ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ধর্ম ও বিয়ে নিয়ে অপুর খোলামেলা সাক্ষাৎকার

শাকিব খান-অপু বিশ্বাস। চলচ্চিত্রের পর্দায় তাদের জুটি সফলতা পেলেও বাস্তব জীবনে জুটি হিসেবে ব্যর্থ।

‘মান্না ভাই অনেক আদর করতেন’

ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত- বাণিজ্যিক এবং শৈল্পিক উভয় ধারার সিনেমায় সমান সাবলীল দর্শকপ্রিয় এক অভিনেত্রী।

‘বাকের ভাইয়ের ফাঁসি না হলে যাবজ্জীবন হতো’

বরেণ্য অভিনেতা আব্দুল কাদের। মঞ্চ থেকে টেলিভিশন, তারপর নাম লেখান চলচ্চিত্রে। ১৯৯০ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকে ‘বদি’ চরিত্রে অভিনয় করে খ্যাতির চূড়ায় পৌঁছে যান।

সালমানের সঙ্গে আমিও মরে গেছি: ডন

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আকাশচুম্বী জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহ। মাত্র চার বছরের অভিনয় ক্যারিয়ারে ২৭টি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি।

সালমানের স্মৃতিগুলো এখনো আমাকে তাড়া করে: শাবনূর

রাহাত সাইফুল: ‘তুমি আমার’, ‘সুজন সখী’, ‘স্বপ্নের ঠিকানা’, ‘স্বপ্নের পৃথিবী’, ‘তোমাকে চাই’, ‘আনন্দ অশ্রু’ সিনেমার নাম আসলেই ভেসে উঠে তুমুল জনপ্রিয় জুটি সালমান শাহ-শাবনূরের নাম।

নজরুল রোজাতেও আছেন পূজাতেও আছেন: ফেরদৌস আরা

কাজী নজরুল ইসলাম কবি পরিচয়ের পাশাপাশি বহু অভিধায় পরিচিত। সাহিত্যের নানা শাখায় ছিল তাঁর বিচরণ।

চলচ্চিত্র প্রত্যেকটি জায়গায় পিছিয়ে আছে: আমিন খান

আমিনুল ইসলাম শান্ত : নব্বই দশকের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক আমিন খান। অভিনয় ক্যারিয়ারে ১৬০টির অধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

চ্যানেল কর্তৃপক্ষ ২ ঘণ্টায় সমাধান করতে পারে: কচি

আমিনুল ইসলাম শান্ত: জনপ্রিয় অভিনেতা-নির্মাতা কচি খন্দকার। প্রায় আড়াই শ নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি।

‘বিষয়টি গোপন রাখতে চাই’

আমিনুল ইসলাম শান্ত: ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শবনম বুবলি। ঈদ উৎসবকে কেন্দ্র করে বিগত কয়েক বছর এই অভিনেত্রীর সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে।  

‘মিউজিশিয়ান আছে কিন্তু গানে বাণীর অভাব’

বরেণ্য সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ। আশির দশকে সংগীতাঙ্গনে পা রাখেন তিনি। উপহার দিয়েছেন অসংখ্য শ্রোতাপ্রিয় গান। ২১ জুন বিশ্ব সংগীত দিবস।

সেদিন আমার পরিবার অনেক অসম্মানিত হয়েছে: পূজা

পূজা চেরি। নায়িকা হিসেবে অভিষেক সিনেমা দিয়েই দর্শকমনে জায়গা করে নিয়েছেন।

জনপ্রিয় হিরোইনদের আমার সঙ্গে কাজ করতে দিতো না: রুবেল

রাহাত সাইফুল : মাসুম পারভেজ রুবেল। মার্শাল আর্ট হিরো হিসেবে বাংলা চলচ্চিত্রে তার দুর্দান্ত আবির্ভাব। পর্দায় কুংফু-কারাতের নান্দনিক সব কৌশল দেখিয়ে বাংলা সিনেমায় এনেছিলেন নতুন জোয়ার।

‘‘আবদুস’ বাদ দিয়ে ‘টেলি সামাদ’ রাখতে চাই’’

অভিনয়শিল্পী টেলি সামাদ। ‘কৌতুক অভিনেতা’ হিসেবেই যার ব্যাপক পরিচিতি।

‘ফাগুন হাওয়ায়’ একটি চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র বা ইতিহাস নয়

তিনি অভিনয়শিল্পী থেকে চলচ্চিত্রনির্মাতা। আশির দশকে টেলিভিশন নাটকে তার অভিনয় দর্শককে মুগ্ধ করেছে।

‘রাজনীতি প্রাণ, সিনেমা আমার অন্তর’

রাহাত সাইফুল : চিত্রনায়ক, পরিচালক, প্রযোজক, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব-একাধিক পরিচয়ে পরিচিত তিনি।