ঢাকা     সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭ ||  ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

করোনা সংক্রমণে যে উপসর্গ সবচেয়ে বেশি অবহেলিত

এস এম গল্প ইকবাল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৫:১৫, ৫ জুলাই ২০২০  
করোনা সংক্রমণে যে উপসর্গ সবচেয়ে বেশি অবহেলিত

যেহেতু দেশের অনেক স্থানে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে, তাই এসময় শরীর কি বলতে চাচ্ছে তা বোঝার চেষ্টা করা গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে সেসব তুচ্ছ উপসর্গ সম্পর্কেও সচেতন থাকতে হবে যা করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হলে দেখা দিতে পারে। যে উপসর্গকে অবহেলা করা হয় তা সত্যিই করোনা সংক্রমণের কারণে প্রকাশ পেলে কোভিড-১৯ টেস্ট করতে দেরি হবে, এর ফলে শরীরে কোনো জটিলতা তৈরি হলে সঠিক সময়ে চিকিৎসা পেতে ব্যর্থও হতে পারেন।

উপসর্গ ছোট হলে যে জটিলতা বড় হবে না এমন কোনো গ্যারান্টি নেই। করোনা সংক্রমণে অনেকের মৃত্যু হয়েছে হঠাৎ করেই। তাদের মধ্যে উপসর্গ দেখা দিলেও তা কোভিড-১৯ এর নয় ভেবে অবহেলা করেছেন। একসময় মারাত্মক জটিলতায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। তাই করোনা সংক্রমণে যত উপসর্গ প্রকাশ পায় সবগুলো সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে।

এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ এর যে উপসর্গকে সবচেয়ে বেশি অবহেলা করা হয়েছে তা হলো ক্লান্তি। ইউনিভার্সিটি অব বাফালোর সংক্রামক রোগ বিভাগের প্রধান থমাস রুশো বলেন, ‘অল্প মাথাব্যথা করছে। গলা একটু খুশখুশ করছে। একটু ক্লান্তিও লাগছে। আপনি হয়তো এটাকে অ্যালার্জি ভাবতে পারেন অথবা মনে করতে পারেন যে হ্যাংওভার হয়েছে।’ কয়েকদিনের মধ্যে গলার অস্বস্তিকর অনুভূতি ও মাথাব্যথা চলে গেলে আপনি চূড়ান্ত ভেবে নিতে পারেন যে যাক বাবা, আমার কোভিড-১৯ হয়নি। কিন্তু এখনো ক্লান্তির অনুভূতি রয়ে গেছে। প্রকৃতপক্ষে, তেতো সত্য হচ্ছে- আপনি সম্ভবত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। তাই এসময় ক্লান্তির অনুভূতিকে মোটেই অবহেলা করা যাবে না।

ডা. রুশো বলেন, ‘কোভিড-১৯ এর উপসর্গকে অবহেলা করার মূল কারণ হলো অন্যান্য রোগের সঙ্গে এর সাদৃশ্যতা। অ্যালার্জি, ফ্লু, অন্যকোনো সংক্রমণ অথবা অ্যালকোহল পানের মতো রিক্রিয়েশনাল অ্যাক্টিভিটিতে করোনা সংক্রমণের মতো উপসর্গ প্রকাশ পেয়ে থাকে। একারণে অনেকেই অল্প ক্লান্তিকে কোভিড-১৯ ভাবতে চান না।’ কিন্তু জুলাইয়ে প্রকাশিত আমেরিকার রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) একটি গবেষণা ক্লান্তির ওপর গুরুত্বারোপ করার কথাই বলছে। গবেষণাটিতে দেখা গেছে, ৬৯ শতাংশ কোভিড-১৯ রোগী ক্লান্তিতে ভুগেন। এই শতাংশ দেখে বুঝতেই পারছেন চলমান মহামারিতে ক্লান্তি কত বেশি প্রচলিত উপসর্গ। তাই ক্লান্তি লাগলে অবহেলা করবেন না, ঘরে আইসোলেশনে চলে যান, কোভিড-১৯ টেস্ট করে আসুন ও চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন।

তথ্যসূত্র: বেস্ট লাইফ

 

ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়