ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বলুন তো কোনটিতে জীবাণু বেশি

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৫ ১০:০২:৪৫ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-১৫ ১০:১৪:২০ এএম
বলুন তো কোনটিতে জীবাণু বেশি
প্রতীকী ছবি
Voice Control HD Smart LED

এস এম গল্প ইকবাল : ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস ও ফুঙ্গি- সবখানে এরা। এদের অনেকগুলো আপনার শরীরে বাস করে এবং এগুলো ছাড়া বেঁচে থাকা সম্ভব নয়। কিন্তু আপনার স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে এমন জীবাণুও রয়েছে। একারণে আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত। শরীরে রোগ সৃষ্টিকারী জীবাণুর প্রবেশ এড়াতে জীবাণুযুক্ত বিষয়গুলো এড়িয়ে যেতে হবে। দুটি জীবাণুযুক্ত জিনিসের মধ্যে তুলনা করলে একটিতে জীবাণু বেশি থাকবে এটাই স্বাভাবিক। এখানে কিছু জীবাণুযুক্ত জিনিসের মধ্যে কোনটিতে জীবাণু বেশি তা উল্লেখ করা হলো।
 


* বেসিনে পড়া খাবার বনাম মেঝেতে পড়া খাবার
এ প্রশ্নের সঠিক উত্তর নির্ভর করছে খাবারটি মেঝের কোন অংশে পড়েছে তার ওপর। লং আইল্যান্ডে অবস্থিত এনওয়াইইউ উইনথ্রোপ হাসপাতালের ইনফেকশাস ডিজিজেস বিভাগের প্রধান ডিয়ানে জনসন বলেন, ‘মেঝের কোন অংশে কোন ধরনের জীবাণু আছে কে জানে। অন্যদিকে রান্নাঘরের বেসিন হলো আর্দ্র পরিবেশ যেখানে অণুজীবেরা সহজে বংশবৃদ্ধি করতে পারে।’ রান্নাঘরের বেসিন হলো ঘরের সবচেয়ে বেশি জীবাণুবহুল স্থানগুলোর একটি। সাধারণ সেন্স বলে, মেঝেতে পড়া খাবার ও বেসিনে পড়া খাবারের মধ্যে বেসিনে পড়া খাবারে জীবাণু বেশি থাকবে।
 


* বারবিকিউ গ্রিল বনাম টয়লেট সিট
টয়লেট সিট থেকে জীবাণুতে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে, কারণ আপনার পায়ের তলার ত্বক অভেদ্য থাকে এবং এটি জীবাণুর বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধক হিসেবে কাজ করে, বলেন এনওয়াইইউ উইনথ্রোপ হাসপাতালের ইনফেকশন কন্ট্রোলের পরিচালক রানেক্কা ডিন। তিনি যোগ করেন, ‘অধিকাংশ জীবাণু টয়লেট সিটের মতো শক্ত পৃষ্ঠের ওপর দীর্ঘসময় বেঁচে থাকতে পারে না।’ একটি ব্রিটিশ গবেষণা অনুসারে, বারবিকিউ গ্রিল ও এর চারপাশে খাবার প্রস্তুতের স্থানে গড় টয়লেট সিটের তুলনায় দ্বিগুণ ব্যাকটেরিয়া থাকতে পারে।
 

* অন্যের সঙ্গে শেয়ার করা ডিওডোরেন্ট বনাম সাবান
গবেষকরা শেয়ার করা সাবানের ওপর ই. কোলাই এবং স্ট্যাফাইলোকক্কাস অরিয়াস ব্যাকটেরিয়া আবিষ্ককার করেছেন। দিনে একাধিকবার সাবান ব্যবহার করতে হয় বলে সাধারণত তা সম্পূর্ণরূপে শুকায় না, যার ফলে এতে ব্যাকটেরিয়া, ইস্ট ও ফুঙ্গি জমতে পারে। কিন্তু তা সত্ত্বেও ডা. জনসন বলছেন যে, পূর্বে ব্যবহৃত সাবান ব্যবহারে ইনফেকশনের ঝুঁকি কম। কিন্তু ডিওডোরেন্ট অন্যের সঙ্গে শেয়ার না করাই ভালো, কারণ অন্যের ব্যবহৃত ডিওডোরেন্ট ব্যবহার করলে স্টিক থেকে শেভিং ক্ষতে ইনফেকশন সৃষ্টিকারী জীবাণু প্রবেশ করতে পারে, বলেন ডা. জনসন। সাবানে জীবাণুর পরিমাণ ডিওডোরেন্টের তুলনায় বেশি থাকতে পারে, কিন্তু শেয়ারকৃত ডিওডোরেন্ট ব্যবহারের ঝুঁকি তুলনামূলক বেশি।
 

* বাথ টাওয়েল বনাম কিচেন টাওয়েল
সাধারণত টাওয়েলে প্রচুর পরিমাণে ব্যাকটেরিয়া থাকে, বিশেষ করে আর্দ্র টাওয়েলে, বলেন ফিজিশিয়ান ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ নেসোসি-ওকেকে ইগবোকোয়ে। তিনি যোগ করেন, ‘কিচেন টাওয়েল বিভিন্ন কাজে ব্যবহারের প্রবণতা বেশি, যার মানে হলো এটি প্যাথোজেনের সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনা বেশি।’ ইউনিভার্সিটি অব আরিজোনার গবেষকরা ৮৯ শতাংশ কিচেন র‍্যাগে কলিফর্ম ব্যাকটেরিয়া এবং এক-চতুর্থাংশে ই. কোলাই পেয়েছেন। কিচেন টাওয়েলে হাত মোছার সময় কাঁচা মাংস থেকে বিপজ্জনক ব্যাকটেরিয়া টাওয়েলে চলে আসতে পারে। বাথ টাওয়েলের তুলনায় কিচেন টাওয়েলে জীবাণু বেশি থাকে, তাই আপনার কিচেন টাওয়েলকে ঘনঘন ধুয়ে শুকিয়ে নিন অথবা ডিসপোজেবল টাওয়েল ব্যবহার করুন।
 

* তেলাপোকা বসা খাবার বনাম মাছি বসা খাবার
আমেরিকার পতঙ্গ নিয়ন্ত্রণ সেবা কোম্পানি অরকিনের একজন বিজ্ঞানী বলেন, ‘তেলাপোকার চেয়ে মাছি দ্বিগুণ নোংরা।’ উভয়েই হলো জীবাণুবাহী পতঙ্গ। কিন্তু রোগ সৃষ্টিকারী প্যাথোজেন ছড়ানোর ক্ষেত্রে মাছি এগিয়ে এবং এরা একস্থান থেকে অন্যস্থানে দ্রুত জীবাণু ছড়াতে পারে। মল, ময়লা-আবর্জনা ও প্রাণীর পঁচা লাশে মাছিরা বংশবিস্তার করে এবং এদের শরীরের লোমে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া লেগে থাকে। এখন সম্ভবত বুঝতে পেরেছেন যে কোন খাবারে জীবাণু বেশি থাকবে, হ্যাঁ আপনার ধারণা সঠিক- মাছি বসা খাবারেই জীবাণু তুলনামূলক বেশি থাকে।
 

* টয়লেট টিস্যু বনাম হ্যান্ড ড্রায়ার
অল্পসংখ্যক লোকে হ্যান্ড এয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করে বলে এটি জীবাণুর উৎস হতে পারে না তা নয়, বলেন ডা. ওকেকে-ইগবোকোয়ে। গবেষণায় দেখা গেছে পেপার টাওয়েল দিয়ে হাত শুকালে জীবাণুর সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনা তুলনামূলক কম, বলেন ডা. জনসন। তিনি যোগ করেন, ‘কোনো ব্যক্তি ভালোভাবে হাত না ধুয়ে হ্যান্ড এয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করলে তার হাতের জীবাণু এ যন্ত্রের চারপাশে লেগে থাকতে পারে, যা পরবর্তীতে অন্য লোকদের মধ্যে ছড়াতে পারে।’ অতএব বোঝা গেল যে, হ্যান্ড টাওয়েল ডিসপেনসারের চেয়ে হ্যান্ড এয়ার ড্রায়ারে জীবাণু বেশি থাকতে পারে।
 

* অন্যের সঙ্গে শেয়ার করা টুথব্রাশ বনাম চিরুনি
ডা. ডিয়ানে বলেন, ‘টুথব্রাশ না শুকালে এটির আর্দ্র পরিবেশে জীবাণু বংশবৃদ্ধি করতে পারে।’ ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান্টা মনিকায় অবস্থিত প্রভিডেন্স সেন্ট জনস হেলথ সেন্টারের ফ্যামিলি মেডিসিন ফিজিশিয়ান জুলিয়া ব্লাঙ্ক বলেন, ‘যদি আপনি অন্যজনের দূষিত টুথব্রাশ ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার মেনিনজাইটিসের মতো প্রাণনাশক ইনফেকশন হতে পারে, বিশেষ করে আপনার ইমিউন সিস্টেম যত দুর্বল হবে আপনার ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা তত বেড়ে যাবে।’ সাধারণত একাধিক জন ব্যবহৃত চিরুনির তুলনায় টুথব্রাশে জীবাণু বেশি থাকে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা টুথব্রাশ ও হেয়ার ব্রাশ কোনটাই শেয়ার করেন না।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৫ জুন ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge