ঢাকা, শুক্রবার, ৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ডায়াবেটিস ডাক্তাররা যা মেনে চলেন (শেষ পর্ব)

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-২৭ ৮:১৪:৫৪ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৪-২৭ ১২:৪৩:৪৭ পিএম
ডায়াবেটিস ডাক্তাররা যা মেনে চলেন (শেষ পর্ব)
প্রতীকী ছবি
Walton E-plaza

এস এম গল্প ইকবাল : যারা ডায়াবেটিস রোগে ভুগেন তাদেরকে ডায়াবেটিক বলা হয়। ডায়াবেটিকদের জীবনযাত্রায় কিছু উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনতে হয়, অন্যথায় তাদের রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। রক্ত শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পেলে শরীর বিপদসীমার মধ্যে প্রবেশ করে। অনিয়ন্ত্রিত রক্ত শর্করা শরীরে মারাত্মক জটিলতা সৃষ্টি করে জীবনকে দুর্বিষহ পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দেয়, একারণে ডায়াবেটিকদের রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে সচেতন থাকা অত্যাবশ্যক।

ডায়াবেটিসের ডাক্তাররা রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণের জন্য ডায়াবেটিকদেরকে যেসব পরামর্শ দেন, তা তারা নিজেরাও মেনে চলার চেষ্টা করেন। ডায়াবেটিসের ডাক্তাররা নিজেদের রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণের জন্য যা করেন, তা নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে শেষ পর্ব।

* ঘুমাতে যাওয়ার এক ঘন্টা পূর্বে রক্ত শর্করা মাপেন
ইউনিভার্সিটি অব মিশিগান হেলথ সিস্টেমের এন্ড্রোক্রাইনোলজিস্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক স্কট সোলেমানপার (তার টাইপ ১ ডায়াবেটিস আছে) প্রতিরাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে তার রক্ত শর্করা চেক করেন। তিনি বলেন, ‘একজন ডায়াবেটিকের রক্ত শর্করা কমে যাওয়ার সবচেয়ে বড় সময় হলো রাত। যদি আপনি রক্ত শর্করা মেপে জানতে পারেন যে এর পরিমাণ স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে কম, তাহলে রক্ত শর্করাকে স্বাভাবিক মাত্রায় আনার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে। বিছানায় যাওয়ার পূর্বে আপনার রক্ত শর্করার মাত্রা অস্বাভাবিক কম থাকলে গ্লুকোজ ট্যাবলেট সেবন করুন অথবা চার থেকে আট আউন্স জুস পান করুন।’ গ্লুকোজ ট্যাবলেট সেবন অথবা জুস পান করা মাত্রই ঘুমিয়ে পড়বেন না, ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং রক্ত শর্করার মাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে পৌঁছেছে কিনা নিশ্চিত হতে আবার চেক করুন।

* ওয়েবে প্রকাশিত চটকদার রেসিপিতে প্রলুব্ধ হন না
ডা. সোলেমানপার তার খাবারে বৈচিত্র্য আনতে সবসময় নতুন রেসিপির খোঁজ করেন। কিন্তু আপনি অনলাইনে যেমন তেমন ওয়েবসাইটে প্রকাশিত স্বাস্থ্যকর রেসিপি দেখে বোকা বনে যাবেন না। রেসিপিটি পুরোটা পড়ে সময় নষ্ট করার পূর্বে এতে কি কি উপকরণ আছে দেখে নিন। চটকদার ভাষায় প্রলুব্ধ হয়ে গ্রোসারি শপ থেকে পণ্য কিনে অর্থ ব্যয় করার পূর্বে ভালোভাবে জেনে নিন যে রেসিপিটির কোনো উপকরণ রক্ত শর্করা বৃদ্ধি করে কিনা, অন্যথায় উপকারের পরিবর্তে অপকারই বেশি হতে পারে। ডা. সোলেমানপার বলেন, ‘আমি রেসিপি সংক্রান্ত আর্টিকেলের পুরোটা পড়ার আগে উপকরণের তালিকাটা দেখে নিই। আপনি রেসিপি পড়ে মনে করতে পারেন যে এটি অতি স্বাস্থ্যকর, কিন্তু আসলে তেমনটা নাও হতে পারে। যখন উপকরণগুলো শরীরে যাবে, তখন দেখবেন যে যতটা উপকারী মনে করেছেন ততটা নয়।’ আপনি সবসময় এটা নিশ্চিতভাবে জেনে নেবেন যে রেসিপিটিতে রক্ত শর্করার মাত্রাকে আকাশচুম্বী করতে পারে এমন উপকরণ নেই।

* ফলের শরবতের পরিবর্তে পুরো ফল খান
সাধারণত ফলের শরবতে চিনি যোগ করা হয়, তাই আপনি সংযোজিত চিনি এড়াতে পুরো ফল খেতে পারেন। কিন্তু এখানেই শেষ কথা নয়। মন্টিফিয়োর জ্যাক ডি. ওয়েলার হসপিটালের ক্লিনিক্যাল ডায়াবেটিস সেন্টারের পরিচালক ও আলবার্ট আইনস্টাইন কলেজ অব মেডিসিনের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক জোয়েল জনসজেন বলেন, ‘আপনি পুরো কমলা খেলে যে প্রাকৃতিক চিনি পাবেন, তা কমলাটি চেপে রস বের করে পান করলে যে চিনি পাবেন তার তুলনায় অনেক কম। এছাড়া পুরো কমলায় আপনি আঁশও পাবেন।’ তিনি যোগ করেন, ‘ফলের রস পানের চেয়ে পুরো ফল খেলে প্রাকৃতিক চিনি অধিক ধীরে শোষিত হয়।’ অন্যান্য ফলের মধ্যে পেঁপে, মোসাম্বি, তরমুজ ও ফুটিতে ফলের রসের তুলনায় কম পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট ও চিনি থাকে।

* রেস্টুরেন্টে খাওয়ার পূর্বে মেন্যু আইটেম ভালোভাবে দেখেন
পুষ্টি ও স্বাস্থ্যকর উপাদান বিবেচনার ক্ষেত্রে বাইরে খাবার খাওয়া বাজি ধরার মতো। যদিও কিছু চেইন রেস্টুরেন্টের মেন্যুতে ক্যালরির পরিমাণ উল্লেখ থাকে, কিন্তু অন্যান্য পুষ্টিমান সম্পর্কেও জানা গুরুত্বপূর্ণ। ডা. সোলেমানপার মেন্যুর কোনোকিছু অর্ডার দেওয়ার পূর্বে তার খাবার গবেষণা করার চেষ্টা করেন। তিনি বলেন, ‘খাবার সম্পর্কে প্রচুর জ্ঞানার্জন করুন যাতে আপনি জানতে পারেন যে কি খাচ্ছেন এবং এতে কি পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট রয়েছে।’ জনপ্রিয় চেইন রেস্টুরেন্টের খাবারের পুষ্টিমানের তথ্য যাচাই করতে ক্যালরিকিং এবং মাইফিটনেসপালের মতো অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন।

* প্রতিবার খাওয়ার পূর্বে রক্ত শর্করা চেক করেন
ডা. সোলেমানপার বলেন যে তিনি প্রতিবেলার খাবার বা স্ন্যাকস খাওয়ার পূর্বে নিয়মিত রক্ত শর্করা মেপে দেখেন এবং তিনি মনে করেন যে এটি হলো রক্ত শর্করা চেকের শ্রেষ্ঠ সময়। তিনি যোগ করেন, ‘খাবার খাওয়ার পূর্বে রক্ত শর্করা পরিমাপ আপনাকে ভালো ধারণা দেবে যে কি পরিমাণে কি খেতে হবে।’ প্রতিনিয়ত রক্ত শর্করা চেকিং আপনাকে ডায়াবেটিসের মারাত্মক জটিলতা এড়াতে সাহায্য করবে।

* রক্ত শর্করা পরিমাপের রিমাইন্ডারের জন্য প্রতি ২-৩ ঘন্টায় খান
বোস্টনে অবস্থিত জোসলিন ডায়াবেটিস সেন্টারের ডায়াবেটিস এডুকেটর জেন লিব্লাঙ্ক (তার টাইপ ১ ডায়াবেটিস আছে) বলেন, ঘনঘন অল্প খাবার ও স্ন্যাকস ভোজন কেবলমাত্র তার বিপাককেই সক্রিয় রাখে না, এটি তার ব্যস্ত দিন জুড়ে নিয়মিত রক্ত শর্করা পরিমাপের জন্য কার্যকর রিমাইন্ডার হিসেবেও কাজ করে। তিনি যোগ করেন, ‘প্রতিবার খাওয়ার পূর্বে আমি রক্ত শর্করার মাত্রা চেক করি। এটি আপনাকে অধিক নিয়মাবদ্ধ করে।’ তিনি দিনে চার থেকে পাঁচবার রক্ত শর্করা মেপে দেখেন।

* জাঙ্ক ফুড এড়িয়ে চলেন
প্রবাদ আছে, আপনি সেটাই যা আপনি খান। একথাটি রক্ত শর্করা প্রসঙ্গে খুব সত্য। আপনার রক্ত শর্করার রিডিং আপনি কি খাচ্ছেন তা সম্পর্কে অনেক কিছু বলতে পারে। ডা. জনসজেন সুপারশপের যে পাশে মিষ্টান্ন ও উচ্চ প্রক্রিয়াজাত খাবারের তাক আছে সেখানে না যাওয়ার চেষ্টা করেন। তিনি বলেন, ‘স্টোরে সঠিক খাবার নির্বাচন করুন। যদি সোডা ও আইসক্রিম কিনেন, তাহলে আপনি এগুলো খেতে যাচ্ছেন।’ কিন্তু যদি চিনিযুক্ত স্ন্যাকস সম্পূর্ণরূপে এড়িয়ে চলেন, তাহলে চিনি খাওয়ার প্রবণতা দূর হবে।

* কন্টিনিউয়াস গ্লুকোজ মনিটর ব্যবহার করেন
যদি আপনি দিনে বহুবার আঙুল বিদ্ধ করা ছাড়াই আরো কার্যকর উপায়ে রক্ত শর্করার মাত্রা চেক করতে চান, তাহলে কন্টিনিউয়াস গ্লুকোজ মনিটর (সিজিএম) ব্যবহার করতে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন। এ পরিধানযোগ্য যন্ত্রটি একটি ছোট সেন্সরের মাধ্যমে রক্ত শর্করা ২৪ ঘন্টাই মেপে থাকে। এ সেন্সরটি ত্বকের নিচে স্থাপন করা হয়, যা নিতম্বের অয়্যারলেস মনিটরে তথ্য পাঠিয়ে থাকে রেকর্ড করার জন্য। ডা. জনসজেন প্রতিদিন রক্ত শর্করার রিডিং ট্র্যাক করতে সিজিএম ব্যবহার করেন। তিনি বলেন, ‘যখন রক্ত শর্করা অত্যধিক বেড়ে যায় অথবা কমে যায়, এটি আমাকে সতর্ক করে।’ সিজিএম ডায়াবেটিস ব্যবস্থাপনাকে সহজ করলেও এটি পুরো শতাংশে নির্ভুল নয়। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটস অব হেলথ ডায়াবেটিকদেরকে সিজিএম রিডিংকে ফিঙ্গার-স্টিক গ্লুকোজ টেস্টের ফলাফলের সঙ্গে তুলনা করতে পরামর্শ দিচ্ছে। এমনটা করার কারণ হলো, কোনো ইনসুলিন ডোসেজ পরিবর্তনের পূর্বেই যন্ত্রটির নির্ভুলতা ভেরিফাই করা।

পড়ুন : ডায়াবেটিস ডাক্তাররা যা মেনে চলেন (প্রথম পর্ব)



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৭ এপ্রিল ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge