ঢাকা, রবিবার, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৭ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনায় ডায়াবেটিস রোগীর করণীয়

মুজাহিদ বিল্লাহ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৮:০১:৪৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০৪ ৯:২৭:২০ পিএম

কোভিড-১৯ নামের নতুন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে অনেকের মধ্যে বিভ্রান্তি বা ভীতি তৈরি হয়েছে। সেই দিক থেকে পিছিয়ে নেই ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীরাও। কেননা করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস রোগীদের বড় ধরনের ঝুঁকি রয়েছে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে বয়স্ক মানুষজনের সংখ্যা বেশি। আর আমাদের দেশে বয়স্ক ব্যক্তিদের অনেকেরই ডায়াবেটিস আছে। করোনাভাইরাসের এ সময়ে ডায়াবেটিস রোগীদের করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছেন শেরপুর ডায়াবেটিক সমিতি চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. মো. আনিসুর রহমান। কথোপকথনে ছিলেন রাইজিংবিডির প্রদায়ক মুজাহিদ বিল্লাহ।

রাইজিংবিডি: ডায়াবেটিস রোগীদের সকালে হাঁটার নিয়ম আছে অনেকের। কিন্তু বর্তমানের পরিস্থিতিতে এক্ষেত্রে কী করবে?
ডা. মো. আনিসুর রহমান: এ সময়ে ডায়াবেটিস রোগীদের পার্কে বা বাইরে হাঁটতে যাওয়ার দরকার নেই। বাসার এক রুম থেকে অন্য রুমে, বারান্দায় বা করিডরে হাঁটতে পারেন। বাসার সিঁড়ি থাকলে কয়েকবার উঠা-নামা করতে পারেন।

রাইজিংবিডি: খাবার-দাবারে কী কোনো পরিবর্তন হবে নাকি আগের মতো থাকবে?
ডা. মো. আনিসুর রহমান: না, সেরকম কোনো পরিবর্তন হবে না। ডায়াবেটিস মূলত নিয়ম মেনে চলার জন্য একটি রোগ। মানে, নিয়ম মানবেন তো আপনি সুস্থ থাকবেন। আর করোনার এ সময়ে সতর্ক থাকতে বাইরে থেকে আনা কোনো খাবার না খাওয়া ভালো হবে।

রাইজিংবিডি: ডায়েবেটিস রোগীর ওষুধের ব্যাপারে কী কোনো পরিবর্তন হবে? 
ডা. মো. আনিসুর রহমান: বর্তমান পরিস্থিতিতে রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে আনার সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে। প্রয়োজনে ইনসুলিন শুরু করতে হবে। ইনসুলিন দ্রুততম সময়ের মধ্যে শর্করা নিয়ন্ত্রণে সক্ষম। তবে বাসায় থেকে নিয়ম মেনে চললে এবং নিয়মিত ওষুধগুলো চালিয়ে গেলে সমস্যা হবে না আশা করি।

রাইজিংবিডি: কেউ আক্রান্ত হলে সে কি ডায়াবেটিসের ওষুধ খাবে নাকি ছেড়ে দিবে?
ডা. মো. আনিসুর রহমান: করোনাভাইরাস সংক্রমণের সামান্যতম লক্ষণ দেখা দিলে ব্যক্তিগত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে যত দ্রুত সম্ভব। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ ছাড়া যাবে না।

রাইজিংবিডি: আপনাদের এখানে কেউ করোনার উপসর্গ নিয়ে এসেছে?
ডা. মো. আনিসুর রহমান: করোনার উপসর্গ নিয়ে এখন পর্যন্ত কেউ আসেনি। কেউ আসলে তাকে আমরা যথাযথস্থানে চিকিৎসার জন্য পাঠাব। আসলে ১৪ দিন না গেলে শরীরে করোনা আছে কিনা বুঝা যায় না। তবে উপসর্গ দেখা দিলে আলাদা থাকতে হবে। আমাদের এখানে কিট নেই।

রাইজিংবিডি: দেশের বয়স্ক ব্যক্তিদের অনেকেরই ডায়াবেটিস রয়েছে। তাদের ব্যাপারে আপনার বিশেষ কোনো পরামর্শ?
ডা. মো. আনিসুর রহমান: আপনারা সবসময় বাসায় থাকুন। যতটা পারেন সাবধানে থাকার চেষ্টা করুন। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল খাবেন। সচেতন থাকবেন। সাবান-পানি দিয়ে ভালো মতো হাত পরিষ্কার করবেন। পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করবেন। আর ডায়াবেটিসের নিয়ম মেনে চলবেন। 

 

ঢাকা/ফিরোজ