ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৩ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

নির্ভার ড্রেসিংরুম দেয় জয়ের আত্মবিশ্বাস

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৮ ১:৫৮:৩১ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-১৮ ২:০০:৩০ এএম
নির্ভার ড্রেসিংরুম দেয় জয়ের আত্মবিশ্বাস
Voice Control HD Smart LED

টনটন থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক: লক্ষ্যটা নাগালের বাইরে গেলেই ছটফট করতো ড্রেসিং রুম।  আত্মবিশ্বাসে ধরত চিড়। পারবো কি পারবো না তা নিয়ে কতো জল্পনা-কল্পনা।  ড্রেসিং রুমের ভেতরের এমন চিত্রে ২২ গজে পড়ত প্রভাব।ব্যাটসম্যানরা পেতেন না লড়াইয়ের অনুপ্রেরণা।

দিন পাল্টেছে। এখন বড় লক্ষ্য পেলেও ড্রেসিং রুম থাকে চনমনে।  কোচিং স্টাফ, সাপোর্টিং স্টাফ থেকে শুরু করে ক্রিকেটাররা সবাই থাকেন ফুরফুরে মেজাজে।  পারবোই, এমন আত্মবিশ্বাস থাকে সবার হৃদয়ে। 

সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টনটনে বাংলাদেশ যখন ৩২১ রান তাড়া করতে নামে তখন থেকেই ড্রেসিং রুমে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর।  সেঞ্চুরিয়ান সাকিব জানালেন, ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এক মুহুর্তের জন্যও ড্রেসিং রুমে নেতিবাচক চিন্তা হয়নি।  ম্যাচ হেরে যেতে পারি, এমন ভাবনাও আসেনি। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বধের নায়ক সাকিব মনে করেন বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এমন নির্ভার ড্রেসিং রুম পাল্টে দিয়েছে পুরো দলকে,‘আমি মনে করি প্রথম ইনিংসের পর ড্রেসিং রুমের কেউ বিশ্বাস হারায়নি যে আমরা পারব না। সবাই স্বস্তিতে ছিল। নিজের মতো করে সময় কাটাচ্ছিল। এটা খেলোয়াড়দের অনেক আত্মবিশ্বাসী করছিল।’ 

‘আগে যেটা হতো আমরা ড্রেসিং রুমে প্যানিক করে ফেলতাম। এখন ভালো জিনিস যেটা হচ্ছে, ড্রেসিং রুমে কোচিং স্টাফরা শান্ত থাকে, তাই প্যানিক করার সুযোগটা আসে না।  দেখা যায় কেউ রেডিও শুনছে, কেউ গল্প করছে।  কোনো স্টেজে কেউ প্যানিক হয় না। প্যানিক জিনিসটা ছোঁয়াচের মতো।  একজনের ধরলে আরেকজনের অটোমেটিক ধরে যায়।  আমাদের কোচিং স্টাফরা এই আবহ ড্রেসিং রুমে তৈরি করার চেষ্টা করছে।  তাদেরকে ক্রেডিট দেওয়া উচিত।’ - যোগ করেন সাকিব। 

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সাকিবকে এক মুহুর্তের জন্যও ছটফট করতে দেখা যায়নি।  ঝুঁকিপূর্ণ দুই-তিনটি শট খেললেও পুরোটা সময়  ছিলেন ধীরস্থির। নিজের ব্যাটিং অ্যাপ্রোচ নিয়ে সাকিব বলেছেন,‘আজ কোনো সময় মনে হয়নি আমরা চাপ নিয়ে ব্যাটিং করেছি। বড় শট খেলতে হবে, সেটা খেলেছি। কিন্তু পুরোপুরি ক্রিকেটিং শট খেলেছি। বড় বড় দেশ এগুলো করে থাকে। আমরা ওই ধরণের খেলা খেলার চেষ্টা করছি।  আমি তো মনে করি এটা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য নতুন একটা লেভেল। আয়ারল্যান্ডের কয়েকটা ম্যাচ আমাদেরকে বেশ সাহায্য করেছে। আমরা ওখানে প্রতিটা ম্যাচ লক্ষ্য তাড়া করে ভালোভাবে জিতেছি।’

সাকিব বিশ্বাস করেন বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫১ বল আগে ৭ উইকেটের যে জয় বাংলাদেশ তুলে নিয়েছে তাতে পাল্টাবে ড্রেসিং রুমের চিত্র।  বলার অপেক্ষা রাখে না, টনটনের জয়ে বিশ্বকাপের পরবর্তী স্টেজে বাংলাদেশ আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে। 



রাইজিংবিডি/টনটন/১৮ জুন ২০১৯/ইয়াসিন

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge