ঢাকা, শনিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩০ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

হকারমুক্ত গুলিস্তানের ফুটপাত

আসাদ আল মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১৫ ৩:১৫:০২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১৫ ৪:২০:২০ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক :  রাজধানীর গুলিস্তান ও আশপাশ এলাকার ফুটপাতে রোববার কোনো হকার বসতে দেয়নি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

হকাররা রোববার সকালে এলেও বিপুলসংখ্যক পুলিশ ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ম্যাজিস্ট্রেট দেখে পণ্য নিয়ে রাস্তায় বসেননি। ফুটপাতে থাকা তাদের জিনিসপত্র সরিয়ে নেওয়ার জন্য দুপুর ১২টা পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়। এ সময়ের মধ্যে হকাররা তাদের জিনিসপত্র সরিয়ে নিয়ে যান।

রোববার দুপুর দেড়টা পর্যন্ত দেখা যায়, গুলিস্তান এলাকায় হকারদের জটলা। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে মোতায়েন রয়েছে বিপুলসংখ্যক পুলিশ।

এ বিষয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘গুলিস্তানের রাস্তায় ও ফুটপাতে কোনো হকার বসতে দেওয়া হবে না। মেয়রের এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হচ্ছে। অফিস টাইমের পর প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে হকাররা গুলিস্তান এলাকায় বসতে পারবেন।’ 

হকারদের পুনর্বাসন নিয়ে গত ১১ জানুয়ারি নগর ভবনে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় ডিএসসিসির মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘হকাররা কেবল সাপ্তাহিক ছুটির দিন এবং কর্মঘণ্টা শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার পর ফুটপাতে পণ্য নিয়ে বসতে পারবেন।’

তবে হকারদের অন্য একটি সংগঠন হকার্স ইউনিয়ন শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে এই পরিকল্পনা না মানার ঘোষণা দেয়। সেই সমাবেশে হকার নেতারা বলেন, ‘আগের মতোই রোববার সকালে পণ্য নিয়ে আসবেন হকাররা। বাধা দেয়া হলে নগর ভবনের সামনে অবস্থান নেয়া হবে।’

অল্প কিছু হকার রোববার সকালে গুলিস্তান, জিরো পয়েন্ট, বঙ্গবন্ধু এভিনিউ, গোলাপশাহ মাজার ও আন্ডারপাসের আশপাশে পণ্য নিয়ে আসেন। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন রয়েছে দেখে তারা আর বসেননি। 

গুলিস্তান গোলাপশাহ মাজারের বিপরীতে ফুলপ্যান্ট নিয়ে এসেছিলেন হকার আব্দুল হক। কিন্তু অবস্থা বেগতিক দেখে তিনি আর বসেননি। তিনি বলেন, ‘নেতা কইছিলেন দোকান নিয়া বসতে। কিন্তু নেতারই তো খবর নাই। নেতা মোবাইল ফোন রিসিভ করেননি। পুলিশ ধরে নিয়ে গেলে কে ছাড়াবে। তাই ঝুঁকি নিয়ে দোকান খুলিনি।’

এ ব্যাপারে ডিএসসিসির প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, ‘হকারদের পুনর্বাসনের বিষয় নিয়ে গত ১১ জানুয়ারি নগর ভবনের সভাকক্ষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও হকার নেতাদের সঙ্গে  বৈঠক করেন মেয়র। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় ১৫ জানুয়ারি থেকে কর্মদিবসে গুলিস্তান, মতিঝিল ও এর আশপাশ এলাকার ফুটপাতে দিনের বেলা কোনো হকার বসতে পারবেন না। তবে অফিস টাইমের পর সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিট থেকে তারা গুলিস্তান-মতিঝিল এলাকায় বসতে পারবেন।’

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৫ জানুয়ারি ২০১৭/আসাদ/হাসান/শাহনেওয়াজ/এএন