ঢাকা, বুধবার, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০১ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বুরুন্ডির প্রথম নাকি ফিলিস্তিনের দ্বিতীয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৫ ৯:৪৪:৪০ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৫ ১১:১৪:১৫ এএম
ছবি : বাফুফে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ-২০২০’ এর ফাইনাল আজ। প্রথমবার অংশ নিয়েই ফাইনালে উঠেছে মধ্য আফ্রিকার দেশ বুরুন্ডি। আর টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠেছে পশ্চিম এশিয়ার দেশ ফিলিস্তিন।

ফুটবলের লড়াইয়ের বাইরে একটি বিষয়ে মিল রয়েছে দুটি দেশের। দুটি দেশই যুদ্ধ বিধ্বস্ত। ১৯৯৩ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত গৃহযুদ্ধের ভয়াবহতা দেখেছে বুরুন্ডি। আর ফিলিস্তিন তো ১৯৪৮ সাল থেকে শুরু করে এখনো লড়ে যাচ্ছে নিজেদের ভূমির জন্য, স্বীকৃতির জন্য। যুদ্ধের দামামার মধ্যেও দুটি দেশ উড়িয়েছে ফুটবলের কেতন। ধ্বংসযজ্ঞ আর মৃত্যুর মিছিলকে পেছনে ফেলে এগিয়েছে ফুটবল সম্প্রীতির দিকে। যুদ্ধের ময়দানকে ফুটবল মাঠ বানিয়ে খেলেছে ‘লেস হেরোনডেলস’-‘নাইটসরা’। খেলেছে শরনার্থী শিবিরে।

আজ দুই যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের শিরোপা জয়ের লড়াই। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে যেটি শুরু হবে বিকেল ৪টায়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে আরটিভি ও বিটিভি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কণ্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ফিলিস্তিন গেল বছর শিরোপা জিতেছিল। অবশ্য সেই দল নিয়ে এবার আসেনি তারা। এসেছে তৃতীয় সারির দল নিয়ে। সেটা নিয়েও তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে। এরপর শিসেলসকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো উঠেছে ফাইনালে। অন্যদিকে জসপিন শিমিরিমানায় উড়ছে বুরুন্ডি। ১৮ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার তিন ম্যাচে দুই হ্যাটট্রিকসহ করেছেন ৭ গোল! তিন ম্যাচে বুরুন্ডি প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েছে ১০ বার! জসপিনের হ্যাটট্রিকে প্রথম ম্যাচে তারা ৪-১ গোলে হারায় মরিশাসকে। পরের ম্যাচে শিসেলসকে হারায় ৩-১ গোলে। সেমিফাইনালে বাংলাদেশেকে একাই হারিয়ে দেন জসপিন। তার হ্যাটট্রিকে বাংলাদেশ উড়ে যায় ৩-০ গোলে।

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক দল বুরুন্ডি। তাদের আক্রমণভাগ সবচেয়ে শক্তিশালী। অবশ্য তাদের রক্ষণভাগ সেই তুলনায় বেশ দুর্বল। তাদের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রায় এক ডজন গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল। কিন্তু ফিনিশারের অভাবে একটি থেকেও গোল আদায় করে নিতে পারেনি আয়োজকরা। তাইতো ঘরের মাঠে আরো একবার দর্শক বনে যেতে হয় জামাল-সাদদের।

শিরোপা ফিলিস্তিন জিতবে নাকি বুরুন্ডি? সেটা বলা অবশ্য কঠিন। দুটি সেরা দলই ফাইনালে এসেছে। তাইতো ধুন্ধুমার একটি ফাইনাল দেখার অপেক্ষায় ফুটবলপ্রেমীরা।

অবশ্য ফিলিস্তিনের কোচ মাকরাম দাবুব বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ শুরুর আগেই বলেছিলেন তারা শিরোপা ধরে রাখতে চায়। ফাইনালের আগেও একই কথা বলেছেন, ‘গতবার আমরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম। এবারও ট্রফি জিততে চাই। আক্রমণভাগে বুরুন্ডি অনেক শক্তিশালী। কিন্তু আমরা সেটা নিয়ে মোটেও উদ্বিগ্ন নই। কারণ, গ্রুপ পর্ব ও সেমিফাইনাল মিলিয়ে তিন ম্যাচে আমরা কোনো গোল হজম করিনি। এই ম্যাচেও সেটাই হবে আশা করি। যদিও প্রত্যেকটা ম্যাচ ভিন্ন, কন্ডিশন ভিন্ন। তাই বুরুন্ডির বিপক্ষে ম্যাচটিও হবে আলাদা। আমরা অবশ্যই আলাদা কৌশলে ফাইনাল খেলব। বুরুন্ডির খেলা আমরা দেখেছি। সে অনুযায়ীই আমরা মাঠে নামব।’

অন্যদিকে এশিয়ার মাটিতে প্রথম শিরোপা জিততে মুখিয়ে আছে বুরুন্ডি। যেমনটা বলেছেন তাদের কোচ জসলিন ফুবুসাও, ‘আমরা এই টুর্নামেন্টের ট্রফি জিততে চাই। কারণ, এটাই হবে এশিয়ার মাটিতে আমাদের প্রথম কোনো ট্রফি জয়। আশা করি সেভাবেই খেলবে ফুটবলাররা। ফিলিস্তিনের শক্তি সম্পর্কে আমাদের ধারণা আছে। আমরা যে ধারায় খেলে এসেছি, সেটাই খেলব। তবে কৌশল কিছু বদলাবে, ফাইনাল নিয়ে আমরা বেশ আত্মবিশ্বাসী।’

 

ঢাকা/আমিনুল