ঢাকা, শুক্রবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

গ্রেপ্তারের পর এনুর রিমান্ড আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২১ ১০:১৯:৫৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২১ ১০:১৯:৫৫ পিএম

অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা এনামুল হক এনুকে গ্রেপ্তার দেখানোর পর এবার সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে দুদক।

মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী এ রিমান্ড আবেদন করেন।

ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ রিমান্ড শুনানির জন্য ২৩ জানুয়ারি দিন ধার্য‌্য করেন।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, অবৈধ‌ উদ্দেশ্যে অবৈধ‌ ব্যবসা ও অবৈধ‌ কার্যক্রমের মাধ্যমে এনু জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ নিজ নামে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার ৭৭৩ টাকার সম্পদ অর্জন করেছেন।

এছাড়া আসামির সঙ্গে রাজধানীর গেন্ডারিয়ার বাসিন্দা হারুনুর রশীদ ও ওয়ারীর বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ অসৎ উদ্দেশ্যে পরস্পর যোগসাজসে যথাক্রমে এক কোটি ৯৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা ও দুই কোটি টাকার অবৈধ‌ সম্পদ অর্জনে এনুকে প্রত্যক্ষভাবে সহায়তা করেছেন। ওই সম্পদ নিজেদের দখলে রেখেছেন।

আসামি এনুর অবৈধ সম্পদের বর্তমান অবস্থা, কাকে কি উদ্দেশ্যে দেয়া হয়েছে, তার সঙ্গে আর কারো সম্পৃক্ততা আছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য আসামিকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ একান্ত জরুরী।

গত ১৩ জানুয়ারি সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে এনু ও রুপন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি। ওই দিনই দুর্নীতির মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করে দুদক। আদালত আসামিদের উপস্থিতিতে গত ১৯ জানুয়ারি শুনানির তারিখ ধার্য‌্য করেন। পরে আদালত এনুকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন। তার ভাই রুপন ভূঁইয়ার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

পরদিন ১৪ জানুয়ারি মানি লন্ডারিং আইনে পৃথক দুই মামলায় দুই ভাইয়ের চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের শেয়ারহোল্ডার এনু ছিলেন গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। তার ভাই রুপন ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়ার ৩৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের খোঁজ পাওয়ার পর তাদের বিরুদ্ধে ২৩ অক্টোবর পৃথক দুটি মামলা দায়ের করে দুদক।

এনামুল হক এনুর বিরুদ্ধে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করেন মামুনুর রশীদ চৌধুরী।

অন্যদিকে, অসৎ উদ্দেশ্যে অবৈধ পন্থায় নামে-বেনামে ১৪ কোটি ১২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৮২ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রুপন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে দুদকের অপর সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী মামলা করেন।


ঢাকা/মামুন খান/সনি