ঢাকা, বুধবার, ২৮ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

চাকরি চান চাঁদের কণা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৮ ৪:৫০:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-০৮ ৪:৫০:০৫ পিএম

নয় মাস বয়সে পোলিও আক্রান্ত হওয়ায় দুটি পা অচল হয়ে যায়। বাবা-মায়ের চেষ্টায় দুই হাতে ভর করেই তিনি প্রয়োজনীয় কাজ চালিয়ে নেন।  কিন্তু থেমে থাকেনি জীবনযুদ্ধ।চাঁদের কণার।

অন্যের বোঝা নয়, নিজের কর্মগুণেই প্রতিষ্ঠিত হতে চেয়েছেন শিশু বয়স থেকেই।  তাই মায়ের কোল ছেড়ে যখন নিজেকে বুঝতে শিখেছেন, তখন থেকেই পড়ালেখায় মনোযোগী হন তিনি।

প্রতিবন্ধী মানেই ভিক্ষাবৃত্তি নয়, এই বিশ্বাস মনের ভেতর আত্মবিশ্বাস জাগায় তার।  পা অচল হলেও মা ছিলেন তার সচলের সঙ্গী।  কিন্তু সেই মাকেও তিনি হারিয়ে ফেলেন অকালে।  চাঁদের কণা যখন অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী, তখন তার মা মারা যান।  জীবনে নেমে আসে অন্ধকার।  কিন্তু সেই অন্ধকার মোকাবিলা করেই তিনি উচ্চশিক্ষা অর্জন করেন। তার বিশ্বাস কর্ম করেই তিনি বাকি জীবন কাটিয়ে দেবেন। সমাজের উন্নয়নে রাখবেন ভূমিকা।  এক্ষেত্রে তার প্রয়োজন রাষ্ট্রের সহযোগিতা। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা চান।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশনরত চাঁদের কণার সঙ্গে কথা হয়।  হুইল চেয়ারে বসে ছিলেন অসহায় দৃষ্টিতে।  সরকারি চাকরির বয়স এ বছরই শেষ হতে যাচ্ছে।  সংসারে বাবা ও ছোট দুই ভাইকে নিয়ে অতি কষ্টে জীবনযাপন করছেন। তার দ্রুত একটি চাকরির প্রয়োজন। এক্ষেত্রে তিনি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

কণা বলেন, ‘আমি বিপদে আছি, মা (প্রধানমন্ত্রী) আমাকে রক্ষা করতে পারেন। শরীর দিন দিন ভারী হয়ে যাচ্ছে। তাই বেসরকারি ভালো কোনো চাকরির আশা নেই। আমার একমাত্র ভরসা সরকারি চাকরির। বাবা অসুস্থ, তার ট্রিটমেন্টও হচ্ছে না। তাই চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে দিনযাপন করছি।  বাঁচার আশা তো সব মানুষেরই থাকে।  আমিও সুন্দরভাবে বাঁচতে চাই।’

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমারও তো ইচ্ছে হয় সংসার করতে।  এসবই সম্ভব যদি প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পাই।’

চাঁদের কনা সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর থানার বিয়াড়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের মেয়ে।  রাজশাহীর মাদারবক্স গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ থেকে স্নাতক (সম্মান) পাশ করেছেন। ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে প্রথম শ্রেণিতে স্নাতকোত্তর করেছেন ২০১৩ সালে।


ঢাকা/মামুন খান/মাহি/সাইফ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন