ঢাকা, বুধবার, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‘মনটা খারাপ, বাবা থাকলে কেক কাটতাম’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-১০ ১০:৪৯:৪৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-১১ ১২:০৩:৪১ এএম

মনটা খুব খারাপ, বাবা জীবিত থাকলে তার হাত ধরে জন্মদিনের কেক কাটতাম। আজ বাবা নেই, মনও ভালো নেই। আপনারা সবাই বাবার জন্য দোয়া করবেন। মা (বিদিশা) সাথে আছেন, সাহস আছে। মমতাময়ী মা-ই এখন আমার সব। মায়ের মমতায় বেঁচে আছি।

১১ মার্চ (বুধবার) জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছেলে শাহাতা জারাব এরশাদ এরিকের ১৯তম জন্মদিন। জন্মদিন উপলক্ষে রাইজিংবিডির সঙ্গে এভাবেই নিজের কষ্টের কথা তুলে ধরেন এরিক।

তিনি বলেন, ‘জীবিত থাকলে প্রত্যেক বছর আমার জন্মদিন করতেন বাবা। বাবা নেই আজ, তিনি পরপারে। মৃত্যুর আগে বাবা বলেছিলেন, প্রত্যেক বছর যাতে আমার জন্মদিন পালন করে। এবার মায়ের তত্ত্বাবধানে বাবার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে জন্মদিনের আয়োজন করা হয়েছে। আপনারাও আসবেন, সবাই মিলে কালকে জন্মদিন করব।’

প্রতিবছর জাঁকজমকভাবে জন্মদিন পালিত হলেও এই প্রথম পিতা এরশাদকে ছাড়াই জন্মদিনের কেক কাটবে এরিক। তবে, এবার গর্ভধারিণী মা বিদিশা এরশাদ থাকছেন তার সঙ্গে। থাকছেন এরশাদের ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, কর্মকর্তা, আত্মীয়-স্বজন ও দলের নেতাকর্মীরাও।

সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ গত ১৮ বছর ধরে তার জীবদ্দশায় বড় আয়োজনের মধ্য দিয়ে এরিকের জন্মদিন পালন করতেন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকতো। দেশের বরেণ্য ব্যক্তিত্ব ও রাজনীতিকরাও উপস্থিত থাকতেন।

বুধবার এরশাদের বারিধারার প্রেসিডেন্টপার্কে এরিকের জন্মদিনের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। জন্মদিন উপলক্ষে মঙ্গলবার থেকে প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসা আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

সন্ধ্যা ৭টায় ২০ পাউন্ডের কেক কাটার মধ্য দিয়ে পালিত হবে এরিকের জন্মদিনের মূল অনুষ্ঠান। থাকছে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নৈশভোজ। প্রায় ৩০০ অতিথির জন্য নৈশভোজের মেন্যুতে থাকছে পোলাও, রোস্ট, গরুর মাংস, ভেজিটেবল, সালাদ, পানি, কোক। এছাড়া কাবাব, ফুচকা, মুড়ি, চানাচুর, কেক, জিলাপি, চা-কপিও রাখা হবে।

এরিকের মা বিদিশা এরশাদ বলেন, ‘বাবা ছাড়া ছেলেটার মন ভালো নেই। তারপরও আমরা এরিকের জন্মদিন আয়োজন করেছি। আপনারা সবাই আমার ছেলের জন্য দোয়া করবেন, যাতে বড় হয়ে পিতার মতো দেশ ও জাতির সেবা করতে পারেন।’

জন্মদিন উপলক্ষে একদিন আগে মঙ্গলবার সকালে কোরআন খতম, মিলাদ মোনাজাত শেষে এতিমদের বিরিয়ানি খাওয়ানো হয়। এরিকের মা বিদিশা এরশাদ নিজেই এতিমদের জন্য বিরিয়ানি রান্না করেন।

জানা গেছে, এরিকের জন্মদিনে বিরোধী নেতা বেগম রওশন এরশাদ, চাচা জিএম কাদের, বড় ভাই রাহগীর আল মাহে সাদ এরশাদ, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, এমপি, অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের দাওয়াত দেওয়া হয়েছে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবিসহ বিভিন্ন পেশার মানুষদের। এরিকের বন্ধু বান্ধব ও পরিবারের আত্মীয়-স্বজনও থাকবে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে।

তবে, এরিকের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে চাচা জিএম কাদের ও তার পরিবার থাকছেন না বলে জানা গেছে। এমনকি এই অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির কেউ যাতে আসতে না পারেন সেজন্য পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের পক্ষ থেকে নেতাদের বারণ করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরিকের জন্মদিনের দাওয়াত কার্ড বিলিতেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

এমন অভিযোগই করেছেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের একান্ত সচিবের দায়িত্ব পালন করে আসা তারই রেখে যাওয়া ট্রাস্টের বর্তমান চেয়ারম্যান মেজর অব. খালেদ আকতার।

তিনি বলেন, ‘আমরা ট্রাস্টের পক্ষ থেকে ১১ তারিখ প্রেসিডেন্ট পার্কে এরিকের জন্মদিনের অনুষ্ঠান করছি। এতে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, এমপিসহ নেতাকর্মীদের দাওয়াত দেয়া হয়েছে। তবে জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যানের ছেলের জন্মদিন যাতে আমরা করতে না পারি সেজন্য তারই চাচা (জিএম কাদের) নানাভাবে বাধা দিচ্ছে।’


ঢাকা/নঈমুদ্দীন/মাহি