ঢাকা     মঙ্গলবার   ০৪ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ১৯ ১৪২৭ ||  ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

risingbd-august-banner-970x90

করোনা সংক্রমণ এড়াতে উবারে নতুন সেফটি ফিচার

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৪৪, ১২ জুলাই ২০২০  

রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার আজ বাংলাদেশের যাত্রী ও চালকদের জন্য কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বিভিন্ন সেফটি ফিচার ও নীতিমালা প্রণয়ন করেছে।

এই তালিকায় চালক ও যাত্রী উভয়ের জন্য থাকছে একটি পারস্পরিক গো অনলাইন চেকলিস্ট, বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহারের নীতি, চালকদের জন্য বাংলাদেশে এই প্রথম যাত্রা শুরুর আগেই মাস্ক পরা হয়েছে কি না তা যাচাইকরণ সেলফি, যাত্রা শেষে ফিডব্যাক দেয়া এবং ট্রিপ বাতিল করার নতুন নীতিমালা। এই সংকটকালীন মুহূর্তে যেন প্রত্যেক উবার ব্যবহারকারী প্রতি ট্রিপে সুরক্ষিত ও নিরাপদ থাকেন তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই নতুন এই নীতিমালা গঠন করা হয়েছে।

এ লক্ষ্যে উবার চালকদেরকে বিনামূল্যে ৫০ লক্ষ টাকার মাস্ক ও স্যানিটাইজারের মতো সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করছে। চালক ও যাত্রীরা উবার অ্যাপে কিছু নতুন সংযোজন দেখতে পাবেন। যেমন:

গো অনলাইন চেকলিস্ট: যাত্রা শুরু করার আগে একটি নতুন গো অনলাইন চেকলিস্টের মাধ্যমে চালকদের কাছে জানতে চাওয়া হবে যে তারা সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যাথাযথ পদক্ষেপ নিয়েছেন কি না এবং মাস্ক পরেছেন কি না। যাত্রীদের জন্যও একই রকম একটি চেকলিস্ট তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি যাত্রা শুরুর আগে তাদের অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে তারা মাস্ক ব্যবহার করছেন কি না এবং তারা হাত ধুয়েছেন কিংবা স্যানিটাইজার ব্যবহার করেছেন কি না।

মাস্ক ভেরিফিকেশন: কোনো ট্রিপ গ্রহণ করার আগে চালকদেরকে মাস্ক পরে একটি সেলফি তুলতে বলা হবে। উবারের নতুন প্রযুক্তি যাচাই করবে চালক মাস্ক পরেছেন কি না।

সবার জন্য জবাবদিহিতা: কোনো যাত্রী বা চালক মাস্ক পরেছেন কি না বা মুখ ঢেকে রেখেছেন কি না সে সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে নতুন অপশন যুক্ত করা হয়েছে।

যাত্রা বাতিল করার নীতিমালা হালনাগাদ: চালক বা যাত্রী যে কেউই অনিরাপদ বোধ করলে তাৎক্ষণিক তারা যাত্রা বাতিল করতে পারবেন। মাস্ক না পরা বা মুখ না ঢাকা থাকলেও তারা যাত্রা বাতিল করতে পারবেন।

সীমিত আসন ব্যবস্থা: উবার ট্রিপে থাকাকালীন চালক ও যাত্রীদের মধ্যে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে যাত্রীদের শুধুমাত্র পিছনের সিটে বসার জন্য বলা হচ্ছে। এছাড়া এখন থেকে চালক ব্যতীত গাড়িতে শুধুমাত্র দুজন যাত্রী বসতে পারবেন।

এ সম্পর্কে উবারের বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের প্রধান রাতুল ঘোষ বলেন, ‘চালক ও যাত্রীদের নতুন অভিজ্ঞতা দেয়ার জন্য আমাদের বিশ্বমানের প্রযুক্তি ও সেফটি প্রোডাক্ট টিম নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যেহেতু জনজীবন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে তাই নিজেদের নিরাপদ রাখতে ও পরবর্তী যাত্রাকে সবার জন্য নিরাপদ করতে সকল প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা গুরুত্বপূর্ণ। এই নতুন ফিচার ও নীতিমালাগুলো বিশ্বব্যাপী চালু করা হয়েছে এবং সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা প্রয়োজন অনুযায়ী এগুলো আরও উন্নত ও সংশোধিত করতে থাকব।’

 

ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়