ঢাকা, সোমবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সবচেয়ে পুষ্টিকর ৯ খাবার

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-২৬ ৮:০৪:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-১৬ ১১:২৪:০৪ এএম
সবচেয়ে পুষ্টিকর ৯ খাবার
স্ন্যাপার

পিএলওএস ওয়ানে প্রকাশিত একটি বৈজ্ঞানিক গবেষণায় পুষ্টিগত ফিটনেস অনুসারে কিছু খাবারকে অপ্রচলিত উপায়ে র‍্যাংক করা হয়েছে। যেসব খাবার অল্প পরিমাণ খেলেই আমাদের দৈনিক সুপারিশকৃত পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয় সেসব খাবারের র‍্যাংক করা হয়েছে। এ প্রতিবেদনে বিজ্ঞানের আলোকে বিশ্বের সবচেয়ে ৯ পুষ্টিকর খাবার সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

* অ্যালমন্ড
অ্যালমন্ড মনো-আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিডে সমৃদ্ধ। মনো-আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড হলো উপকারী ফ্যাট, যা আপনার হার্ট ও রক্তনালির স্বাস্থ্য উন্নত করতে পারে। আপনি অ্যালমন্ড পিষে বিভিন্ন মিষ্টি খাবার বা পিঠাতে যোগ করতে পারেন। সালাদ ড্রেসিং হিসেবেও অ্যালমন্ড ব্যবহার করা যায়। অ্যালমন্ড নিজেই সুস্বাদু স্ন্যাক, যা আপনাকে তৃপ্ত করে লবণাক্ত ও মচমচে স্ন্যাক খাওয়ার আকাঙ্ক্ষা নিবারণ করতে পারে।

* আতা
আতা হলো আমাদের একটি পরিচিত ফল, যা গ্রীষ্মকালে ফলের বাজারে পাওয়া যায়। এ ফলটিতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ভিটামিন সি ও পটাসিয়াম রয়েছে। স্মুদি হিসেবে এটি খেতে বেশ তৃপ্তিদায়ক।

* ওশান পার্চ
ওশান পার্চ হলো রকফিশ ফ্যামিলির অংশ। এ মাছটি কিছু দেশে ছোট ছোট ফিলেট হিসেবে পাওয়া যায়, যা ফিশ ট্যাকুর সঙ্গে যোগ করে অথবা ক্রাম্ব ক্রাস্টের সঙ্গে ভেজে খাওয়ার জন্য আদর্শ। রান্না করলে এ মাছটি হালকা বাদামী বর্ণ ধারণ করে। এ মাছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাটের পরিমাণ অতি অল্প।



* ফ্লাটফিশ

যারা মার্কারি গ্রহণের ব্যাপারে উদ্বিগ্ন, তাদের জন্য একটি ভালো অপশন হলো ফ্লাটফিশ, কারণ এ মাছে মার্কারির পরিমাণ অতি অল্প। ফ্লাটফিশের একটি সর্বাধিক পরিচিত প্রজাতি হলো ফ্লাউন্ডার, কিন্তু হ্যালিবুটও একই প্রজাতির অন্তর্ভুক্ত- উভয়েই হলো প্রোটিনের সমৃদ্ধ উৎস এবং বি ভিটামিন রয়েছে।

* চিয়া বীজ
গত কিছু বছর ধরে অন্যতম সর্বাধিক জনপ্রিয় পুষ্টিকর সুপারফুড হলো চিয়া বীজ। আপনি বিভিন্ন ধরনের চিয়া পুডিং তৈরি করতে পারেন অথবা ওটমিলের বাটিতে টপিং হিসেবে চিয়া বীজ যোগ করতে পারেন অথবা স্মুদিতে মেশাতে পারেন। এ ছোট কালো বীজে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ও ফাইবার রয়েছে।

* কুমড়া বীজ
কুমড়া বীজ নিজেই স্ন্যাক হিসেবে আদর্শ, এটিকে ভেজে বা ক্যান্ডি করে যেভাবেই খান না কেন। এ বীজে কেবলমাত্র প্রদাহ-বিরোধী উপাদানই নয়, এতে উচ্চ পরিমাণে জিংকও রয়েছে- যা আপনার ইমিউন সিস্টেমকে সহায়তা করে।



* সুইস চার্ড

সুইস চার্ড হলো অতি উপকারী শাক। স্বাস্থ্য সচেতন লোকের ডায়েটে যোগ করার জন্য এ শাক আদর্শ। সুইস চার্ড হলো ভিটামিন কে, ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি এর শক্তিঘর।

* বিট শাক
প্রায়সময় বিটের ডাটা ও পাতাকে উপেক্ষা করা হয়, কিন্তু এগুলো ফেলে দেওয়ার মতো কিছু নয়। বিট শাক হলো সে ফ্যামিলির সদস্য যেখানে সুইস চার্ড রয়েছে। বিট শাক হলো ভিটামিন কে, ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি এর ভালো উৎস।

* স্ন্যাপার
স্ন্যাপারের অনেকগুলো প্রজাতি রয়েছে, কিন্তু সবচেয়ে পরিচিত প্রজাতি হলো রেড স্ন্যাপার। এ মাছ পুষ্টির চাহিদা পূরণ করলেও বেশি খাওয়া যাবে না, কারণ এতে উচ্চমাত্রায় মার্কারি রয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৬ মে ২০১৯/ফিরোজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন