ঢাকা, বুধবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

এবার ট্রফি জয়ের চ্যালেঞ্জ

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২৪ ৯:৫৬:০৬ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-২৪ ২:২৩:৩২ পিএম

প্রায় দুই সপ্তাহের পথ পেরিয়ে শেষের খুব কাছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ। আজ টুর্নামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। কে উঁচিয়ে ধরবেন ট্রফি- বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান না আফগানিস্তানের রশিদ খান?

জবাব মিলবে রাতেই। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে যথারীতি সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়।

সাম্প্রতিক সময়ে উল্টোরথে চলছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের চাকা। শুরুটা স্বপ্নভঙ্গের বিশ্বকাপ দিয়ে। বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়ে এসেছে শ্রীলঙ্কা থেকে। এরপর দেশের মাটিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে অসহায় আত্মসমর্পণ করে হার।

 

 

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও চোখ রাঙাচ্ছিল পরাজয়। সেখান থেকে কোনোরকমে জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে সাকিব আল হাসানের দল। পরের ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে আবারো অসহায় আত্মসমর্পণ। টি-টোয়েন্টিতে যেটি আফগানদের বিপক্ষে টানা চতুর্থ হার।

মিরপুরের পর টুর্নামেন্ট চট্টগ্রামে গেলে কিছুটা বদলে যায় বাংলাদেশ। প্রথমে জিম্বাবুয়েকে সহজেই হারিয়ে নিশ্চিত হয় ফাইনালের টিকিট। পরের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ধরা দেয় বহুল কাঙ্ক্ষিত জয়, পাঁচ বছর অপেক্ষার পর। তাতে ফাইনালের আগে আত্মবিশ্বাসও বাড়িয়ে নেওয়া গেছে।

যদিও র‍্যাঙ্কিং, স্কিল আর সামর্থ্য মিলিয়ে আজ ফাইনালে ফেবারিট আফগানিস্তানই। তবে নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে আফগানিস্তানকে হারানো কঠিন কিছু হবে না বলে মনে করেন বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, ‘আফগানিস্তান অবশ্যই ভালো দল। তবে আমরা জানি, নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেললে আমরা যে কোনো দলকে হারাতে পারি। আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ হবে আমাদের স্কিল ও মানসিকতা এক বিন্দুতে মেলাতে পারা, যেন আফগানিস্তানের মতো দলকে হারাতে পারি।’

 

 

টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের টপ অর্ডার জ্বলে উঠতে পারেনি সেভাবে। ফাইনালে টপ অর্ডার জ্বলে উঠবে বলে আশা কোচের, ‘আমরা এখনো সেরা খেলাটা দেখানোর পথ খুঁজছি। যেমন, আমরা কেবল ২ উইকেট হারিয়ে শেষ ৫-৬ ওভারে যেতে পারিনি। প্রথম ১০ ওভারে আমরা অনেক বেশি উইকেট হারিয়ে ফেলেছি। আমাদের চাওয়া, ২ উইকেটে হারিয়ে ১৫ ওভার শেষ করা। তাতে শেষ দিকে ঝড় তোলার ভিত গড়ে উঠবে। এটায় মনোযোগ দিতে হবে। আশা করি ফাইনালে সেটি পারব।’

টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড টানা ১২ জয় নিয়ে চট্টগ্রামে গিয়েছিল আফগানিস্তান। আফগানরা চট্টগ্রামে হেরেছে দুই ম্যাচেই। তাতে তাদের ছন্দেও ছেদ পড়েছে। এর সঙ্গে আবার যোগ হয়েছে অধিনায়ক রশিদ খানের হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট। ফাইনালে তার খেলা অনিশ্চিত।

 

 

চট্টগ্রামে হারলেও ঢাকায় দুই ম্যাচেই জিতেছিল আফগানিস্তান। ফাইনাল ঢাকায় হওয়ায় রশিদ তাই জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী, ‘আমরা চট্টগ্রামে দুই ম্যাচেই হেরেছি। তবে আমরা ঢাকায় ফিরে এসেছি, এখানে আমরা দুই ম্যাচই জিতেছি। আমাদের শুধু মৌলিক ব্যাপারগুলো ঠিক রাখতে হবে, ক্রিকেটকে উপভোগ করতে হবে। আশা করি, প্রথম দুই ম্যাচের মোমেন্টাম আমরা ধরে রাখতে পারব।’

ফাইনাল মিরপুরে বলে আফগানিস্তান যেমন আশা দেখছে, বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ঠিক তার উল্টো। এই মাঠে এখন পর্যন্ত বহুজাতিক কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি বাংলাদেশ। চারটি ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ হেরেছে সবকটিতেই। আজ সেই গেরো খুলবে কি?


ঢাকা/পরাগ