ঢাকা, শুক্রবার, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনাভাইরাস সংক্রমণের নিশ্চিত কিছু উপসর্গ

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-১৫ ৮:২১:০৪ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-১৫ ৪:২২:৩২ পিএম

করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে এখন আলোচিত শব্দ। ভাইরাসটি সুস্থ মানুষের শরীরে প্রবেশের ১৪ থেকে ২৪ দিনের মধ্যে উপসর্গ প্রকাশ পায়। যদিও উপসর্গগুলো সুনির্দিষ্ট নয়। অর্থাৎ রোগটিতে যেসব উপসর্গ দেখা দেয় তা শ্বাসতন্ত্রের অন্যান্য রোগেও প্রকাশ পায়। এর কমন তিনটি উপসর্গ হচ্ছে- জ্বর, কাশি এবং শ্বাসকষ্ট।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জ্বর কমন একটি উপসর্গ। একটি বিশ্লেষণধর্মী প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, এই জ্বর সাধারণত ১০০.৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট অথবা আরো বেশি হতে পারে।

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় সর্বাধিক কমন উপসর্গ কাশি। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্ষেত্রে সাধারণত শুষ্ক কাশি হয়। ভাইরাসটি বেশি ছড়ায় সংক্রমিত লোকের শ্বাসতন্ত্রীয় তরল কণিকা দ্বারা এবং যে মানুষগুলো তাদের কাছাকাছি থাকেন (প্রায় ৬ ফিট) তাদের মধ্যে।

হাসপাতালে ভর্তিকৃত ৩ থেকে ৩১ শতাংশ করোনাভাইরাস রোগী শ্বাসকষ্টে ভুগে থাকেন। এটি করোনাভাইরাস সংক্রমণের তৃতীয় সর্বাধিক কমন উপসর্গ। এই শ্বাসকষ্ট ভয়ানক হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের আরেকটি কমন উপসর্গ হচ্ছে ক্লান্তি।

এএফপি’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণে হালকা থেকে মাঝারি উপসর্গ নিজ থেকেই দূর হয়ে যায়। এই উপসর্গগুলো যদি মারাত্মক সমস্যা তৈরি করে তখন হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত কিছু রোগী মাথাব্যথার অভিযোগ করেছেন এবং কিছু রোগী গলাব্যথায় ভুগেছেন। করোনাভাইরাসের কারণে মাথাব্যথা হচ্ছে- এটা বলা কঠিন। কিন্তু মাথাব্যথার সঙ্গে জ্বর, শুষ্ক কাশি ও শ্বাসকষ্ট থাকলে এবং সম্প্রতি করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে এমন স্থানে ভ্রমণ করলে অবশ্যই সতর্ক হতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ এর কিছু কেস ছিল উপসর্গবিহীন, অর্থাৎ রোগীদের মধ্যে উপসর্গ প্রকাশ পায়নি।

তথ্যসূত্র: দ্য হেলদি


ঢাকা/ফিরোজ