ঢাকা, বুধবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

পাইন ল্যাবসে বিনিয়োগ করবে মাস্টারকার্ড

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৬ ২:৫৬:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৬ ২:৫৬:০০ পিএম

ব্যবসায়ীদের জন্য দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম শীর্ষস্থানীয় বাণিজ্যিক প্ল্যাটফর্ম ‘পাইন ল্যাবস’ এ বিনিয়োগের ঘোষণা দিলো মাস্টারকার্ড।  এই বিনিয়োগটি দক্ষিণ এশিয়ার ক্রমবর্ধমান অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এশিয়া অঞ্চলজুড়ে গ্রাহকদের জন্য সুবিধাজনক ই-পেমেন্ট অপশনগুলোর দ্রুত সম্প্রসারণ করা এই বিনিয়োগটির লক্ষ্য। এই অংশীদারীত্বের ফলে গ্রাহকরা ইন-স্টোর এবং অনলাইনের চেকআউট এ বিভিন্ন ধরনের কার্ডের মাধ্যমে রিয়েল-টাইম পেমেন্টে কিস্তি-ভিত্তিক সুবিধা উপভোগ করার সুযোগ পাবেন।

একই সাথে, এই চুক্তির মাধ্যমে উভয় প্রতিষ্ঠান বেশ কিছু বাড়তি সুযোগ সুবিধা দিবে। যার মধ্যে রয়েছে, পাইন ল্যাবসের এন্ড-টু এন্ড স্টোরড ভ্যালু সমাধান। এর ফলে দক্ষিণ এশিয়ার বাজারের খুচরা বিক্রেতা এবং ব্যবসায়ীরা যেখানে কাগজ ব্যবহার করে, তার পরিবর্তে এই সলুশনগুলো ব্যবহার করা যাবে।

পাইন ল্যাবস এক দশক আগে অফলাইনে খুচরা অর্থপ্রদান প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ভারত, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যের মার্কেটে পেমেন্ট একসেপটান্স প্রযুক্তি, স্টোরড ভ্যালু পণ্য, ইন-স্টোর কাস্টমার ক্রেডিটসহ ব্যবসায়ীদের জন্য নানাবিধ সল্যুশন প্রদান করার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি ক্রমেই বিকশিত হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে প্রতি বছর ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের লেনদেন সম্পন্ন করে, যার মাধ্যমে ৪,৫০,০০০টি নেটওয়ার্ক পয়েন্টে প্রায় ১,৪০,০০০ ব্যবসায়ীকে সেবা দেয়া হয়।

পাইন ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান লোকভীর কাপুর বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার ক্রমবর্ধমান ডিজিটাল প্রক্রিয়ায় সংযুক্ত মধ্যবিত্ত সমাজে একটি বড় অংশ অনলাইনে পণ্য কেনাবেচার ক্ষেত্রে ‘এখনই কিনুন, পরে পরিশোধ করুন’ এই ধরনের লেনদেনের খোঁজে থাকেন। এই চুক্তিটি ব্যবসায়ী, ব্র্যান্ড মালিক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ইনোভেটিভ সল্যুশনের সুযোগ প্রদানের মাধ্যম গ্রাহকদের পছন্দকে অগ্রাধিকার দিয়ে সর্বোচ্চ সুযোগ দিবে।’

মাস্টারকার্ডের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের কো-প্রেসিডেন্ট আরি সরকার বলেন, ‘মানুষ কীভাবে কেনাকাটা করবে সেটা এখন ঠিক করছে স্মার্ট ডিভাইসগুলো। এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে আমরা নতুন নতুন উদ্ভাবনী সমাধান বের করা অব্যহত রাখছি এবং সাধারণ মানুষের জন্য হাতের আঙুলের ছোঁয়ায় অর্থ পরিশোধের নতুন সুযোগ করে দিচ্ছি।’



ঢাকা/ফিরোজ