ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বাংলাদেশকে হারিয়ে সিরিজ বাঁচিয়ে রাখল ভারত

রাজকোট থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৭ ৭:০৪:০৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-০৮ ৫:১৩:২২ পিএম
ছবি: মিলটন আহমেদ

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে ৮ উইকেটে হারিয়ে সিরিজ বাঁচিয়ে রাখল ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৫৩/৬

ভারত: ১৫.৪ ওভারে ১৫৪/২।

রোহিত ঝড়ে ভারতের বড় জয়

আগের ম্যাচে দুই অঙ্কে যেতে পারেননি। রোহিত শর্মার এবার ঝড় তুললেন। খেললেন ৪৩ বলে ৮৫ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস। তাতে ভারত পেল বড় জয়।

তিন ম্যাচের সিরিজে এখন ১-১ সমতা। আগামী রোববার নাগপুরে হবে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ।

সেঞ্চুরি হলো না রোহিতের

যেভাবে খেলছিলেন তাতে সেঞ্চুরি পাবেন বলেই মনে হচ্ছিল। তবে সেঞ্চুরিটা পেলেন না রোহিত শর্মা। ৮৫ রানে তাকে ফিরিয়েছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

লেগ স্পিনারকে ছক্কায় উড়াতে চেয়েছিলেন ডানহাতি ওপেনার। ডিপ মিড উইকেটে ক্যাচ নেন বদলি ফিল্ডার মোহাম্মদ মিথুন। ৪৩ বলে ৬টি করে চার ও ছক্কায় ৮৫ রানের ইনিংসটি সাজান রোহিত।

জুটি ভাঙলেন আমিনুল

অবশেষে ভাঙল ভারতের বিস্ফোরক উদ্বোধনী জুটি। শিখর ধাওয়ানকে ফিরিয়ে ৬৫ বলে ১১৮ রানের জুটি ভেঙেছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

লেগ স্পিনারকে বেরিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন ধাওয়ান। বলের লাইন মিস করে বোল্ড হন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ২৭ বলে ৩১ রান করেন ধাওয়ান।

ঝড় তুলে রোহিতের ফিফটি

ঝড়ো ফিফটি তুলে নিয়েছেন রোহিত শর্মা। আফিফ হোসেনকে ছক্কায় উড়িয়ে মাত্র ২৩ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন ভারত ওপেনার। ফিফটির পথে ৬টি চারের সঙ্গে তিনি ছক্কা হাঁকান ৩টি।

পাওয়ার প্লেতে ভারতের ৬৩/০

লক্ষ্য তাড়ায় ভারতকে উড়ন্ত সূচনা এনে দিয়েছে রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ানের উদ্বোধনী জুটি। পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে ভারতের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৩ রান। রোহিত ২১ বলে ৪৬ ও ধাওয়ান ১৫ বলে ১৩ রানে অপরাজিত আছেন। ১৪ ওভার থেকে ভারতকে করতে হবে আর ৯১ রান।

বাংলাদেশের পুঁজি ১৫৩

শুরুটা হয়েছিল উড়ন্ত। কিন্তু শেষ দিকে প্রত্যাশিত ঝড় উঠল না। বাংলাদেশের সংগ্রহটাও তাই বড় হলো না। আগে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে বাংলাদেশ করেছে ১৫৩ রান। সিরিজ বাঁচিয়ে রাখতে ভারতের দরকার ১৫৪ রান।

 

 

ঝড় তুলতে পারলেন না মাহমুদউল্লাহ

শেষ দিকে ঝড় তোলার আগেই ফিরে গেলেন মাহমুদউল্লাহ। দীপক চাহারের বলে থার্ডম্যানে সহজ ক্যাচ দেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ২১ বলে ৪ চারে মাহমুদউল্লাহ করেন ৩০ রান।  

টিকলেন না আফিফ

আফিফ হোসেনও বেশিক্ষণ টিকতে পারলেন না, পারলেন না সময়ের দাবি মেটাতে। খলিল আহমেদের স্লোয়ার বল আকাশে তোলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। কাভারে ক্যাচ নেন রোহিত শর্মা। আফিফ ৬ করে ফেরার সময় বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১২৮ রান।

জোড়া ধাক্কা

যুজবেন্দ্র চাহালের একই ওভারে আউট হয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও সৌম্য সরকার। প্রথম বলে সুইপ করতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেটে সহজ ক্যাচ দেন ৪ রান করা মুশফিক। শেষ বলে বেরিয়ে এসে খেলতে গিয়ে স্টাম্পড হন সৌম্য। ২০ বলে সৌম্য করেন ৩০।

তখন ১৩ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১০৩ রান। উইকেটে দুই নতুন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ ও আফিফ হোসেন।

ওয়াশিংটনের শিকার নাঈম

নাঈম শেখকে ফিরিয়ে ভারতকে দ্বিতীয় সাফল্য এনে দিয়েছেন ওয়াশিংটন সুন্দর। অফ স্পিনারকে স্লগ সুইপ খেলেছিলেন নাঈম। কিন্তু শটে জোর ছিল না তেমন। মিড উইকেট সহজ ক্যাচ নেন শ্রেয়াস আইয়ার। ৩১ বলে ৩৬ রান করেন নাঈম। তখন ১০ ওভার ৩ বলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৮৩।

 

 

সুযোগ কাজে লাগাতে পারলেন না লিটন

ভারতের উইকেটকিপারের ভুলে বেঁচে যাওয়ার সুযোগটা কাজে লাগাতে পারলেন না লিটন দাস। হয়ে গেলেন রান আউট।

যুজবেন্দ্র চাহালকে ঠিকমতো খেলতে পারেননি লিটন। বল তার প্যাডে লেগে ছিল পিচের কাছেই। লিটন ছুটে বেরিয়ে আসেন রান নিতে। পন্ত সামনে দৌড়ে দ্রুত বল ধরে সরাসরি থ্রোয়ে ভাঙেন স্টাম্প, রান আউট।

২১ বলে ৪ চারে লিটন করেন ২৯ রান। তখন ৭ ওভার ২ বলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৬০ রান। নাঈম শেখের সঙ্গী সৌম্য সরকার।

বেঁচে গেলেন লিটন

আউট হয়ে যেতে পারতেন লিটন দাস। তবে ভারতের উইকেটকিপারের ভুলে বেঁচে গেছেন বাংলাদেশের ওপেনার।

প্রথমবার আক্রমণে আসা লেগ স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহালকে ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে এসে মিস করেন লিটন। বল ধরে স্টাম্প ভাঙেন ঋষভ পন্ত। লিটন তখন অনেকটা বাইরে। তবে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বল ধরার সময় পন্তের গ্লাভসের কিছুটা অংশ ছিল স্টাম্পের সামনে।

নিয়ম অনুযায়ী সেটি হয়ে যায় নো বল। তখন ১৭ রানে ব্যাট করছিলেন লিটন।

নাঈমের চারের হ্যাটট্রিক

আগের ম্যাচে শেষের আগের ওভারে খলিল আহমেদকে টানা চারটি চার মেরেছিলেন মুশফিকুর রহিম। আজ দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতীয় এই পেসার তার প্রথম ওভারে হজম করেছেন টানা তিনটি চার। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে প্রথম তিন বলে চার মারার হ্যাটট্রিক করেন তরুণ নাঈম শেখ।

 

 

রোহিত শর্মার সেঞ্চুরি

মাঠে নেমেই সেঞ্চুরির স্বাদ পেলেন রোহিত শর্মা। এবার ব্যাটিংয়ে নয়, রোহিত সেঞ্চুরি পেলেন ম্যাচসংখ্যায়। ভারতের প্রথম ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে শততম টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমেছেন রোহিত শর্মা। প্রথম ম্যাচে রোহিত ৯ রান করে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছিলেন। আজ রাজকোটে রোহিত নিজের শততম টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমেছেন।

টি-টোয়েন্টিতে সবথেকে বেশি ম্যাচ খেলেছেন পাকিস্তানের শোয়েব মালিক।  পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ১১১ ম্যাচ খেলেছেন। এছাড়া শহীদ আফ্রিদি ৯৯, মাহেন্দ্র সিং ধোনী ৯৮ এবং রস টেলর ৯৩ ম্যাচ খেলেছেন।

ব্যাটসম্যানদের দিক থেকে রোহিত শর্মা রয়েছেন সবার ওপরে। ডানহাতি এ ব্যাটসম্যানের রান ২৪৫২। বিরাট ৭২ ম্যাচে করেছেন ২৪৫০ রান। এ তালিকায় তিনে রয়েছেন মার্টিন গাপটিল। নিউজিল্যান্ডের ওপেনার ৮০ ম্যাচে করেছেন ২৩২৬ রান।

ভারতের হয়ে প্রথম ১০০ টেস্ট খেলেছিলেন সুনীল গাভাস্কার। সেটা ১৯৮৪ সালে। কপিল দেব টিম ইন্ডিয়ার হয়ে ১৯৮৭ সালে খেলেছিলেন শততম ওয়ানডে।  আজ রোহিত নেমেছেন শততম টি-টোয়েন্টি খেলতে।

অপরিবর্তিত দুই দল

প্রথম ম্যাচ জেতায় উইনিং কম্বিনেশন ভাঙেনি বাংলাদেশ।  প্রথম ম্যাচের একাদশ নিয়েই রাজকোটে মাঠে নামছে। ভারত ম্যাচ হারলেও দলে কোনো পরিবর্তন আনেনি।  রোহিত শর্মা টসের সময় বলেন,‘আমরা প্রথম ম্যাচে ভালো করেছিলাম। কয়েকটি ভুল করায় আমরা ম্যাচ হেরেছি।’

বাংলাদেশ একাদশ

লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন হোসেন।

ভারত একাদশ

রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, রিষভ পন্ত, ক্রনাল পান্ডিয়া, শিভাম দুবে, ওয়াসিংটন সুন্দর, দীপক চাহার, যুজবেন্দ্র চাহাল ও খলিল আহমেদ।

টস

ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটায় ম্যাচটি শুরু হবে। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মাহমুদউল্লাহ টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন।

শঙ্কা কাটিয়ে পূর্ণ ম্যাচের পূর্বাভাস

ঘূর্ণিঝড় মাহা’র তান্ডবে ম্যাচ হবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা ছিল। আগের রাতের ঝড় ও বৃষ্টি আশঙ্কা আরও বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু আজ সকাল থেকেই রাজকোটের আকাশ পরিস্কার। দুপুর গড়িয়ে বিকেল পর্যন্ত একবারের জন্য মনে হয়নি বৃষ্টি হতে পারে। কোনো বাঁধা ছাড়াই শুরু হচ্ছে ম্যাচ।

সিরিজ জয়ের হাতছানি

দিল্লিতে প্রথম টি-টোয়েন্টি জিতে বাংলাদেশ তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে। প্রথমবারের মতো ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি জয়ের পর এবার হাতছানি দিচ্ছে সিরিজ জয়। ভারতের মাটিতে এশিয়ার কোনো দল এখন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিততে পারেনি। ভারত নিজেদের মাটিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে চারটি। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা হারিয়েছে। এবার কি বাংলাদেশের পালা? উত্তর জানা যাবে আজ রাতেই।

 

রাজকোট/ইয়াসিন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন