ঢাকা, সোমবার, ৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

এই শীতে হানিমুনের জন্য আদর্শ স্থান

ইকবাল মাহমুদ ইকু : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-২৪ ৭:১০:১৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১২ ১:২৩:০৯ পিএম

হানিমুন অর্থাৎ মধুচন্দ্রিমা। শব্দটি যে কোনো নব দম্পতির জন্য কাঙ্ক্ষিত একটি স্বপ্ন। বিয়ের পরপরই নব দম্পতি কোথাও বেড়াতে গিয়ে নতুন জীবনের শুরুর ক’টি দিন আজীবন মনে রাখার মতো উদযাপন করেন এসময়। কথিত আছে, হানিমুন প্রথাটির উৎপত্তি জার্মানি থেকে। এর অর্থ বিয়ের পরবর্তী প্রথম এক মাস।

এই লেখায় বিশ্বের এমন দশটি স্থানের উল্লেখ রয়েছে, যেখানে মধুচন্দ্রিমা মানেই বিশেষ কিছু। বলা হয়ে থাকে, সৌন্দর্য, নিরাপত্তা, পরিবেশ- সব মিলিয়ে এই দেশ বা স্থানগুলো এককথায় হানিমুনের জন্য একেবারে আদর্শ।

ইন্দোনেশিয়া: বর্তমানে মধুচন্দ্রিমার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপ। হানিমুনের জন্য আদর্শ এই দ্বীপ ঘিরে রয়েছে সমুদ্র সৈকত, অসাধারণ সুস্বাদু সব খাবার এবং দর্শনীয় বেশ কিছু প্রাচীন মন্দির। এখানকার হোটেল এবং ট্রাভেল কোম্পানিগুলোর রয়েছে নব দম্পতিদের জন্য বিশেষ হানিমুন প্যাকেজ।

বাঙালি নব দম্পতির জন্য বালি বরাবরই পছন্দের স্থান। কারণ আমাদের দেশ থেকে খুব বেশি দূরে নয় ইন্দোনেশিয়া। এছাড়া দেশটিতে যাওয়ার জন্য ভিসা’র প্রয়োজন হয় না। বাংলাদেশিদের জন্য ইন্দোনেশিয়ার রয়েছে অন-এরাইভাল ভিসার সুব্যবস্থা! অপরদিকে মাসখানেক আগে যদি টিকেট করে ফেলেন, তাহলে ঢাকা থেকে বালির রিটার্ন টিকেটও পাওয়া যাবে স্বল্পমূল্যে।

সুইজারল্যান্ড: নাম শুনলেই মনটা নেচে ওঠে। বরফ এবং সবুজ ঘাসের দ্বৈরথ এখানকার সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলেছে দ্বিগুণ। বিস্তীর্ণ পাহাড় দেখলে মনে হবে যেন ঘাসের গালিচা বিছিয়ে রাখা। এমন নয়নাভিরাম সৌন্দর্য আমরা সিনেমার পর্দায় দেখেছি। এছাড়া সুইজারল্যান্ড গেলে সেখানকার সুস্বাদু চকলেটের স্বাদ নিতে ভুলবেন না। কেননা দেশটি চকলেটের জন্য বিখ্যাত। বাংলাদেশ থেকে সরাসরি সুইজারল্যান্ডের বিমান আছে। যাওয়ার আগে দূতাবাস থেকে টুরিস্ট ভিসা সংগ্রহ করতে হবে। 

শ্রীলঙ্কা : আপনি যদি প্রিয় মানুষটির সঙ্গে একান্তে নিরিবিলি কিছু সময় কাটাতে চান তাহলে শ্রীলঙ্কার টুরিস্ট স্পটগুলো উপযুক্ত স্থান। বর্তমানে বিভিন্ন দেশ থেকে হানিমুন-কাপল শ্রীলঙ্কা গিয়ে মধুচন্দ্রিমা উদযাপন করছেন। এখানকার সমুদ্র সৈকতের সৌন্দর্য আপনাকে বিমোহিত করবে।

বাংলাদেশের কাছাকাছি বলে যাওয়া-আসার ক্ষেত্রে অনেক খরচ গুনতে হবে না। এছাড়া দেশটিতে থাকা-খাওয়ার খরচও খুব বেশি নয়। অল্প খরচে দম্পতিদের মধুচন্দ্রিমা উদযাপনের জন্য শ্রীলঙ্কা আদর্শ জায়গা।

নিউজিল্যান্ড: দেশটি শান্তিপূর্ণ বলে মানুষ নির্ঝঞ্ঝাট সময় অতিবাহিত করার জন্য সেখানে বেড়াতে যায়। প্রাকৃতিক জলরাশি এবং পাহাড়ঘেরা সৌন্দর্যের লীলাভূমি নিউজিল্যান্ড। নব দম্পতিদের জন্য চমৎকার জায়গা। নিউজিল্যান্ড পর্যটনকেন্দ্রিক দেশ বলে সেখানে রয়েছে নানান ক্যাটাগরি ও বিভিন্ন মূল্যের হোটেল এবং রিসোর্ট। চমৎকার সাজানো-গোছানো দেশটির পাহাড়ের আঁকাবাঁকা রাস্তায় সবুজের সাথে আপনি চাইলেই প্রিয়জনের হাত ধরে হারিয়ে যেতে পারেন। বাংলাদেশে নিউজিল্যান্ডের কোনো ভিসা প্রসেসিং হয় না। ভিসা প্রসেসিং করাতে যেতে হবে ভারত। অথবা আপনি সরাসরি অনলাইনের মাধ্যমে ভিসা অ্যাপ্লিকেশন করতে পারবেন। তবে এই প্রসেসিং অনেকটাই সহজ হবে যদি কোনো এজেন্সির মাধ্যমে আপনি কাজটি করেন।

মালদ্বীপ: অনেকগুলো দ্বীপ এবং নীল বর্ণের পরিষ্কার পানি ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য মালদ্বীপ বিখ্যাত। জলরাশিপূর্ণ বলেই হয়তো নব দম্পতিদের কাছে মধুচন্দ্রিমা উদযাপনের জন্য মালদ্বীপ আকর্ষণীয় দেশ। মালদ্বীপের আয়তন খুব একটা বেশি বড় না হওয়ার কারণে আপনি যেকোনো একটি হোটেলে উঠলে সেখান থেকেই পুরো দেশ ঘুরে বেড়াতে পারবেন। এছাড়া পর্যটনের দেশ বলেই হয়তো মালদ্বীপে রয়েছে বিভিন্ন রকম ভ্রমণ প্যাকেজ। আপনি পছন্দ অনুযায়ী প্যাকেজ বেছে নিতে পারবেন। তবে মালদ্বীপ ভ্রমণের ক্ষেত্রে খরচের ব্যাপারটি সম্পূর্ণ আপনার উপরে নির্ভর করছে। কেননা আপনি কতটা বেশি আরামপ্রদ এবং বিলাসবহুল ভ্রমণ চাইছেন তার উপর টাকার অঙ্ক ওঠা-নামা করবে। 

থাইল্যান্ড: বিগত বেশ কয়েকটি বছর হানিমুন কাপলদের জন্য একটি আদর্শ ডেসটিনেশন থাইল্যান্ড। থাইল্যান্ডে রয়েছে ঘুরে বেড়ানোর জন্য অসংখ্য নান্দনিক পর্যটন স্পট। এছাড়া থাইল্যান্ডব্যাপী নানান স্ট্রিট ফুড-এর কথা না বললেই নয়! কেননা রাজধানী ব্যাঙ্কক বলতে অনেকে স্ট্রিট ফুড এবং সি ফুড-এর সমারহ বুঝে থাকেন।

মরিশাস: ভারত মহাসাগরে অবস্থিত সুন্দর এই জায়গাটি দীর্ঘদিন ধরেই হানিমুন কাপলদের জন্য আকর্ষণীয় একটি স্থান। সমুদ্রঘেঁষা বলেই হয়তো এখানে পর্যটনের অনেকগুলো স্পট গড়ে উঠেছে। এখানকার সমুদ্র সৈকত এতই সুন্দর যে প্রিয় মানুষটির হাত ধরে সৈকতে বসেই পার করে দিতে পারেন অনেকটা সময়। মরিশাস দেখতে একদম ছবির মতো সুন্দর! তবে এর সৌন্দর্য পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করতে হলে আপনাকে যেতে হবে মে থেকে ডিসেম্বর মাসের মধ্যে। সাদা বালির সমুদ্র সৈকতজুড়ে আপনি উপভোগ করতে পারবেন অসংখ্য নাম না জানা পাখির কাকলি। সাধারণত যে সকল দম্পতি কিছুটা অন্তরঙ্গ সময় পার করতে চান তারা মরিশাসে পাড়ি জমাতে পারেন দ্বিতীয় কোনো চিন্তা না করে।

প্যারিস: প্রচণ্ড রোমান্টিক শহর প্যারিস ছাড়া হানিমুন উদযাপনের সেরা স্থানের কোনো তালিকা পূর্ণ হবে না। আইফেল টাওয়ারের শহর প্যারিসের অলিগলিতে প্রিয়জনের হাত ধরে ঘুরলে এক জীবন সেই স্মৃতি রোমন্থন করেই কাটিয়ে দিতে পারবেন। ছবির মতো সুন্দর এই শহর এতই চমৎকার যে, অন্য কোনো শহরের সঙ্গে এর তুলনা হয় না। যেহেতু প্রিয় মানুষটির সঙ্গে চমৎকার এবং মনে রাখার মতো কিছু সময় অতিবাহিত করাই আপনার উদ্দেশ্য, তাই ভ্রমণের সবকিছু পূর্ব পরিকল্পনা করে নেয়া ভালো। এতে আপনি তাৎক্ষণিকভাবে নানা ঝঞ্ঝাট এড়াতে পারবেন। তবে যেখানেই যান না কেন, আগে থেকে টিকেট এবং হোটেল অথবা রিসোর্ট বুকিং দিয়ে নিতে ভুলবেন না।


ঢাকা/ফিরোজ/তারা