ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনা প্রতিরোধের পরবর্তী পদক্ষেপ হতে পারে ফেস শিল্ড

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০২ ৬:৫৩:০১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০২ ৬:৫৩:০১ পিএম

করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ফেস মাস্ক সাধারণ ব্যাপার হয়ে উঠেছে। কয়েকজন বিজ্ঞানীর মতে, এখন সময় এসেছে সুরক্ষা ব্যবস্থা আরো একধাপ এগিয়ে নেওয়ার। তাঁদের মতে, লকডাউন ব্যবস্থা শিথিল হতে শুরু করায় ফুল ফেস শিল্ড ব্যবহারের চেষ্টা করতে হবে।

স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা সরঞ্জামের তালিকায় ফেস শিল্ড নতুন কিছু নয়। করোনা রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক এবং নার্সরা মানসম্মত মাস্কের পাশাপাশি ফেস শিল্ড ব্যবহার করছেন। 

তবে করোনা ঝুঁকি মাথায় নিয়ে অনেক স্থানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অফিস পুনরায় খুলতে শুরু করায়, হাসপাতালের বাইরেও ফেস শিল্ড ব্যবহার প্রয়োজন কিনা সে প্রশ্ন উঠেছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এলি পেরেনসভিচ বলেন, ফেস শিল্ডের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। এটি পরা সহজ এবং হাঁচি-কাশির ফোটা আটকে দিতে পারে। সহজেই জীবাণুকরণ এবং পুনঃব্যবহার করা যায়। সুরক্ষার জন্য সর্বোত্তম একটি বিকল্প ব্যবস্থা।’

জেএএমএ জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় ডা. পেরেনসভিচ উল্লেখ করেন, কোভিড-১৯ এর লড়াইয়ে মানসম্মত মাস্কের তুলনায় ফেস শিল্ড আরো বেশি সম্ভাবনাময় হতে পারে। তাঁর মতে, মাস্ক ভালোভাবে ফিট না হলে তা কার্যকরী হয় না। ঢিলেঢালা মাস্ক ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়, মাস্ক ঠিক করতে বার বার মুখ স্পর্শ করতে হয়। অন্যদিকে আঁটসাঁট মাস্ক শ্বাস নেওয়ার বিষয়টি কঠিন করে তোলে। এছাড়া চোখের সুরক্ষাও নিশ্চিত করে না মাস্ক। করোনাভাইরাস চোখের মাধ্যমেও শরীরেও প্রবেশ করতে পারে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্কের কার্যকারিতা নিয়ে খুব বেশি গবেষণা নেই। তবে চীনের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, বাসায় ফেস মাস্ক পরার অভ্যাস একই পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে সংক্রমণ প্রায় ৮০ শতাংশ হ্রাস করেছে।

অন্যদিকে হাঁচি-কাশি থেকে নির্গত কণাগুলো ফেস শিল্ড সফলভাবে প্রতিরোধ করতে পারে বলে দেখা গেছে। ২০১৪ সালে কাশির এক সিমুলেশন পরীক্ষায় দেখা গেছে, কাশি থেকে নির্গত কণাগুলো ১৮ ইঞ্চি সীমার মধ্যে ৯৬ শতাংশ আটকে দিতে পারে ফেস শিল্ড।

বিশ্বের বেশ কিছু দেশ হাসপাতালের বাইরেও ফেস শিল্ড ব্যবহারের পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। যেমন সিঙ্গাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ফেস শিল্ড ব্যবহারের উদ্যোগ নিয়েছে। 

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্বাস্থ্যসেবা ক্ষেত্রের বাইরের লোকজনের জন্য এখনো ফেস মাস্ক পরার পরামর্শ দিচ্ছে। 

 

ঢাকা/ফিরোজ