ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বছরের শুরুতে হোঁচট, শেষটা রাঙাতে চায় বিএনপি

এসকে রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-২৪ ৮:৩৬:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-২৫ ১০:১৮:৩৩ এএম
বছরের শুরুতে হোঁচট, শেষটা রাঙাতে চায় বিএনপি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : দীর্ঘদিন খারাপ সময়ের সঙ্গে লড়াইয়ে থাকা বিএনপির বছরটি শুরু হয়েছে দুর্নীতির মামলায় দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারান্তরীণের মাধ্যমে বড় ধরনের হোঁচট খেয়ে। বছর জুড়ে স্বাভাবিক রাজনীতি থেকে দূরে থাকা দলটি এখন স্বপ্ন দেখছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে ঘুরে দাঁড়াতে।  

শুরুতে হোঁচট: দীর্ঘদিন মামলা চলার পর গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয় আাদলত। রায়ের পরই তাকে পুরনো ঢাকায় নাজিমউদ্দিন রোডে কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন পর্যন্ত সেখানেই আছেন বিএনপি প্রধান। 

মামলার ছয় আসামির মধ্যে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মাগুরার সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের হয়েছে দশ বছর করে কারাদণ্ড। সেই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার করে জরিমানা করেছেন বিচারক।

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহন, ফল প্রত্যাখ্যান : বছরের মাঝামাঝিতে দেশের ছয় সিটি কর্পোরশেন নির্বাচনে অংশ নেয় বিএনপি। যদিও নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ তুলে ফল প্রত্যাখ্যান করে দলটি।

নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে একাত্মতা : বছরের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন। সেই আন্দোলনে নৈতিক সমর্থন দেয় বিএনপি। সড়কে মৃত‌্যুর মিছিল রোধে যেসব দাবি নিয়ে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে, তাতে সমর্থন দিয়ে সরকারের পদত‌্যাগ দাবি করে দলটি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এ সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ সরকার। সারাদেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে ফেলেছে। কারও জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই। সড়ক দুর্ঘটনা থেকে শুরু করে দেশে একের পর এক অঘটন ঘটলেও এ সরকার তা নিয়ন্ত্রণে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।’

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেকের সাজা : ২০০৪ সালে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় বছরের মাঝামাঝিতে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, প্রাক্তন উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয় আদালতে। এছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১৯ জনকে দেওয়া হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। এর প্রতিবাদে কর্মসূচি দেওয়ার পাশাপাশি রায় প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি। 

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আত্মপ্রকাশ: বছরের শেষ দিকে এসে বিএনপির রাজনীতিতে মোড় নেয় নতুন ঘটনা। নির্বাচনের আগে সরকারের পদত্যাগ, সংসদ ভেঙে দিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন এবং খালেদা জিয়াসহ সব বন্দিদের মুক্তি চেয়ে গত ১৩ অক্টোবর ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ নামে নতুন একটি জোটের আত্মপ্রকাশ হয়। যেখানে ‘গণতন্ত্র ফেরাতে’ বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলন করার ঘোষণা দেয় গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ‘জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়া’, জেএসডির আসম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুদর রহমান মান্নাসহ কয়েকটি দল। পরে এতে যোগ দেয় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ।

সরকারের সঙ্গে ফ্রন্টের সংলাপ : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আত্মপ্রকাশের পর সংলাপ চেয়ে ড. কামাল হোসেনের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেওয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে অবাধ নির্বাচনের জন্য সরকারের সঙ্গে ১ নভেম্বর আলোচনায় বসেন জোটের নেতারা। পরে আরেক দফা আলোচনা হয়। যদিও আলোচনায় কোনো সমাধান আসেনি। 

তরিকুলকে হারালো বিএনপি: এই বছর বিএনপি হারায় বর্ষীয়ান নেতা তরিকুল ইসলামকে। গত ৪ নভেম্বর না ফেরার দেশে চলে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহন: বছরজুড়ে রাজনীতিতে সুবিধাজনক অবস্থানে না থাকতে পারলেও একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি। দলটির আশা, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তাতে জয় আসবে জোটের।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৫ ডিসেম্বর ২০১৮/রেজা/শাহনেওয়াজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন