ঢাকা     বুধবার   ১২ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৮ ১৪২৭ ||  ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

ইংল্যান্ডকে হারানো কে এই ব্ল্যাকউড

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৪:৪৫, ১৩ জুলাই ২০২০  
ইংল্যান্ডকে হারানো কে এই ব্ল্যাকউড

করোনা পরবর্তীকালে মাঠে নেমে ধ্রুপদী টেস্ট উপহার দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাউদাম্পটনে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে হারিয়ে জয় উদযাপন করল ক্যারিবীয়ানরা।

ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে জয়ের নায়ক পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল হলেও চতুর্থ ইনিংসে ৯৫ রানের মহাগুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে সব আলো নিজের উপর কেড়ে দেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান জারমেইন ব্ল্যাকউড। এর আগে ২৮ টেস্ট খেললেও ডানহাতি ব্যাটসম্যান খুব একটা নজর কাড়তে পারেননি। তবে সাউদাম্পটনে ২০০ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ৯৫ রানের ইনিংস খেলে ব্ল্যাকউড লাইমলাইটে চলে আসেন।

দৃঢ়চেতা ব্যাটিংয়ের পর সবার জানার আগ্রহ কে এই ব্ল্যাকউড?

জ্যামাইকার ২৮ বছর বয়সি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান সহজাত স্ট্রোকমেকার। তেড়েফুড়ে ব্যাটিং করতে বেশ পছন্দ করেন। তবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে রয়েছে তার বিশেষ আগ্রহ। এরই মধ্যে খেলেছেন ১০০টিরও বেশি ম্যাচ। ২০১৩-১৪ মৌসুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান করে দলে জায়গা পান ব্ল্যাকউড। এরপর ২০১৪ সালের জুনেই তার মাথায় উঠে টেস্ট ক্যাপ। অভিষেকে তার ব্যাট থেকে আসে ৬৩ রান। সেটা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।  

২০১৭ সালের অক্টোবর পর্যন্ত নয় ফিফটি ও এক শতকে দলের সঙ্গেই ছিলেন ব্যাকউড। পরের পাঁচ টেস্টে মাত্র ১৫ রান করলে দল থেকে বাদ পড়েন। মুদ্রার উল্টোপিঠ দেখা শুরু ব্ল্যাকউডের। তবে দমে যাননি। ঘরোয়া ক্রিকেটে শক্তিশালী পারফরম্যান্সের কারণে জাতীয় দলের আশ-পাশেই ঘোরাফেরা করতে থাকেন। ২০১৯ সালে কনকাসন সাবে দলে সুযোগ পেয়েছিলেন। এরপর আবার সাউদাম্পটনে মাঠে নামলেন।

অটোমেটিক চয়েজে সাউদাম্পটনে মাঠে নামেন ব্ল্যাকউড। ২০২০ সালে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আট ম্যাচে জ্যামাইকার হয়ে ৭৬৮ রান করেছেন। তার থেকে বেশি রান অন্য কেউ করেননি। শেষ ম্যাচে লিওয়ার্ড আইসল্যান্ডের বিপক্ষে তার ডাবল সেঞ্চুরি ছিল অনন্য, অসাধারণ। ওই ইনিংস দেখার পর নির্বাচকরা তার থেকে চোখ সরাতে পারেননি।

তবে অটোমেটিক চয়েজ হওয়ার পেছনে বড় ঘটনাও আছে। করোনার ভয়ে ইংল্যান্ড সফর থেকে নিজেদের সরিয়ে নেন শিমরন হেটমায়ার ও ড্যারেন ব্রাভো। দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের অনুপস্থিতিতে ব্ল্যাকউডের কপাল খুলে।

ইংল্যান্ড বরাবরই ব্ল্যাকউডের প্রিয় প্রতিপক্ষ। এর আগে ২০১৫ সালে একবার ইংল্যান্ড সফর করেছিলেন ব্ল্যাকউড। সেবার ক্যারিয়ারের একমাত্র টেস্ট শতক পান। পাশাপাশি টেস্ট ক্যারিয়ারের ৪১ শতাংশ রান পেয়েছেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই। সাউদাম্পটনে ৯৫ রানের ইনিংসের পর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার ব্যাটিং গড় ৫৫!

টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে জানিয়েছিলেন নিজেকে প্রমাণের চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নামছেন তিনি। ৫ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করলেও এই ইনিংসের মধ্য দিয়ে ব্ল্যাকউড শুধু নিজেকে প্রমাণই করেননি, দলকে দিয়েছেন অনেক বড় সাফল্য।  নিজের ব্যক্তিগত সাফল্যের রহস্য জানাতে গিয়ে ব্ল্যাকউড বলেছেন,‘দুই থেকে আড়াই বছর আমি দল থেকে বাইরে ছিলাম। তখনই ভালো করার জেদ চেপে বসে। এই সুযোগটি আমার কাছে এসেছে, আমি দুই হাত ভরে তা লুফে নিয়েছি। বিশ্বের সেরা পেসারদের বিপক্ষে নিজেকে প্রমাণ করতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে রান করতে হবে।’

 

ঢাকা/ইয়াসিন

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়