ঢাকা, বুধবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

একনেক সভায় উঠছে ছয় প্রকল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১০ ১২:১৯:০২ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১০ ১২:১৯:০২ এএম

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদনের জন্য ছয়টি প্রকল্প উপস্থাপন করা হবে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৫৭১ কোটি টাকা।

মঙ্গলবার একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনার সভাপতিত্বে এ সভা হবে।

পরিকল্পনা বিভাগের সচিব নূরুল আমিন বলেছেন, সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে এসব প্রকল্প চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে। অনুমোদনের পর সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানিয়েছে, সরকার দেশের সড়ক অবকাঠামো উন্নয়নে বেশি জোর দিচ্ছে। এজন্য ছোট-বড় সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প নেয়া হচ্ছে। একনেকে প্রস্তাবিত ছয়টি প্রকল্পের মধ্যে চারটিই সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন-সংক্রান্ত।

সড়কের এ চারটি প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৩৫১ কোটি ৭১ লাখ টাকা। এর বাইরে পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সারি কমপ্লেক্স নির্মাণে আবারও মেয়াদ  ব্যয় বাড়ানো হচ্ছে। ঢাকা, মাদারীপুর ও রংপুর জেলার তিনটি কলেজের অবকাঠামো উন্নয়নের একটি প্রকল্প ও একনেকে উপস্থাপন করা হবে।

সড়কের ৪ প্রকল্প: সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের মধ্যে কক্সবাজার জেলার রামু-ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়ক (এন-১০৯ এবং ১১৩) প্রশস্ত করতে ২৬৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা ব্যয় হবে। কক্সবাজার জেলার জাতীয় মহাসড়কের (এন-১০৯) রামু পুরাতন অংশ (রামু হাসপাতাল-খালেকুজ্জামান চত্বর) এবংজাতীয় মহাসড়কের (এন-১১৩) রামু-ফতেখাঁরকুল-মরিচ্যা জাতীয় মহাসড়কের ১৬.৭২৬ কিলোমিটার অংশ প্রশস্ত করা হবে। এতে ওই অঞ্চলে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত ও নিরাপদ হবে।

ঢাকার কেরাণীগঞ্জ থেকে মুন্সীগঞ্জের হাসাড়া পর্যন্ত জেলা মহাসড়ক (জেড-৮২০৩) যথাযথ মানে উন্নীত ও প্রশস্ত করা হবে। এ প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৪০৯ কোটি টাকা। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর চলতি বছর থেকে ২০২২ সালের ডিসেম্বর নাগাদ এটি বাস্তবায়ন করবে।

ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-পাকশী-দাশুরিয়া জাতীয় মহাসড়কের (এন-৭০৪) কুষ্টিয়া শহর অংশ চার লেনে উন্নীত করাসহ অবশিষ্ট অংশ যথাযথ মানে উন্নীত করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। কুষ্টিয়া সদর, মিরপুর ও ভেড়ামারা উপজেলার এ সড়ক চলতি বছর থেকে ২০২২ সালের জুন নাগাদ বাস্তবায়ন করতে চায় সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর। এতে ব্যয় হবে ৫৭৪ কোটি টাকা।

এছাড়া, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী-কাশিপুর-ফুলবাড়ী-কুলাঘাট-লালমনিরহাট জেলা মহাসড়ক উন্নয়ন করবে। একনেকে অনুমোদন পেলে প্রকল্পটি চলতি বছর থেকে ২০২১ সালে জুনের মধ্যে শেষ হবে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৯ কোটি ৩৫ লাখ টাকা।

এছাড়া,পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সারি কমপ্লেক্স নির্মাণ (৩য় সংশোধিত) প্রস্তাব পাঠিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ২০০৭ সালে জুলাইয়ে নেয়া প্রকল্পের কোনো অগ্রগতি হয়নি। এবার ব্যয় বাড়িয়ে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে মোট প্রকল্প ব্যয় দাঁড়াবে ৭৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। এ প্রকল্পটির মূল ব্যয় ছিল ২৯ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

এদিকে, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ঢাকা, মাদারীপুর ও রংপুর জেলার তিনটি কলেজের অবকাঠামো উন্নয়ন করতে চায়। এজন্য ৮৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। প্রকল্প অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০২২ সালের জুনের মধ্যে তা বাস্তবায়ন করা হবে।

 

ঢাকা/হাসিবুল/রফিক/নাসিম