ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মেঘনায় ভাসছে শত শত পরিযায়ী পাখি!

ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৫ ১২:৫৯:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-২৮ ৪:১৫:০০ পিএম
মেঘনায় ভাসছে শত শত পরিযায়ী পাখি!

ভোলা সংবাদদাতা: ভোলার চরাঞ্চলে আসা শীতের অতিথি পাখিরা ভাল নেই। অতিথি পাখিদের কলকাকলিতে মুখরিত চরাঞ্চলে তৎপর ঘাতক শিকারি। নানা উপায়ে পাখিদের বধ করে চলেছে তারা।

ভোলার মেঘনা। চারদিকে জলরাশি। শীতের নদী উষ্ণ রোদের আলোয় ঝলমল করছে। চরের কাছাকাছি যেতেই চোখে পড়ে রং বেরংয়ের পারিযায়ী পাখিদের। এক দল ডানা মেলে মুক্ত আকাশে উড়ছে। আর এক দল চরের পানিতে ডুব সাঁতার দিয়ে খাবার খাচ্ছে। নয়ন জুড়ানো অপরুপ দৃশ্য। সে দৃশ্য মুহূর্তে বিষাদে পরিণত হয়। দেখা যায় নদীতে ভাসছে অনেক মৃত পারিযায়ী পাখি।

সরেজমিনে ভোলা ও লক্ষীপুরের মাঝামাঝি মেঘনায় চোখে পড়ে এ দৃশ্য। নিষ্ঠুর শিকারিদের বিষটোপ ফাঁদে পড়েই পারিযায়ী পাখিদের এই করুণ পরিণতি। এভাবে নির্বিচারে পাখি শিকার করার ফলে পাখিদের আগমন যেমন কমে যাচ্ছে। তেমনি নষ্ট হচ্ছে পরিবেশের ভারসাম্য ও সৌন্দর্য্য হারাচ্ছে মনোমুগ্ধকর চরগুলো।

শীত শুরুর সাথে সাথেই ভোলার উপকূলীয় বিভিন্ন চরে প্রতি বছরের ন্যায় এবারো অতিথি পাখিদের সমাগম ঘটেছে। দ্বীপ জেলা ভোলার মাঝের চর, মদনপুর, মেদুয়া, নেয়ামতপুর, চরফ্যাসনের তারুয়া, কুকরী-মুকরী, সাগর কন্যা মনপুরার ঢালচর, চর পালিতাসহ অর্ধশতাধিক ছোট বড় চর বিভিন্ন প্রজাতির লাখ লাখ অতিথি পাখির আবাস স্থলে পরিনত হয়েছে। পাখিদের কলতানে মুখর হয়ে উঠেছে চরগুলো।

খাদ্যের সন্ধানে গিয়ে এসব পাখি মারা পড়ছে নির্দয় শিকারীদের হাতে। ধানের সাথে বিষাক্ত রাসায়নিক, চেতনা নাশক বিষটোপ, জালের ফাঁদ ইত্যাদি বিভিন্ন কৌশলে নির্বিচারে চলছে পাখি শিকার।



মেঘনার জেলে জামাল মাঝি জানান, নদীতে মাছ ধরতে গেলে প্রায় প্রতিদিনই মেঘনায় মরা পাখি ভাসতে দেখা যায়।

জানা যায়, কখনো কখনো অসাধু জেলেরাও ভাটার সময় কীটনাশক ধানের সাথে মিশিয়ে ছিটিয়ে দেয়। ওই ধান খেয়ে পাখি ঘুরে পড়ে যায়। অনেক পাখি উড়ে গিয়ে মাঝ নদীতে মরে পড়ে যায়। শিকারী দল অসুস্থ ও মৃত পাখি জবাই করে বাজারের ব্যাগে করে বিভিন্ন হোটেলে ও বাসা বাড়িতে ফেরি করে বিক্রি করে। এসব পাখি গোপনে প্রতি পিস বিক্রি হয় ৫ শ থেকে ৬ শ টাকা করে। 

ভোলার সিভিল সার্জন ডা: রথিন্দ্রনাথ মজুমদার বলেন, ‘বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য খাইয়ে নিধন করা এসব অতিখি পাখি খেলে মানব দেহের খাদ্য নালিতে প্রদাহ হবে। বার বার এসব খাবার খেলে লিভার কিডনি আক্রান্ত হওয়াসহ  ক্যান্সার  হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে ‘

ভোলা কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের অপারেশন অফিসার লে: নাজিউর রহমান জানান, শিকারীদের হাত থেকে পাখি রক্ষায় তারা নিয়মিত টহলের পাশাপাশি বিশেষভাবে তৎপর রয়েছেন। অভিযানের জন্য তাদের সকল ষ্টেশনকে ইতোমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান কোস্টগার্ডের এ কর্মকর্তা।



রাইজিংবিডি/ভোলা/১৫ জানুয়ারি ২০১৯/ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন/টিপু

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন