ঢাকা, শনিবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রোমান্টিক আন্দোলনের কবি

শাহ মতিন টিপু : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০৪ ১:৩৩:৩৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-০৪ ১:৫০:০৩ পিএম

শাহ মতিন টিপু: কবি পার্সি বিসি শেলি। উনিশ শতকের প্রথম দিকের বিখ্যাত ইংরেজি কবি।  তাকে রোমান্টিক আন্দোলনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কবিদের মধ্যে ভাবা হয়।

তার Ode to the West Wind কবিতার ক’টি লাইন:

‘Make me thy lyre, even as the forest is:/What if my leaves are falling like its own! /The tumult of thy mighty harmonies/Will take from both a deep, autumnal tone, / Sweet though in sadness. Be thou, Spirit fierce, /My spirit! Be thou me, impetuous one!’

তার কিছু কবিতা ইংরেজিতে অন্যতম বিখ্যাত কবিতা হিসেবে ধরা হয়। তারমধ্যে Ode to the West Wind-ও একটি।

এই মহান কবির জন্ম ১৭৯২ সালের ৪ আগস্ট ইংল্যান্ডের সাসেক্সে। বাবা তৎকালীন ব্রিটিশ সাংসদ টিমথি শেলি, মা এলিজাবেথ শেলি। ওয়ার্ডসওয়ার্থ, বায়রনের মতো ইংল্যান্ড পেল আরেকজন অসাধারণ কবি প্রতিভা।

বলা হয়, ধনী ঘরেই জন্মেও শেলি বিচরণ করতেন স্বপ্নরাজ্যে। সুবিধামত জীবনযাপন ছেড়ে বেছে নেন ঝঞ্ঝাময় জীবন।

তার দৈহিক গঠন ছিল সুন্দর। বিদেশ ভ্রমণের কারণে ব্যাপক অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেন। স্বাচ্ছন্দ, মর্যাদা ও প্রভাব সবই তিনি জীবনে উপভোগ করেন। যখন ইচ্ছে তিনি অত্যন্ত অমায়িক ও সন্তুষ্ট হতে পারতেন। তরুণ বয়সেই তিনি এক বিত্তশালী নারীকে বিয়ে করেন।

প্রথম স্ত্রী আত্মহত্যা করার পরে শেলি Mary Godwinকে বিয়ে করেন, যিনি পরে ফ্রাংকেনস্টাইন লেখক মেরি শেলি হিসাবে বিখ্যাত হয়ে ওঠেন।

শিক্ষা গ্রহণ করেন ইটন এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। অক্সফোর্ডে এসে শেলি প্রগতিবাদী লেখকদের লেখাসমূহ পড়া শুরু করেন। ১৮১১ সালে নাস্তিকতাকে সমর্থন করে একটি পুস্তিকা লেখার জন্য অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার হন।

শেলি ফরাসি বিপ্লবের আদর্শে অনুপ্রাণিত ছিলেন। ফরাসি বিপ্লবের আদর্শ তার মনোজগতকে এক নতুন প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ করেছিল। সে যুগের অন্ধ সমাজের বন্ধাত্বে তার অন্তর বিদ্রোহী হয়ে উঠেছিল।

শেলির জীবনের শেষ চারটি বছর কেটেছে ইতালিতে এবং এই সময়েই রচিত হয়েছে তার বেশীরভাগ শ্রেষ্ঠ লেখা। ১৮২০ সালে লিখেছিলেন তার বিখ্যাত গীতিকবিতা ‘Prometheus Unbound’—এটি গান, নাটক এবং কবিতার অপূর্ব এক সম্মিলন।

সমস্ত ইতালি ঘুরে ঘুরে দেখার অভিপ্রায় ছিল তার। এ সময় ফ্লোরেন্সে এক অধ্যাপকের সাথে শেলির পরিচয় হয়। এখানেই পরিচয় হয় আশ্রম আশ্রিত দুইজন সুন্দরী তরুণীর সাথে। একজনের রূপে মুগ্ধ হলেন তিনি। কিন্তু অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায় এই নারীর। ফলে ব্যথিত শেলি আরো বেশি করে ডুব দিলেন কাব্য চর্চায়। একে একে জন্ম নিল—

ode to the west wind, The cloud, The skylark, Song to prosperine, The Indian serenadae, Music, When soft voices die, On a Faded violet, To night.

এমন সময় একটি দুঃসংবাদে তিনি শোকাহত হয়েছিলেন। তার বন্ধু কিটস্ মারা গিয়েছেন। কবি কিটসের এই প্রয়াণে তিনি রচনা করলেন Adonais —মর্মস্পর্শী শোকগাঁথা হিসেবে বিশ্বসাহিত্যে এটি অমর হয়ে আছে।

কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য’র মতো তিনিও ছিলেন স্বল্পায়ুর কবি। ইতালি উপকূলে একটি নৌকা দুর্ঘটনায় মাত্র ত্রিশ বছর বয়সে ১৮২২ সালের ৮ জুলাই তিনি অকাল মৃত্যুবরণ করেন।

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ আগস্ট ২০১৯/টিপু

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন