ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ঝুঁকিতে বসবাসকারীদের সরিয়ে নিচ্ছে প্রশাসন

নুরুচ্ছাফা মানিক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০৭-০৪ ৩:৩৮:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৭-০৪ ৮:৫৬:৪৬ পিএম

খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা : খাগড়াছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরাতে জেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কা থাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন স্থানে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ টিম ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

বেলা ১১টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের শালবন, হরিনাথ পাড়া গ্যাপসহ বেশ কিছু এলাকায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা এলিশ শরমিন অভিযান পরিচালনা করেন।

এ সময় হরিনাথ পাড়া গ্যাপ, শালবন আঠার পরিবার এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারী চারটি পরিবারকে শালবন আশ্রয় কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু ভ্রাম্যমাণ টিম শালবন এলাকা ছাড়ার পর অনেকগুলো পরিবার বাড়ি ফিরে গেছে।



শালবন এলাকার বাসিন্দা ফরিদ মিয়া জানান, জীবনের সবটুকু সঞ্চয়ে গড়া বসতভিটা ছেড়ে অনেকে যেতে চাচ্ছে না। ঝুঁকি নিয়েও তারা বাড়িতে থাকছে। এ বিষয়ে প্রশাসনকে আরো কঠোর অবস্থান নেওয়া জরুরি।

সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এলিশ শরমিন জানান, ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে আশ্রয় কেন্দ্র ও নিরাপদ স্থানে নিতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নিরাপদ স্থানে সরে যেতে মাইকিং করা হচ্ছে। শালবন এলাকার একটি বাড়ির ওপর পাহাড় ধসে পড়ায় পরিবারের সদস্যদের মঙ্গলবার দুপুরে আশ্রয় কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের ঝুঁকি থাকায় জেলা সদরের একটিসহ মানিকছড়ি, রামগড় ও মহালছড়িতে পাচটি আশ্রয় কেন্দ্র খুলেছে জেলা প্রশাসন।

উল্লেখ্য, চলতি বর্ষা মৌসুমে প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসে খাগড়াছড়ির রামগড় ও লক্ষ্মীছড়িতে পাহাড় ধসে শিশুসহ চারজন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে। পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে রয়েছেন প্রায় সহস্রাধিক পরিবার।



রাইজিংবিডি/খাগড়াছড়ি/৪ জুলাই ২০১৭/নুরুচ্ছাফা মানিক/রুহুল

       
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম বিভাগ