ঢাকা, বুধবার, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০১ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

জনস্রোত এসে মিশেছে অমর একুশে গ্রন্থমেলায়

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২১ ৩:৩০:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২১ ৩:৩০:১৬ পিএম
ফাইল ফটো

প্রতি বছরের মতো এবারও অমর একুশে ফেব্রুয়ারি এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে জেগে উঠেছে মানুষ।

রাজধানীর সব সড়কে জনস্রোত এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এলাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারমুখী। অনেকে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ছুটছেন বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বইমেলা প্রাঙ্গণে।

অনেকেই আবার শহীদ মিনার, টিএসসি, দোয়েল চত্বর, পলাশী এলাকায় কিছু সময় নিজেদের পরিচিতজনের সঙ্গে পার করছেন, আড্ডা দিচ্ছেন। তবে পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়জুড়ে ও বইমেলা প্রাঙ্গণে দর্শণার্থীদের ভিড় চোখে পড়ার মত।

এদিন প্রথম প্রহর থেকেই মানুষের ঢল নামে শহীদ মিনারে। শহীদ মিনারের বেদিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে হাজার হাজার মানুষ। রাতভর শহীদ মিনারে চলে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ। রাত ভোর হতেই অন্যরকম এক দৃশ্য। চারদিক থেকে স্রোতের মতো মানুষ আসতে থাকে শহীদ মিনারে।

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ অথবা ‘মোদের গরব মোদের আশা/আমরি বাংলা ভাষা’ গাইতে গাইতে দলবেধে আসতে থাকে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠন, বিশিষ্ট ব্যক্তি থেকে শুরু করে মুটে-মজুর পর্যন্ত।

তবে প্রভাতফেরী শেষ করে প্রায় সবাই ছুটে আসছে বাংলা একাডেমির অমর একুশে গ্রন্থমেলায়। বাংলা একাডেমি, সোহরাওয়ার্দি থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পর্যন্ত রাস্তা একাকার মানুষের পদচারণায়।

শুক্রবার বিশেষ এই দিনটিতে বইমেলা শুরু হয়েছে সকাল ৮টা থেকে। চলবে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। নির্ধারিত সময়ের কিছু আগেই খোলা হয় মেলার প্রবেশ দ্বার। তখন থেকেই শত শত বইপ্রেমী মেলায় আসতে শুরু করে। একুশের শোক আর শ্রদ্ধায় প্রায় সবাই পরেছে আজ সাদাকালো পোশাক। একুশের দিনে মেলায় আগতদের মার্জিত পরিপাটি পোশাকে স্পষ্ট একুশের ছাপ।

আজ মেলায় কেবল ঘুরতে আসা নয়। অনেকেই প্রিয় লেখকের প্রিয় বইটি কিনে উপহার দিচ্ছেন প্রিয়জনকে। মোড়কের নিচে সাদা কাগজে লিখে দিচ্ছেন একুশের প্রিয় পঙতি।

যাত্রাবাড়ী থেকে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আসা চাকরিজীবী আবদুল হক বলেন, ‘এবার আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের দিনটি ছুটির দিন হওয়াতে পরিবার নিয়ে ঘুরতে এসেছি। শহীদ মিনারে গিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এখন বইমেলায় এলাম।’

ঢাকার মিরপুর থেকে এসেছেন তাহমিনা তানিয়া। একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পড়েন তিনি। পরেছেন কালো পাড়ের সাদা শাড়ি। শহীদ মিনারে বন্ধুদের সাথে ফুল দিয়ে সরাসরি মেলায় ঢুকেছেন। কিনেছেন প্রিয় লেখকের পছন্দের কিছু বই।

তানিয়ার মতো শত শত তরুণ-তরুণীর ভিড়ে মেলা প্রাঙ্গণ যেমন মিশে গেছে শহীদ মিনারে গিয়ে। তেমনি শাহবাগ, টিএসসির জনস্রোতে একাকার সোহরাওয়ার্দী, দোয়েল চত্বরসহ পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা। এ এক অন‌্য রকম মিলন মেলা।


ঢাকা/ইয়ামিন/মামুন খান/সনি