ঢাকা, বুধবার, ৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

কুমিল্লায় ব্যাপক আয়োজনে হানাদারমুক্ত দিবস উদযাপিত

জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-০৮ ৩:৪৪:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-০৮ ৩:৪৪:৫২ পিএম

কুমিল্লা প্রতিনিধি: আজ শনিবার নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে কুমিল্লায় উদযাপন করা হয়েছে হানাদারমুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর কুমিল্লা হানাদারমুক্ত হয়েছিল।

সকালে কুমিল্লা মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আয়োজনে পতাকা উত্তোলন করেন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সফিউল আলম বাবুল।

পরে কুমিল্লা টাউন হল থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে নগর উদ্যানে এসে বঙ্গবন্ধুর মূর‌্যালে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।

সব শেষে টাউন হল মুক্তমঞ্চে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর সকাল থেকেই কুমিল্লার টাউন হল মাঠে ঢল নামে মুক্তিকামী জনতার। স্বাধীন দেশে তারা যুদ্ধে অপরাজিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ফুলেল আমন্ত্রণ জানায় কুমিল্লার পথে পথে। সেদিন সন্ধ্যায় লাখো জনতার উপস্থিতিতে টাউন হলেই স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন করা হয় অ্যাডভোকেট আহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে।

১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর মুক্তিবাহিনী ও ভারতীয় মিত্রবাহিনীর যৌথ অভিযানে মুক্ত হয় কুমিল্লা। ৭ ডিসেম্বর রাতব্যাপী সম্মুখ সমরে পরাজিত পাকবাহিনী পালিয়ে যায়। ২৭ মুক্তিযোদ্ধার আত্মত্যাগের বিনিময়ে মুক্তির স্বাদ পায় কুমিল্লার মানুষ। ৮ ডিসেম্বর ভোরেই স্বাধীন ভূমির পরশ পায় তারা।

মুক্তিযুদ্ধে পাক বাহিনীর ব্যবহৃত বাংকার এখনো কুমিল্লা বিমান বন্দরে রয়েছে। এই বাংকার থেকেই মুক্তিবাহিনীর উপর মেশিন গানের আক্রমন করেছিল হানাদাররা।



রাইজিংবিডি/কুমিল্লা/৮ ডিসেম্বর ২০১৮/জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল/টিপু

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন