ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

খালাস পেলেন ব-দ্বীপ প্রকাশনের কর্ণধারসহ তিনজন

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৩ ৯:২৫:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৩ ৯:২৫:৫৩ পিএম

‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার মতো বই’ প্রকাশের অভিযোগে করা মামলায় ব-দ্বীপ প্রকাশনের কর্ণধারসহ তিনজনকে খালাস দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামছ জগলুল হোসেন তথ্য-প্রযুক্তি আইনের এ মামলা থেকে তাদেরকে খালাস দেন।

যাদের খালাস দেয়া হয়েছে তারা হলেন- ব-দ্বীপ প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী এবং ওই সঙ্কলন গ্রন্থের সম্পাদক শামসুজ্জোহা মানিক (৭৭), শব্দকলি প্রিন্টার্সের মালিক তসলিমউদ্দিন কাজল (৬০) এবং বইটির লেখক শামসুল আলম চঞ্চল (৫৮)।

২০১৬ সালে একুশে বইমেলা চলাকালে ব-দ্বীপ প্রকাশন থেকে প্রকাশিত ‘ইসলাম বিতর্ক’ বইটি নিয়ে ইন্টারনেটে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ওই বইয়ে ‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার মতো’ লেখা আছে, এ অভিযোগে ১৫ ফেব্রুয়ারি রাতে বইমেলা থেকে বইটির সব কপি জব্দ করে পুলিশ।

পাশাপশি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার মতো বই অনুসন্ধান করতে গিয়ে রাজধানীর কাঁটাবনে ব-দ্বীপ প্রকাশনের দপ্তর থেকে আরো পাঁচটি বইয়ের সব কপি জব্দ করা হয়। সেসব বইয়ের মধ্যে ছিল ‘আর্যজন ও সিন্ধু সভ্যতা’, ‘জিহাদ: জবরদস্তিমূলক ধর্মান্তরকরণ’, ‘সাম্রাজ্যবাদ ও দাসত্বের উত্তরাধিকার’, ‘ইসলামের ভূমিকা ও সমাজ উন্নয়নের সমস্যা’, ‘ইসলামে নারীর অবস্থা’ এবং ‘নারী ও ধর্ম’।

এসব বই ‘বঙ্গরাষ্ট্র ডট ওআরজি’ নামের একটি ওয়েবসাইটেও প্রকাশ করা হয়। এ কারণে শাহবাগ থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা করেন এসআই মো. মাসুদ রানা।

ওই বছর ২১ আগস্ট তিনজনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন  শাহবাগ থানার তৎকালীন পরিদর্শক জাফর আলী বিশ্বাস।

চার্জ গঠনের পর মামলার বিচারকালে রাষ্ট্রপক্ষে ১৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ৯ জন সাক্ষ্য দেন। তবে তদন্ত কর্মকর্তার সাক্ষ্যের জন্য ১৬টি তারিখ রাখা হলেও তিনি সাক্ষ্য দিতে আদালতে যাননি।

 

ঢাকা/মামুন খান/রফিক