ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

টঙ্গীতে ধর্ষণের পর কিশোরের মৃত্যুর অভিযোগ, গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৭ ৬:৩৬:১৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৭ ৭:০১:৩১ পিএম

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের টঙ্গীতে ধর্ষণের এক সপ্তাহ পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় আল-আমিন নামে (১৫) এক কিশোরের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।  এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাতে ওই কিশোরের মৃত্যু হয়। শুক্রবার গাজীপুরের শহীদ তাজ উদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার লাশের ময়না তদন্ত হয়েছে।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশের টঙ্গী পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ মো. এমদাদুল হক সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে নিহতের মা আমেনা বেগম বাদী হয়ে মামলা করেছেন। অভিযুক্ত মাহিন (১৫) ও হৃদয়কে (১২) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নিহত আল-আমিন বরিশালের হিজলা থানার খৈলারচর এলাকার বিল্লাল হোসেনের ছেলে। আল-আমিনের পরিবার বর্তমানে টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার ৬ নং ব্লকের বাসিন্দা।

নিহতের মা ও এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আল-আমিন তৃতীয় শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছিল। পরে দুই বছর যাবৎ একটি গ্রিল তৈরির দোকানে কাজ করছিল। গত ১৯ মার্চ রাতে একই এলাকার মাহিন, হৃদয়সহ চার কিশোর তাকে ইজতেমা ময়দানে ইসলামিক আলোচনা শুনার কথা বলে ডেকে নেয়। পর দিন সকালে সে অসুস্থ অবস্থায় বাড়ি ফিরে কিন্তু অসুস্থতার ব্যাপারে কিছুই বলেনি। ২৩ মার্চ প্যান্টে রক্ত দেখতে পেয়ে পরিবারের লোকজন স্থানীয়ভাবে তাকে ওষুধ খাওয়ায়। অবস্থার উন্নতি না হলে পরদিন টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্যাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে নিলে বলৎকারের বিষয়টি প্রকাশ পায়। আল আমিনও ১৯ মার্চ রাতে ওই চার কিশোর রুটি খাইয়ে অজ্ঞান করে তাকে ধর্ষণ করে বলে স্বীকার করে। এ সময় ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আল আমিনকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু অক্ষমতার কারণে ওই হাসপাতালে নিতে না পেরে তাকে বাসায় নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে আল আমিন মারা যায়।

 

গাজীপুর/হাসমত আলী/সাজেদ

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : গাজীপুর, ঢাকা বিভাগ