ঢাকা, শুক্রবার, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনা সংকটের মধ্যে ফ্ল্যাগশিপ ফোন লঞ্চ করল হুয়াওয়ে

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৬ ৯:৫৪:৫৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৬ ৯:৫৪:৫৬ পিএম

করোনাভাইরাসের মহামারি থাকা সত্ত্বেও হুয়াওয়ে আজ নতুন কয়েকটি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে। হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা কোম্পানিটির চীনভিত্তিক দেড় লাখ কর্মীর ৯০ শতাংশ কাজে যোগ দিয়েছে ঘোষণা দেওয়ার একদিন পরই পি৪০ সিরিজের ফোন (পি৪০, পি৪০ প্রো, পি৪০ প্রো প্লাস) উন্মোচন করেছে।

তবে বাজার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হুয়াওয়ের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির নতুন এই ফোনগুলোর চাহিদা তাদের দেশের বাজারের বাইরে দুর্বল হতে পারে, অন্তত স্বল্পমেয়াদে। বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা সংকটের এই সময়ে অনেক ভোক্তা এবং ব্যবসায়ীরা যদি ব্যয় করতে চায় তাহলে ল্যাপটপ, পিসি এবং ট্যাবলেট কেনার দিকেই ঝুঁকছে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ডাটা করপোরেশনের (আইডিসি) রিসার্স ম্যানেজার মার্টা পিন্টোর মতে, ‘মানুষের কেনাকাটার তালিকায় এখন স্মার্টফোন অগ্রাধিকার পাচ্ছে না আর প্রিমিয়াম স্মার্টফোন তো অবশ্যই নয়। এ ব্যাপারে গ্রাহকদের আগ্রহ হ্রাস পাচ্ছে কারণ তারা মুদির দোকানের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র এবং অফিসের কাজ করতে পারবে এমন কিছু কেনাকাটা নিয়ে আরো বেশি উদ্বিগ্ন।’

পিন্টো বলেন, ‘যেহেতু আপনাকে বাড়িতে বসে কাজ করতে হচ্ছে তাই এখনো যদি আপনার কিছু কিনতে হয় তাহলে সম্ভবত আপনি ল্যাপটপ বা মনিটর কিনতে চাইবেন। অথবা অনলাইনে শিশুদের পড়াশোনা চালিয়ে নেওয়া প্রয়োজন বলে ট্যাবলেট পিসি কিনতে চাইবেন।’

করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রচলিত বড় ইভেন্টের পরিবর্তে হুয়াওয়ে তাদের নতুন এই ফোনগুলো অনলাইন লাইভস্ট্রিমের মাধ্যমে উন্মোচন করেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞার কারণে হুয়াওয়ের পি৪০ সিরিজের ফোনগুলোতে মিলবে না জিএমএস (গুগল মোবাইল সার্ভিসেস) এর সেবা। জিএমএস’র সেবাগুলোর পরিবর্তে এতে থাকছে এইচএমএস (হুয়াওয়ে মোবাইল সার্ভিসেস) সেবা। যেমন গুগল প্লে স্টোরের বদলে থাকবে হুয়াওয়ের নিজস্ব অ্যাপ গ্যালারি। গুগল ড্রাইভ ও ফটোজের পরিবর্তে হুয়াওয়ের মোবাইল ক্লাউড থাকবে। হুয়াওয়ের তৈরি ব্রাউজার ব্যবহার করা যাবে গুগল ক্রোমের পরিবর্তে। থাকবে হুয়াওয়ের নিজস্ব ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা। ইউটিউব ও জিমেইল অ্যাপস প্রি-ইনস্টল করা থাকবে না।

অন্যান্য ব্র্যান্ডের অ্যান্ডয়েড ফোনে যেহেতু গুগলের পরিষেবাগুলো প্রি-ইনস্টল করা থাকে, তাই চীনের বাইরে হুয়াওয়ের নতুন ফোনগুলোর বিক্রি কঠিন ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তবে বাজার বিশ্লেষক আরেকটি সংস্থা সিএসএস ইনসাইটের ধারণা, কোভিড-১৯ এর পরিণতিগুলোর সাথে লড়াইয়ে কোম্পানিটি তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় আরো ভালো জায়গায় থাকতে পারে। হুয়াওয়ে ইতিমধ্যে চীনের বাজারের বাইরে অবরুদ্ধ অবস্থায় ছিল এবং বেশ শক্ত ব্যবসায়িক পরিবেশে কাজ করেছিল। অন্যান্য ফোন নির্মাতাদের পক্ষে এই ধাক্কা সামলানো সহজ হতো না। এছাড়া হুয়াওয়ের বেশিরভাগ বিক্রয় এখনও চীনের বাজার থেকে আসছে এবং এই বাজারটি ইতিমধ্যেই অন্যদের তুলনায় করোনার প্রভাব অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছে।

চীনের বাইরে বাণিজ্যিক প্রতিবন্ধকতার মুখে হুয়াওয়ে এখনো বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি হিসেবে অবস্থান ধরে রেখেছে।

হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতা রেন ঝেংফেই ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে উল্লেখ করেছিলেন যে, তার কোম্পানি এ বছর গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে ৫.৮ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের পরিকল্পনা করেছে। এর কিছু অংশ নিজস্ব অ্যাপস স্টোর তৈরিতে ব্যয় করা হচ্ছে।

তিনি আরো যোগ করেন, ‘চীনের বাইরের বাজারগুলোতে আমরা উল্লেখযোগ্য (স্মার্টফোন) বৃদ্ধি দেখতে পাচ্ছি না। তবে আমরা এর সমাধানের ব্যাপারে কাজ করছি।’

তথ্যসূত্র : বিবিসি

 

ঢাকা/ফিরোজ