ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ভেঙে যাচ্ছে যুবলীগের মহানগর কমিটি!

এসকে রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-১৯ ৮:০৭:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-২০ ১০:০১:১১ এএম

অব্যাহত অভিযোগ আর সামালোচনার মুখে থাকা যুবলীগের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের কমিটি ভেঙে দেয়া হচ্ছে।

চার বছর আগে এই কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে, নতুন কমিটির গঠনের নির্দেশ থাকলেও অদৃশ্য কারণে তা বাস্তবায়ন হয়নি।

সম্প্রতি যুবলীগের মহানগর নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, চাঁদাবজি, ক্যাসিনোর ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ার পর কমিটি ভেঙে দিতে যাচ্ছে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমান্ড। শুক্রবার রাতেই কমিটি ভেঙে যেতে পারে বলে যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৪তম অধিবেশনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রে আটদিনের সরকারি সফরে শুক্রবার বিকেলে নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

যুবলীগ চেয়ারম্যানের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র বলছে, বৃহস্পতিবার রাতে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী আওয়ামী লীগ সভাপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাবেন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যুবলীগ নিয়ে দলীয় প্রধানের দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী পদক্ষেপ নেবেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান। সার্বিক বিতর্ক এড়িয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অভিযুক্ত মহানগরের দুই কমিটি ভেঙে যেতে পারে। এরিমধ‌্যে অবৈধভাবে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছে মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়া। সংগঠনের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলে আলোচনা ছিলো বুধবার সারাদিন। এই গুঞ্জনে সারারাত নেতাকর্মীদের নিয়ে নিজের কাকরাইল অফিসে ছিলেন সম্রাট। এরই মধ্যে বিভিন্ন সূত্র বলছে, যে কোনো সময়ে আসতে পারে কমিটি ভাঙার খবর।

ঠিক একবছর আগে গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ অধিবেশনে যোগ দিতে রাষ্ট্রীয় সফরে যাওয়ার প্রাক্কালে গণভবনে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাতে গেলে মহানগর যুবলীগ নিয়ে নিজের ক্ষোভের কথা জানিয়েছিলের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তখন তিনি বলেছিলেন, ‘আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান। এখানে বেওয়ারিশ লাশ দাফন হয়। এখানে আমি ও শেখ রেহানাও সাহায্য করি। এ প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদা দাবি করা ও চাঁদা না দেওয়ায় ভবন নির্মাণের কাজ বন্ধ করে দেওয়া, এটা আমি সহ্য করবো না।’

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয় প্রায় ছয় বছর আগে। সংগঠনটির তিন বছর মেয়াদি সর্বশেষ কমিটি হয় ২০১২ সালের ১৪ জুলাই। আওয়ামী লীগের ২০১৬ সালের সম্মেলনের আগে অন্যান্য সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটি গঠন করা হলেও যুবলীগের সম্মেলন বা কমিটি হয়নি। মূলত শীর্ষ নেতাদের অনীহার কারণেই সম্মেলন হচ্ছে না বলে অভিযোগ আছে দলের মধ্যে।


ঢাকা/পারভেজ/সাজেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন