ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭, ০৩ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

রাজশাহীতে শিলাবৃষ্টির সঙ্গে কালবৈশাখী, আম-ফসলের ক্ষতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৭ ১১:০০:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-০৮ ১:৩১:০১ এএম

রাজশাহীতে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টি হয়েছে। এতে আমের ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে লিচু এবং ধানেরও।

বৃহস্পতিবার (৭ মে) বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজশাহী শহর এবং এর আশপাশের এলাকায় এই ঝড় ও বৃষ্টি হয়।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজশাহীতে ঝড় ও বৃষ্টি শুরু হয়। শেষ হয় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। এই সময়ের মধ্যে ২৩ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। ঝড়-বৃষ্টি চলাকালে বাতাসের গতিবেগ ছিলো ৫৬ কিলোমিটার।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক নজরুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে রাজশাহীতে দ্বিতীয় দিনের মতো ভারী বৃষ্টিপাত হলো। এর আগে বৃষ্টির সঙ্গে শিলা ছিলো না। 

কৃষি বিভাগ বলছে, এবার শিলাবৃষ্টি শুধু রাজশাহী শহরের ভেতরেই হয়েছে। গ্রামাঞ্চলে বৃষ্টি হলেও শিলা পড়েনি। তবে ঝড়ো বাতাস ছিলো। এতে কিছু আম ঝরে পড়েছে।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শামছুল হক বলেন, কালবৈশাখীর পর বিভিন্ন উপজেলায় খোঁজ নিয়েছেন।  সেদিকে শিলাবৃষ্টি হয়নি। শিলাবৃষ্টি শুধু রাজশাহী শহরে হয়েছে। তাই মাঠের ধানের তেমন ক্ষতি হবে না। কিছু পাকা ধান শুয়ে পড়তে পারে। আর কিছু আম ঝরতে পারে। ক্ষয়ক্ষতি তেমন হবে না।

তবে রাজশাহীর পবা, গোদাগাড়ী, বাঘা-চারঘাটসহ বিভিন্ন উপজেলার গ্রামাঞ্চল থেকে গাছপালা ভেঙে পড়েছে এবং কাঁচাঘর, বাড়ির টিনের চালা উড়ে গেছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা আবদুস সালাম জানান, রাজশাহীতে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৪ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল ৬টায় বাতাসে আর্দ্রতা ৯৪ শতাংশ এবং সন্ধ্যা ৬টায় ১০০ শতাংশ। দিনভর আকাশে রোদ থাকলেও হঠাৎ করেই বিকেলের পর আবহাওয়া খারাপ হয়ে যায়।

এদিকে, বৃষ্টি শুরুর পর নগরীর বিভিন্ন এলাকা বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। রাত ৯টার দিকে বিদ্যুৎ সঞ্চালন স্বাভাবিক হয়। আর ভারী বর্ষণে নগরীর সাহেব বাজার ও গণকপাড়া ছাড়াও উপশহর, বর্ণালীর মোড়, আমবাগান, কলাবাগান, কোর্ট হড়গ্রাম ষষ্টিতলা এলাকায় পানি জমে যায়। এতে চলাচলরত যানবাহন ও সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে পড়ে।


তানজিমুল/বকুল

       
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : রাজশাহী, রাজশাহী বিভাগ