথমবার কোনো পুরস্কার পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়েন ইকবাল।

‘অত্যধিক গরমের মধ্যেও মাঠে কাজ করে যখন ঘরে আসতাম, ভাবতাম- ইস! একটু ফ্রিজের ঠান্ডা পানি যদি খেতে পারতাম। কিন্তু ফ্রিজ কেনার সামর্থ্য না থাকায় এতদিন সেই স্বপ্ন পূরণ হয়নি। কৃষিকাজ করে যা আয় হয়, তা সংসার চালাতেই খরচ হয়ে যায়। ফ্রিজ কেনার মতো বাড়তি টাকা হাতে থাকত না। এবার মেয়ের জন্য মার্সেল ফ্রিজ কিনে নিজেও পেয়ে গেলাম আরেকটি ফ্রিজ। সেই সুবাদে আমার এতদিনের স্বপ্নও আজ সত্যি হলো,’ রাইজিংবিডির এই প্রতিবেদকের কাছে এভাবেই অনুভূতি প্রকাশ করলেন ইকবাল হোসেন।

অন্যান্য কোম্পানির ফ্রিজ না কিনে মার্সেল ফ্রিজ কেন কিনলেন? এই প্রশ্নের উত্তরে ইকবাল হোসেন বলেন, আমাদের গ্রামে কারেন্ট (ইলেকট্রিসিটি) এসেছে বছর ছয়েক আগে। কারেন্ট আসার পরপরই অনেক পরিবারকেই দেখেছি মার্সেলের ফ্রিজ কিনতে। তাদের ফ্রিজগুলো এখনো খুব ভালো চলছে। এসব ফ্রিজ দেখলে মনে হয় না যে, পাঁচ-ছয় বছর ধরে ব্যবহার হচ্ছে। এখনো নতুনের মতো লাগে। তাই আমিও মেয়ের শ্বশুর বাড়ির জন্য মার্সেলে ফ্রিজ কিনেছি।



তিনি বলেন, স্টার ইলেকট্রনিক্স থেকে আমার পরিচিত অনেকেই মার্সেলের ফ্রিজ কিনেছে। তাই আমিও ফ্রিজ কিনতে সেখানে যাই। ফ্রিজ কেনার আগে শোরুমের ম্যানেজারকে বলেছি,  ভাই, আমার নিজের ঘরে কোনো ফ্রিজ নাই, এসেছি মেয়ের জন্য একটি ফ্রিজ কিনতে। ভালো মানের একটা ফ্রিজ দেন। যাতে সহজে নষ্ট না হয়। নষ্ট হলে আবার কেনার সামর্থ্য আমার নাই। এ কথা শুনে ম্যানেজার নিজে ১১ সিএফটির একটি ফ্রিজ পছন্দ করে  দেন। সেই সঙ্গে আমার মোবাইল ফোন থেকে ম্যাসেজ পাঠিয়ে নাকি তা রেজিস্ট্রেশনও করেছেন। যার সুবাদে আমার ঘরের জন্য মার্সেলের ৮ সিএফটির আরেকটি ফ্রিজ উপহার পেয়েছি। এজন্য আমি মার্সেল কোম্পানির কাছে কৃতজ্ঞ।

মার্সেল সূত্রমতে, বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় আনতে গত ১ এপ্রিল থেকে দেশব্যাপী আবারও ডিজিটাল ক্যাম্পেইন শুরু করেছে মার্সেল। ক্যাম্পেইনের আওতায় একজন ক্রেতা প্রতিবার মার্সেলের ফ্রিজ, টিভি কিংবা এসি কিনে তা রেজিস্ট্রেশন করলেই পেতে পারেন আমেরিকা, রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ কিংবা মার্সেলেরই ফ্রিজ, টিভি ও এসি সম্পূর্ণ ফ্রি। তবে এসব সুযোগ না পেলেও ক্রেতার জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ ১ হাজার টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত নগদ ছাড়।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় গ্রীষ্মকালের জন্য মার্সেল ফ্রিজ ও এসিতে এবং বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে মার্সেল টিভিতে এসব সুবিধা পাওয়া যাবে আগামী ৩০ জুন, ২০১৮ পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩ মে ২০১৮/পলাশ/রফিক

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন